সুপ্রিয় পাঠক/শ্রোতা! ৬ ডিসেম্বর বুধবারের কথাবার্তার আসরে স্বাগত জানাচ্ছি আমি গাজী আবদুর রশীদ। আশা করছি আপনারা প্রত্যেকে ভালো আছেন। শুরুতেই ঢাকা ও কোলকাতার গুরুত্বপূর্ণ বাংলা দৈনিকগুলোর বিশেষ বিশেষ খবরের শিরোনাম।

বাংলাদেশের শিরোনাম:

  • বেসরকারি ব্যক্তি ও সরকারের সমন্বয়ের মাধ্যমে এসডিজি বাস্তবায়ন করতে হবে- দৈনিক মানবজমিন
  • বিএনপি সহিংসতার দিকে যাচ্ছে: ওবায়দুল কাদের-প্রথম আলো
  • বিনিয়োগের জন্য চমৎকার স্থান এখন বাংলাদেশ: বাণিজ্যমন্ত্রী-দৈনিক ইত্তেফাক
  • প্রযুক্তির বিকাশে নতুন বিপ্লবের সুযোগ তৈরি হয়েছে-দৈনিক যুগান্তর
  • মৎস্য ও পোল্ট্রি খাদ্যের দাম ৫০ শতাংশ কমানো সম্ভব-দৈনিক নয়া দিগন্ত
  •  মাদকাসক্ত লাখ লাখ শিশু-কিশোর-দৈনিক ইনকিলাব

ভারতের শিরোনাম:

  • বিল পাশের পরেই মধ্যপ্রদেশে নাবালিকা ধর্ষণ!-আনন্দবাজার
  • শিক্ষাব্যবস্থা কলঙ্কিত করা হলে সরকার চুপ থাকবে না:‌ পার্থ-দৈনিক আজকাল
  • অভাবের তাড়নায় ৮ মাসের শিশুকন্যাকে ২০০ টাকায় বিক্রি করল বাবা-দৈনিক সংবাদ প্রতিদিন

প্রিয় পাঠক/শ্রোতা! এবারে চলুন, বাছাইকৃত কয়েকটি খবরের বিস্তারিত জেনে নেয়া যাক। প্রথমেই বাংলাদেশ-

প্রযুক্তির বিকাশে নতুন বিপ্লবের সুযোগ তৈরি হয়েছে-দৈনিক যুগান্তর

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, তথ্যপ্রযুক্তির বিকাশের ফলে আমাদের সামনে এক নতুন বিপ্লবের সুযোগ তৈরি হয়েছে। এই বিপ্লবের প্রধান রসদ হল তরুণ-তরুণী, যা আমাদের আছে।   বুধবার রাজধানীর বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে ‘ডিজিটাল ওয়ার্ল্ড-২০১৭’-এর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন।  অনুষ্ঠানে কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তার রোবট সোফিয়ার সঙ্গে কথা বলেন প্রধানমন্ত্রী। বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে চার দিনের এ প্রদর্শনীতে প্রধান আকর্ষণ কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তার রোবট সোফিয়া।

প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে দেখা করে অনেক খুশি সোফিয়া-দৈনিক ইনকিলাব

প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে কথা বলেছে তথ্য প্রযুক্তির বিস্ময়কর আবিষ্কার মানবিক গুণসম্পন্ন কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তার রোবট সোফিয়া। সেখানে সোফিয়া জানান, প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে দেখা করে তিনি অনেক খুশি।

আজ দুপুর ১২টায় দেশের তথ্য প্রযুক্তির সবচেয়ে বড় মেলা ডিজিটাল ওয়ার্ল্ডের উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। আর ডিজিটাল ওয়ার্ল্ডে অংশ নিতে অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিল রোবট সোফিয়া।

সোফিয়ার সঙ্গে ঢাকায় এসেছেন এই রোবটের ডিজাইনার ডেভিড হ্যানসন। তিনি সোফিয়াকে নিয়ে একটি কারিগরি অধিবেশনে বক্তৃতা দেবেন। সেখানে তিনি সোফিয়ার কারিগরি দিক ও কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা নিয়ে কথা বলবেন। আজই সোফিয়া ঢাকা ত্যাগ করবে।

