সুপ্রিয় পাঠক/শ্রোতা! ১৪ নভেম্বর মঙ্গলবারের কথাবার্তার আসরে আপনাদের সবাইকে স্বাগত জানাচ্ছি। আশা করছি আপনারা প্রত্যেকে ভালো আছেন। শুরুতেই ঢাকা ও কোলকাতার গুরুত্বপূর্ণ বাংলা দৈনিকগুলোর বিশেষ বিশেষ খবরের অনলাইন শিরোনাম।

বাংলাদেশের শিরোনাম:

  • প্রধান বিচারপতির পদত্যাগপত্র গ্রহণ করেছেন রাষ্ট্রপতি-দৈনিক সমকাল
  • বিনামূল্যের পাঠ্যবইয়ে ১৬ স্তরে দুর্নীতি-টিআইবির গবেষণা প্রতিবেদন প্রকাশ-দৈনিক ইত্তেফাক
  • নতুন করে আরো দুই লাখ রোহিঙ্গা আসছে-দৈনিক ইত্তেফাক
  • চলছেই প্রশ্ন ফাঁস-দৈনিক ইনকিলাব
  • ‘ভূতের সরকার' চান খালেদা জিয়া: ইনু--প্রথম আলো
  • ফরহাদ মজহার দম্পতির বিরুদ্ধে মামলার আবেদন পুলিশের-দৈনিক যুগান্তর
  • গুমের অভিযোগ সাত কর্মকর্তাসহ ১৬ পুলিশ সদস্যের বিরুদ্ধে মামলা-দৈনিক যুগান্তর
  • পদত্যাগের পরের প্রশ্ন-দৈনিক মানবজমিন
  • আওয়ামী লীগের সময় শেষ : খন্দকার মোশাররফ-দৈনিক নয়া দিগন্ত
  • অবমাননাকর স্ট্যাটাস দেওয়ার অভিযোগে টিটু রায় গ্রেপ্তার-দৈনিক বাংলাদেশ প্রতিদিন

ভারতের শিরোনাম:

  • ধর্মনিরপেক্ষতা মিথ্যে ধারণা:‌ যোগী আদিত্যনাথ -দৈনিক আনন্দবাজার
  • নির্ভয়ার বাসে ছিলই না, ফাঁসির সাজা থেকে রেহাই পেতে দাবি মুকেশের-দৈনিক আজকাল
  • রাম রহিম কি জেলে নেই? জল্পনা উসকে দিল জামিনে মুক্ত বন্দি-সংবাদ প্রতিদিন

প্রিয় পাঠক/শ্রোতা! এবারে চলুন, বাছাইকৃত কয়েকটি খবরের বিস্তারিত জেনে নেয়া যাক। প্রথমেই বাংলাদেশ-

প্রধান বিচারপতির পদত্যাগপত্র গ্রহণ করেছেন রাষ্ট্রপতি-দৈনিক সমকাল

বাংলাদেশের প্রধান বিচারপতি এসকে সিনহার পদত্যাগ পত্র গ্রহণ করেছেন প্রেসিডেন্ট আবদুল হামিদ

প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার (এসকে) সিনহার পদত্যাগপত্র গ্রহণ করেছেন রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ। মঙ্গলবার রাষ্ট্রপতির প্রেসসচিব মো. জয়নাল আবেদীন গণমাধ্যমকে এ তথ্য জানান।