বিনিয়োগের জন্য চমৎকার স্থান এখন বাংলাদেশ: বাণিজ্যমন্ত্রী-দৈনিক ইত্তেফাক

বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ আজ  বলেছেন, সৌদি ব্যবসায়ীরা বাংলাদেশে বিনিয়োগ করলে লাভবান হবেন। বিশ্বের মধ্যে বাংলাদেশ এখন বিনিয়োগের জন্য চমৎকার স্থান। এখানে অতি অল্প খরচে বিশ্বমানের পণ্য উৎপাদন করা সম্ভব।

তোফায়েল আহমেদ বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উদ্যোগে দেশে বিনিয়োগের সুযোগ সৃষ্টির জন্য সুবিধাজনক বিভিন্ন স্থানে ১০০টি স্পেশাল ইকোনমিক জোন গড়ে তোলার কাজ দ্রুত এগিয়ে চলছে। দেশি-বিদেশি বিনিয়োগকারীদের জন্য বিশেষ সুযোগ-সুবিধা প্রদান করা হচ্ছে। সৌদি বিনিয়োগকারীরা একটি স্পেশাল ইকোনমিক জোনে বিনিয়োগ করতে পারেন।

বিএনপি সহিংসতার দিকে যাচ্ছে: ওবায়দুল কাদের-প্রথম আলো

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, বিএনপি সহিংসতার দিকে যাচ্ছে। কারণ, তারা আন্দোলন করতে পারছে না। মন্ত্রী বলেন, গতকাল মঙ্গলবার কয়েক ডজন গাড়ি ভাঙচুর করেছে। সাধারণ মানুষ হয়রানির শিকার হয়েছেন। বিএনপি পুলিশকে দোষ দিচ্ছে। কিন্তু পুলিশকে উসকানি দিয়েছে। আজ দুপুরে সচিবালয়ে মন্ত্রণালয়ের সম্মেলন কক্ষে এক সংবাদ ব্রিফিংয়ে ওবায়দুল কাদের এসব কথা বলেন।

আদালত থেকে হাজিরা দিয়ে ফেরার পথে গতকাল দুপুরে খালেদা জিয়ার গাড়িবহরের পেছনে থাকা বিএনপির নেতা-কর্মীদের সঙ্গে পুলিশের সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে।

এই পরিস্থিতিতে সরকার কী করবে—সাংবাদিকদের এমন প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী বলেন, পরিস্থিতি যে রকম রূপ নেবে, সরকার সে রকম ব্যবস্থা নেবে। যেমন কুকুর তেমন মুগুরের ব্যবস্থা নেওয়া হবে। অর্থাৎ, পরিস্থিতি যেমন দৃশ্যমান হবে, তেমন ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

আ.লীগ এখন সন্ত্রাসের ল্যাবরেটরি: রিজভী-দৈনিক প্রথম আলো

বিএনপি বলেছে, ভোটারবিহীন আওয়ামী লীগ সরকারের স্বভাবের কোনো পরিবর্তন হয়নি। আওয়ামী লীগ এখন সন্ত্রাসের ল্যাবরেটরিতে পরিণত হয়েছে। এরা অবাধ, সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণ নির্বাচন ঠেকানোর জন্য পুলিশি রাজত্ব টিকিয়ে রাখবে।

আজ মঙ্গলবার আদালত থেকে বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার ফেরার সময় রাজধানীর বকশীবাজার ও হাইকোর্টের সামনে নেতা-কর্মীদের ওপর পুলিশের আক্রমণের অভিযোগ করে সন্ধ্যায় গুলশানের কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে দলের জ্যেষ্ঠ যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী এ কথা বলেন।

‘বেসরকারি ব্যক্তি ও সরকারের সমন্বয়ের মাধ্যমে এসডিজি বাস্তবায়ন করতে হবে’- দৈনিক মানবজমিন