পদত্যাগের পরের প্রশ্ন-দৈনিক মানবজমিন

বাংলাদেশের ২২তম প্রধান বিচারপতি কে হচ্ছেন? অস্থায়ী প্রধান বিচারপতি কি নবনিযুক্ত বিচারকদের শপথ পাঠ করাতে পারেন?  বিদায়ী প্রধান বিচারপতি এস কে সিনহা সংবিধানের কোন অনুচ্ছেদের আওতায় পদত্যাগ করেছেন, সেটাও একটা প্রশ্ন। এর উত্তর কখন মিলবে, সে বিষয়ে কেউ এখনো নির্দিষ্ট দিনক্ষণ উল্লেখ করেননি। পর্যবেক্ষকরা বলছেন, বিদায়ী প্রধান বিচারপতির ছুটি নেয়া এবং পরে বিদেশে চলে যাওয়ার ঘটনায় পরবর্তী প্রধান বিচারপতি সম্পর্কে হোমওয়ার্ক করে রাখাটাই স্বাভাবিক প্রত্যাশা ছিল। যেকোনো বিচারে দেশের পরবর্তী প্রধান বিচারপতির বিষয়ে সিদ্ধান্ত চূড়ান্ত হওয়ার কথা ছিল। প্রধান বিচারপতি নিয়োগে কোনো  নীতিমালা নেই। এমনকি প্রধানমন্ত্রী ব্যতীত এই একটি মাত্র নিয়োগ যেখানে সংবিধানের ৪৮(৩) অনুচ্ছেদ অনুযায়ী প্রধানমন্ত্রীর পরামর্শ নিতে হবে না। উল্লেখ্য যে, সরকারি প্রজ্ঞাপন অনুযায়ী ১০ই নভেম্বর ২০১৭ প্রধান বিচারপতির ছুটি শেষ হওয়া এবং তাঁর স্বীয় পদে কার্যভার গ্রহণ না করা পর্যন্ত মেয়াদে বিচারপতি মো. আবদুল ওয়াহ্‌হাব মিঞাকে রাষ্ট্রপতি সংবিধানের ৯৭ অনুচ্ছেদ অনুযায়ী দায়িত্ব পালন করতে বলেন।

ইতিমধ্যে ১০ই নভেম্বর পার হয়ে গেছে। এবং প্রধান বিচারপতিও পদত্যাগ করেছেন। এই অবস্থায় কখন দেশের ২২তম প্রধান বিচারপতি নিয়োগ পাবেন, সেদিকে সবারই নজর আছে।

বিনামূল্যের পাঠ্যবইয়ে ১৬ স্তরে দুর্নীতি-টিআইবির গবেষণা প্রতিবেদন প্রকাশ-দৈনিক ইত্তেফাক

বিনামূল্যের পাঠ্যবইয়ে বিভিন্ন স্তরে দুর্নীতি

প্রাথমিক থেকে মাধ্যমিক স্তরের পাঠ্যবইয়ের পান্ডুলিপি প্রণয়ন ও পাঠ্যপুস্তক প্রকাশনা ও সরবরাহের ২০টি ধাপের মধ্যে ১৬টি ধাপেই অনিয়ম-দুর্নীতি হচ্ছে। ট্রান্সপারেন্সি ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশ (টিআইবি) পরিচালিত ‘জাতীয় শিক্ষাক্রম ও পাঠ্যপুস্তক বোর্ড (এনসিটিবি): পান্ডুলিপি প্রণয়ন ও প্রকাশনা ব্যবস্থায় সুশাসনের চ্যালেঞ্জ ও উত্তরণের উপায়’ শীর্ষক গবেষণায় এমন তথ্য উঠে এসেছে। গতকাল টিআইবি’র ধানমন্ডিস্থ কার্যালয়ে এ সংবাদ সম্মেলনে এ প্রতিবেদন প্রকাশ করা হয়।

গবেষণায় বলা হয়, আইনগতভাবে স্বায়ত্তশাসিত হলেও এনসিটিবি’র কার্যক্রমে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের প্রভাব ও নিয়ন্ত্রণ রয়েছে। লেখক কমিটি, শিক্ষাক্রম উন্নয়ন কমিটি ও টেকনিক্যাল কমিটিসহ বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ কমিটির সদস্য নিয়োগে রাজনৈতিক প্রভাব কাজ করে। এনসিটিবি’র কর্মকর্তা-কর্মচারীদের যথাযথ জবাবদিহিতা নিশ্চিত করতে না পারায় তারা বিভিন্ন অনিয়ম ও দুর্নীতিতে জড়িয়ে পড়ছে।

নতুন করে আরো দুই লাখ রোহিঙ্গা আসছে- ইন্টারন্যাশনাল রেসকিউ কমিটির জরিপ-দৈনিক ইত্তেফাক

নতুন করে রোহিঙ্গা আসছে

নতুন করে আরো দুই লাখ রোহিঙ্গা মিয়ানমার সীমান্ত পাড়ি দিয়ে বাংলাদেশে আসছে। এমন তথ্য জানিয়েছে নিউইয়র্কভিত্তিক আন্তর্জাতিক ত্রাণ ও মানবিক সাহায্য প্রদানকারী প্রতিষ্ঠান ইন্টারন্যাশাল রেসকিউ কমিটি (আইআরসি)। সংস্থাটির মতে, বাংলাদেশে এখন ৮ লাখের বেশি রোহিঙ্গা রয়েছে। নতুন করে আগামী কয়েক সপ্তাহে আরও দুই লাখ রোহিঙ্গা আগমণের ফলে মোট রোহিঙ্গা সংখ্যা ১০লাখ ছাড়িয়ে যাবে। তাদের মতে, রোহিঙ্গা আশ্রিত কক্সবাজার এলাকার মানবিক সংকট এখন কল্পনাতীত পর্যায়ে পৌঁছে গেছে।

আওয়ামী লীগের সময় শেষ : খন্দকার মোশাররফ-দৈনিক নয়া দিগন্ত

ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন

আওয়ামী লীগের সময় শেষ হয়ে গেছে বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন।

আজ দুপুরে জাতীয় প্রেসক্লাবে কৃষক দল আয়োজিত এক আলোচনা সভায় তিনি এ মন্তব্য করেন। ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন বলেন, জাতীয় বিপ্লব ও সংহতি দিবস উপলক্ষে সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে বিএনপি আয়োজিত সমাবেশ থেকে জনগণ সরকার ও আওয়ামী লীগকে বার্তা দিয়েছে যে, সরকার আর বেশি দিন ক্ষমতায় থাকতে পারবে না, তাদের দিন শেষ। সুতরাং আওয়ামী লীগের সময় শেষ হয়ে গেছে। ২০১৪ সাল থেকে তারা (আওয়ামী লীগ) গায়ের জোরে ক্ষমতায় রয়েছে, জনগণ সেটা এবার আর হতে দেবে না।

‘ভূতের সরকার’ চান খালেদা জিয়া: ইনু-দৈনিক প্রথম আলোর অনলাইন সংস্করণের শিরোনাম

তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু

তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু বলেছেন, শেখ হাসিনা ও সংবিধানের অধীনে নির্বাচন না করার ঘোষণার মধ্য দিয়ে বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া ‘ভূতের সরকারের অধীনে নির্বাচন করার কথা বলেছেন।

আজ সচিবালয়ে এক ব্রিফিংয়ে ঢাকার সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে খালেদা জিয়ার দেওয়া বক্তব্যের সমালোচনা করে ইনু অভিযোগ করেন, ‘কার্যত তিনি (খালেদা জিয়া) ভূতের সরকার বা অস্বাভাবিক সরকার প্রতিষ্ঠার ষড়যন্ত্র ও চক্রান্তের পাঁয়তারা করলেন।’

গত রোববার ঢাকার সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে বিএনপির সমাবেশে দলের চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার দেওয়া বক্তব্যের প্রতিক্রিয়া জানাতে এই সংবাদ ব্রিফিংয়ের আয়োজন করা হয়।

দু দলের অবস্থান নিয়ে বিশিষ্টজনদের মত-সংলাপেই সংকটের সমাধান-দৈনিক যুগান্তর

বিশিষ্টজন

নির্বাচনকালীন সরকার নিয়ে বড় দু’দলের বিপরীতমুখী অবস্থান আরও স্পষ্ট হচ্ছে। ১২ নভেম্বর সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে জনসভায় খালেদা জিয়ার বক্তব্য থেকে বিএনপির অবস্থান স্পষ্ট হয়ে গেছে। সাংবিধানিক কারণেই ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের অবস্থানও আগে থেকেই পরিষ্কার। বড় দুটি দলই অনড় এ ইস্যুতে। সংকট এখানেই। এ পরিস্থিতিতে দেশের স্বার্থেই বিপরীতমুখী অবস্থান থেকে দু’দলকে সরে আসতে হবে বলে মনে করেন বিশিষ্টজনরা।

সোমবার যুগান্তরের সঙ্গে আলাপকালে তারা বলেন, গ্রহণযোগ্য নির্বাচনের জন্য দু’দলের নেতাদের আলোচনার টেবিলে বসতে হবে। সেখানেই দরকষাকষি হবে। চূড়ান্ত হবে ফর্মুলা। এসবের মধ্য দিয়ে সবার অংশগ্রহণে অবাধ নিরপেক্ষ ও সুষ্ঠু নির্বাচনের পথ বের হয়ে আসবে বলে তারা বিশ্বাস করেন। সংঘাতময় পরিস্থিতিতে না গিয়ে সংলাপের মাধ্যমেই সমস্যার সমাধান করতে হবে।