বেসরকারি ব্যক্তি ও সরকারের সমন্বয়ে এসডিজি বাস্তবায়ন করতে হবে। মানুষের মর্যাদা নিশ্চিত করতে হবে। সুশাসন নিষ্চিত করতে হবে। আজ বুধবার বাংলাদেশ কৃষিবিদ ইনস্টিটিউট মিলনায়তনে নাগরিক প্লাটফরম বাংলাদেশের উদ্যোগে আয়োজিত ‘নাগরিক সম্মেলন ‘১৭, বাংলাদেশে এসডিজি বাস্তবায়ন’ শীর্ষক দিনব্যাপী আলোচনা সভার প্রারম্ভিক অধিবেশনে এসব কথা বলেন বক্তারা।প্রারম্ভিক অধিবেশনে সেন্টার ফর পলিসি ডায়ালগের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ড. রেহমান সোবহান বলেন, সরকারি ও বেসরকারী  সবাইকে সমন্বয়ের মাধ্যমে কাজ করে এগিয়ে যেতে হবে। নজরদারি থাকতে হবে।অধ্যাপক ড. আনিসুজ্জামান বলেন, এসডিজি অর্জনে সুশসন প্রতিষ্ঠা করতে হবে। বেসরকারি ব্যক্তি ও সরকার  হাতে হাত রেখে এগিয়ে যেতে হবে। মানুষের মর্যাদা যাতে হয় তা নিশ্চিত করতে হবে। তিনি বলেছেন, আমাদের সাফল্য যেমন আছে তেমনি ব্যর্থতাও কম নয়। অবস্থানের বড় পরিবর্তন হওয়া দরকার বলে তিনি মনে করেন। 

সভাপতির বক্তব্যে দেবপ্রিয় ভট্টচার্য বলেন, বাংলাদেশের বড় ধরনের পরিবর্তনের জন্য নাগরিক সমাজ গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করতে পারে। তিনি বলেছেন, গত ৫ বছরে অবিশ্বাস্য ভাবে বৈষ্যম তৈরী হয়েছে। এতে অসেন্তোষ তৈরী করবে।

মৎস্য ও পোল্ট্রি খাদ্যের দাম ৫০ শতাংশ কমানো সম্ভব-দৈনিক নয়া দিগন্ত

মাছসহ মানুষ ও অন্যান্য জীবের জন্য খাদ্য হিসাবে স্পিরুলিনা বাণিজ্যিকভাবে চাষ করার পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে ময়মনসিংহে অবস্থিত বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের (বাকৃবি) মাৎস্যবিজ্ঞান অনুষদের একোয়াকালচার বিভাগ।

মাদকাসক্ত লাখ লাখ শিশু-কিশোর-দৈনিক ইনকিলাব

মাদকের চোরাচালান, বাজারজাত ও সামগ্রিক বিপণন প্রক্রিয়ার সাথে জড়িয়ে পড়ছে কোমলমতি শিশু-কিশোররাও। পথশিশুদের কাছে মাদক হিসেবে আকর্ষণীয় মরণঘাতী নেশা ড্যান্ডি

দেশের যুবসমাজ থেকে শুরু করে নারী-শিশুরাও আজ মাদকের ধ্বংসের দ্বারপ্রান্তে। এই ধ্বংসাত্মক লীলা থেকে বাদ নেই কেউ। ভয়াল নেশায় জড়িয়ে পড়ছে শিশু-কিশোররা। মধ্যবিত্ত-উচ্চবিত্ত পরিবারের সন্তানসহ বাদ নেই কোনো শ্রেণীই। তবে নেশাসক্ত শিশু-কিশোরদের মধ্যে পথশিশুদের সংখ্যাই বেশি। যাদের অধিকাংশের বাস আবার ফুটপাথ আর বস্তিতে। বলা হয়ে থাকে, আজকের শিশু আগামী দিনের কর্ণধার। অথচ আগামী দিনের কর্ণধারদের এভাবে সমূলে ধ্বংস করে দিচ্ছে ভয়াবহ মাদক। মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের পরিসংখ্যান অনুযায়ী, দেশে মাদকাসক্তের সংখ্যা ৭০ লাখ। তার মধ্যে শিশু ও কিশোর মাদকাসক্ত রয়েছে ৪ লাখের অধিক। তবে বিভিন্ন বেসরকারি সংস্থার হিসাব মতে, এই সংখ্যা আরো বেশি। মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তর সূত্রে জানা গেছে, শিশু ও কিশোররা প্রথমে সিগারেট দিয়ে নেশার জগতে প্রবেশ করে। এরপর তারা আস্তে আস্তে ফেনসিডিল ও ইয়াবাসহ বিভিন্ন মাদকে আসক্ত হয়। তবে পথশিশু বা বস্তির শিশুদের মধ্যে ড্যান্ডি নামক মাদকে আসক্ত।

এবার কোলকাতার কিছু খবরের বিস্তারিত

জি ডি বিড়লার ঘটনায় যখন গোটা রাজ্য উত্তাল, তখনই সামনে আসছে একের পর এক শিশুর উপর যৌন নির্যাতনের খবর। হুগলির পর এবার সোনারপুর। ফের যৌন নির্যাতনের শিকার এক পাঁচ বছরের শিশুকন্যা। এ খবরটি দৈনিক সংবাদ প্রতিদিনের।

আর আনন্দবাজারের শিরোনাম-বিল পাশের পরেই মধ্যপ্রদেশে নাবালিকা ধর্ষণ!