মাথাপিছু আয় ১৬১০ ডলার, প্রবৃদ্ধি ৭.২৮ শতাংশ-দৈনিক নয়া দিগন্ত

বাংলাদেশের মানুষের মাথাপিছু আয় ১৬০৪ ডলার

বাংলাদেশে মাথাপিছু আয় বেড়েছে। এই আয় এখন ১ হাজার ৬১০ ডলার। এটা আগে ছিল ১ হাজার ৬০৪ ডলার। আর গত অর্থবছরের চূড়ান্ত জিডিপি প্রবৃদ্ধি হলো ৭ দশমিক ২৮ শতাংশ বলে পরিকল্পনামন্ত্রী।

আজ শেরেবাংলা নগরস্থ ইআরডি সম্মেলনকক্ষে এক ব্রিফিংয়ে এ কথা জানান আ হ ম মুস্তফা কামাল। পরিসংখ্যান ব্যুরোর এই তথ্য তিনি জানান। তিনি বলেন ২০১৬-১৭ অর্থবছরে প্রবৃদ্ধির হার বলা হয়েছিল ৭ দশমিক ২৪ শতাংশ। এটা এখন বেড়ে হয়েছে ৭ দশমিক ২৮ শতাংশ। তিনি বলেন, জিডিপিতে বিনিয়োগের হার ছিল ২৯ দশমিক ৬৩ শতাংশ। এটা বেড়ে হয়েছে ৩০ দশমিক ৫১ শতাংশ।

ফরহাদ মজহার দম্পতির বিরুদ্ধে মামলার আবেদন পুলিশের-দৈনিক যুগান্তর

ফরহাদ মজহার

আর প্রথম আলোর শিরোনাম-ফরহাদ মজহারকে অপহরণের সত্যতা পায়নি পুলিশ

কবি, প্রাবন্ধিক ও রাজনৈতিক ভাষ্যকার ফরহাদ মজহার অপহরণ মামলার অভিযোগের সত্যতা পায়নি পুলিশ। আদালতে এ মামলায় চূড়ান্ত প্রতিবেদন দিয়ে ভুক্তভোগী ফরহাদ মজহার ও মামলার বাদী তাঁর স্ত্রী ফরিদা আখতারের বিরুদ্ধে মিথ্যা তথ্য দিয়ে মামলা করার অভিযোগ আনা হয়েছে। আগামী ৭ ডিসেম্বর এই চূড়ান্ত প্রতিবেদনের ওপর শুনানির দিন ধার্য রয়েছে।

চলছেই প্রশ্ন ফাঁস-দৈনিক ইনকিলাব

প্রতিটি পাবলিক পরীক্ষাতেই প্রশ্নফাঁসের অভিযোগ উঠছে। প্রমাণও পাওয়া যাচ্ছে কোন কোনটির। পরীক্ষা শুরুর আগেই পরীক্ষার্থীদের হাতে হাতে ছড়িয়ে পড়ছে পরীক্ষার প্রশ্নপত্র। উচ্চমাধ্যমিক সার্টিফিকেট (এইচএসসি), মাধ্যমিক স্কুল সার্টিফিকেট (এসএসসি), জুনিয়র স্কুল সার্টিফিকেট (জেএসসি), প্রাথমিক শিক্ষা সমাপনী বাদ যাচ্ছে না কোনটিই। আর এতে সহযোগিতা করছেন অভিভাবক ও শিক্ষকরাই। জীবনের শুরুতেই সন্তান ও শিক্ষার্থীদের এ অনৈতিক কাজে উৎসাহিত করে প্রকৃতপক্ষে জাতি হিসেবে তাদের পঙ্গু করে দেয়া হচ্ছে বলে মন্তব্য করেছেন শিক্ষাবিদ ও সমাজ বিজ্ঞানীরা। তিনজন শিক্ষাবিদের মন্তব্য এরকম- পরীক্ষার আগেই হাতে হাতে প্রশ্ন

জাতিকে পঙ্গু করে দেয়া হচ্ছে -এ বি এম ওবায়দুল ইসলাম : প্রশ্ন ফাঁস সংস্কৃতি হয়ে গেছে -সৈয়দ আনোয়ার হোসেন : পড়াশোনার প্রতি আগ্রহ হারাবে ছাত্ররা -এমাজউদ্দীন আহমদ

অবমাননাকর স্ট্যাটাস দেওয়ার অভিযোগে টিটু রায় গ্রেপ্তার-দৈনিক বাংলাদেশ প্রতিদিন

ফেসবুকে ধর্মীয় অবমাননাকর স্ট্যাটাস দেওয়ার অভিযোগে টিটু রায় গ্রেপ্তার

সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে ধর্মীয় অবমাননাকর স্ট্যাটাস দেওয়ার অভিযোগে টিটু রায়কে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। নীলফামারীর জলঢাকা উপজেলা থেকে গতকাল সোমবার রাতে তাঁকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল।

আজ গঙ্গাচড়া উপজেলার খলেয়া ইউনিয়নের ঠাকুরপাড়া এলাকার হরকলি মাদ্রাসা মাঠে রংপুর জেলা পুলিশ আয়োজিত ‘সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি সমাবেশে’র আগে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল সাংবাদিকদের এ কথা বলেন।

গঙ্গাচড়া উপজেলার হরকলি ঠাকুরপাড়া এলাকার গ্রামের মৃত খগেন রায়ের ছেলে টিটু রায় ৫ নভেম্বর ফেসবুকে ‘ধর্মীয় অবমাননাকর’ স্ট্যাটাস দেন বলে অভিযোগ রয়েছে। এ ঘটনাকে কেন্দ্র করে হিন্দু সম্প্রদায়ের আটটি বাড়ি পুড়িয়ে দেয় বিক্ষোভকারীরা। এরপর পুলিশের সঙ্গে বিক্ষোভকারীদের সংঘর্ষ হয়। এতে গুলিবিদ্ধ হয়ে একজন নিহত হন এবং আহত হন সাত পুলিশ সদস্যসহ ২৫ জন।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল সাংবাদিকদের বলেন, বাংলাদেশ সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির দেশ। এখানে কেউ সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি বিনষ্ট করলে মেনে নেওয়া হবে না, কঠোরভাবে মোকাবিলা করা হবে। তিনি বলেন, রংপুরের ঘটনায় পুলিশের বিরুদ্ধে গাফিলতির কোনো অভিযোগ পাওয়া যায়নি। পাওয়া গেলে অবশ্যই ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

গুমের অভিযোগ-সাত কর্মকর্তাসহ ১৬ পুলিশ সদস্যের বিরুদ্ধে মামলা-দৈনিক যুগান্তর

যশোরে গুমের অভিযোগে কোতয়ালি থানার সাত কর্মকর্তাসহ ১৬ পুলিশ সদস্যের বিরুদ্ধে আদালতে মামলা হয়েছে।

মঙ্গলবার যশোরের সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট শাহিনুর রহমানের আদালত অভিযোগ আমলে নিয়ে পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশনকে (পিবিআই) তদন্ত প্রতিবেদন দিতে আদেশ দিয়েছেন। যশোর শহরের শংকরপুর পশুহাসপাতাল এলাকার তৌহিদুল ইসলাম ওরফে খোকনের স্ত্রী হিরা খাতুন ওই মামলা করেন।

এবারে কোলকাতার বাংলা দৈনিকগুলোর বিস্তারিত খবর

রাম রহিম কি জেলে নেই? জল্পনা উসকে দিল জামিনে মুক্ত বন্দি-দৈনিক সংবাদ প্রতিদিন

রাম রহিম

অনেক কাণ্ড-কারখানার পর রোহতকের জেলে ঢোকানো সম্ভব হয়েছে বাবা রাম রহিমকে। কিন্তু ভণ্ড বাবা কি জেলে নেই? নাকি জেলের মধ্যেও আছে বহাল তবিয়তেই? সম্প্রতি সে জল্পনা উসকে দিল জামিনে মুক্ত এক বন্দি।