শিশু ধর্ষকদের বিরুদ্ধে ফাঁসির মতো নজিরবিহীন পদক্ষেপ করার কয়েক ঘণ্টাও কাটেনি। সেই অভিযোগেই ফের শিরোনামে মধ্যপ্রদেশ। ইনদওরে এক আট বছরের নাবালিকাকে ধর্ষণের অভিযোগ উঠল তারই প্রতিবেশী এক যুবকের বিরুদ্ধে।

ফের যৌন–নির্যাতনের শিকার হলো ৫ বছরের শিশু। কার্টুন দেখার নাম করে ঘরে ডেকে নিয়ে গিয়ে যৌন–নির্যাতন করে বলে অভিযোগ। গ্রেপ্তার করা হয়েছে অভিযুক্ত প্রতিবেশীকে। ঘটনাটি ঘটেছে দক্ষিণ ২৪ পরগনার বিদ্যাধরপুরের মাদসার এলাকায়। মানুষের 

অভাবের তাড়নায় ৮ মাসের শিশুকন্যাকে ২০০ টাকায় বিক্রি করল বাবা-দৈনিক সংবাদ প্রতিদিন

নুন আনার প্রশ্নই নেই। ফুরিয়ে যাওয়ার মতো পান্তাও নেই ঘরে। এক মুঠো ভাত জোগাড় করাও দুঃসহ। কোনওমতে তা জোগাড়ের জন্য আট মাসের কন্যা সন্তানকে বিক্রি করে দিলেন বাবা। তাও মাত্র ২০০ টাকার বিনিময়ে! জলের দরে! মর্মান্তিক ঘটনাটি ঘটেছে ত্রিপুরার তেলিয়ামুড়ার মহারানিপুরে। ত্রিপুরায় সর্বহারাদের পাশে থাকার প্রতিশ্রুতি দিয়ে দীর্ঘ সময় ধরে ক্ষমতাসীন বাম সরকার। সেখানেই বিপিএল কার্ড চেয়েও তা না পাওয়া এক বাবার মেয়ে-বিক্রির ঘটনায় তোলপাড় দেশ। নিন্দার ঝড় উঠেছে মানিক সরকারের প্রশাসনের বিরুদ্ধে।

ঘরে এক কণা খাবার না থাকায় একপ্রকার বাধ্য হয়েই সদ্যোজাত কন্যাকে বিক্রি করেন হতদরিদ্র কর্ণা দেববর্মা। অসহায় কর্ণার অভিযোগ, রাজ্য সরকারের কাছে একাধিকবার বিপিএল কার্ডের আবেদন জানানো হয় তাঁদের পরিবারের তরফে। তবে ঘুরেও তাকায়নি প্রশাসন। যদিও এই দাবি নস্যাৎ করে দিয়েছে ত্রিপুরা সরকার।

শিক্ষাব্যবস্থা কলঙ্কিত করা হলে সরকার চুপ থাকবে না:‌ পার্থ-দৈনিক আজকাল

দু–চারজনের জন্য রাজ্যের শিক্ষাব্যবস্থা কলঙ্কিত হবে, সেটা সরকার চুপ করে বসে দেখবে না। মঙ্গলবার সাফ জানিয়ে দিলেন রাজ্যের শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চ্যাটার্জি। তাঁর প্রশ্ন, জি ডি বিড়লা স্কুল যে বোর্ডের অন্তর্ভুক্ত তারা কিছু করছে না কেন? তিনি জানিয়ে দিয়েছেন, বেসরকারি স্কুলে পরিকাঠামো দেখার অধিকার রয়েছে রাজ্য সরকারের। তবে রাজ্য অকারণে অধিকার ফলায় না। তাঁর মতে, বেসরকারি স্কুলে পড়াশোনার খরচ প্রচুর বলে অভিভাবকদের চাহিদাও বেশি। এদিন সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে পার্থবাবু বলেছেন, অভিযোগ প্রমাণ হলে তাদের কঠোর শাস্তি দাবি করছি।#

পার্সটুডে/গাজী আবদুর রশীদ/৬

২০১৭-১২-০৬ ১৮:১১ বাংলাদেশ সময়
মন্তব্য