রাহুল নামে ওই বন্দি রোহতকের জেলেই ছিল। সদ্য জামিনে মুক্ত পেয়ে বাইরে এসেছে। রাম রহিম সম্পর্কে বলতে গিয়ে সে জানায়, ভণ্ড বাবাকে যে রোহতকের জেলে আনা হয়েছে এ কথা শুনেছেন বন্দিরা। এর জেরে সাধারণ বন্দিদের গতিবিধিতেও অনেক রাশ টানা হয়েছে। কিন্তু তাদের কেউই রাম রহিমকে চোখে দেখেননি, ধর্ষণের দায়ে সশ্রম কারাদণ্ড হয়েছে বাবার। জরিমানা অনাদায়ে তার মেয়াদ আরও বাড়বে। কিন্তু রাহুলের কথায় তা নিয়েও ধন্দ দেখা দিয়েছে। রাহুল জানাচ্ছেন, তাঁরা কোনওদিন রাম রহিমকে কোনও কাজ করতে দেখেননি। জেলের নৈমিত্তিক কাজও সে করে বলে মনে হয় না। স্বাভাবিকভাবেই রাহুলের এ প্রশ্ন নানা জল্পনা উসকে দিয়েছে। প্রশ্ন উঠছে, তাহলে কি রাম রহিম জেলে নেই?

নির্ভয়ার বাসে ছিলই না, ফাঁসির সাজা থেকে রেহাই পেতে দাবি মুকেশের-দৈনিক আনন্দবাজার

মুকেশ

ঘটনার সময় সে ওই বাসেই ছিল না। পুলিশ তার উপরে নির্যাতন চালিয়ে তাকে দোষ স্বীকার করতে বাধ্য করেছে। নির্ভয়া গণধর্ষণ কাণ্ডের অন্যতম অপরাধী মুকেশ সিংহ ফাঁসির সাজা থেকে রেহাই পেতে এমনই দাবি করল সুপ্রিম কোর্টে।

গত ৫ মে সুপ্রিম কোর্ট নির্ভয়া কাণ্ডের চার অভিযুক্ত— মুকেশ, অক্ষয় কুমার, পবন গুপ্ত ও বিনয় শর্মাকে ফাঁসার সাজা শুনিয়েছিল। বহাল রেখেছিল দিল্লি হাইকোর্টের রায়। ফাঁসির সাজা থেকে রেহাই পেতে সুপ্রিম কোর্টের রায়ের পুনর্বিবেচনা চেয়ে ‘রিভিউ পিটিশন’ জমা করেছে মুকেশ। বাকি তিন জনও পুনর্বিবেচনার আর্জি জানাতে চলেছে। সবগুলি আর্জি একসঙ্গে ১২ ডিসেম্বর শুনানি হবে বলে প্রধান বিচারপতি দীপক মিশ্র নির্দেশ দিয়েছেন।

ধর্মনিরপেক্ষতা মিথ্যে ধারণা:‌ যোগী আদিত্যনাথ-দৈনিক আনন্দবাজার

ধর্মনিরপেক্ষ শব্দটাই সবচেয়ে বড় মিথ্যে। স্বাধীনতার পর থেকে এই মিথ্যেই চলে আসছে বলে মন্তব্য করলেন উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ। সোমবার একটি সংবাদপত্র আয়োজিত অনুষ্ঠানে অকপটে আদিত্যনাথ জানালেন, ইতিহাস বিকৃতি দেশদ্রোহের থেকে কম অপরাধ নয়। তবে পাকিস্তানকে যেভাবে ‘‌পাকি’‌ বলা হয় তারও সমালোচনা করেছেন যোগী। তাঁর কথায়, ইউরোপ যেভাবে এই শব্দ ব্যবহার করে তা সবচেয়ে বড় অপমানের। 

তবে আদিত্যনাথ এদিন সবচেয়ে বেশি সরব হয়েছেন ধর্মনিরপেক্ষতা নিয়েই। কট্টর হিন্দুত্ববাদী বলে পরিচিতি জুটেছে তাঁর। এই প্রেক্ষিতে কোনও সাফাই–এর পথেই গেলেন না তিনি। পরিষ্কার করে জানালেন, কোনও ব্যবস্থাই ধর্মনিরপেক্ষ হতে পারে না।#

পার্সটুডে/গাজী আবদুর রশীদ/১৪

 

২০১৭-১১-১৪ ১৬:৩৫ বাংলাদেশ সময়
মন্তব্য