সুপ্রিয় পাঠক/শ্রোতা! ৭ ডিসেম্বর বৃহষ্পতিবারের কথাবার্তার আসরে স্বাগত জানাচ্ছি আমি গাজী আবদুর রশীদ। আশা করছি আপনারা প্রত্যেকে ভালো আছেন। শুরুতেই ঢাকা ও কোলকাতার গুরুত্বপূর্ণ বাংলা দৈনিকগুলোর বিশেষ বিশেষ খবরের শিরোনাম।

বাংলাদেশের শিরোনাম:

  • ছাত্রীদের ওপর ছাত্রলীগের ‘হামলা’রাজশাহী আইএইচটির ছাত্রলীগের ৪ নেতা বহিষ্কার-প্রথম আলো
  • রসিক নির্বাচন-সেনা মোতায়েনের প্রয়োজনবোধ করছেন না সিইসি- দৈনিক মানবজমিন
  • রসিক নির্বাচনে সেনা মোতায়েনের দাবি বিএনপির-দৈনিক যুগান্তর
  • ব্যাংকিং খাতকে ক্ষতিগ্রস্ত করছে খেলাপি ঋণ-যুগান্তর
  • 'রংপুরে সংখ্যালঘুদের বাড়িতে হামলা পরিকল্পিত'-দৈনিক ইত্তেফাক
  • 'আগামী নির্বাচনে আওয়ামী লীগকে ভোট ভিক্ষা চাইতে হবে না'-দৈনিক ইত্তেফাক
  • অঞ্চলভিত্তিক ফসল সংরক্ষণাগার না থাকায় লোকসানে কৃষক-দৈনিক ইনকিলাব
  • ৩ মাসে রাজধানীতে ১৩ ‘নিখোঁজ : গ্রেফতার ও ফেরার তালিকায় ৭-দৈনিক নয়া দিগন্ত

ভারতের শিরোনাম:

  • নারদের টাকা ‘ভোটের চাঁদা’, মন্তব্য মমতার-আনন্দবাজার
  • মীরাটে বন্দেমাতরমের পাল্টা জাতীয় সঙ্গীত-দৈনিক আজকাল
  • জামা মসজিদ আসলে যমুনা দেবীর মন্দির, বিজেপি নেতার দাবিতে বিতর্ক-দৈনিক সংবাদ প্রতিদিন
  • লাভ জিহাদে-ভারতে পুড়িয়ে মারা হলো মুসলিম যুবককে -দৈনিক বর্তমান

প্রিয় পাঠক/শ্রোতা! এবারে চলুন, বাছাইকৃত কয়েকটি খবরের বিস্তারিত জেনে নেয়া যাক। প্রথমেই বাংলাদেশ-

রাজশাহী ইনস্টিটিউট অব হেলথ টেকনোলজির ছাত্রীদের ওপর ছাত্রলীগের হামলা

ছাত্রীদের ওপরে হামলার ঘটনায় ছাত্রলীগের রাজশাহী ইনস্টিটিউট অব হেলথ টেকনোলজি (আইএইচটি) শাখার চার নেতাকে গতকাল বুধবার রাতেই দল থেকে বহিষ্কার করা হয়েছে। একই সঙ্গে ওই শাখার ছাত্রলীগের কমিটি বিলুপ্ত ঘোষণা করা হয়েছে।

বহিষ্কৃত চার নেতা হলেন ছাত্রলীগের আইএইচটি শাখার সভাপতি জাহিদুল ইসলাম, সাধারণ সম্পাদক আনোয়ার হোসেন, সহসভাপতি মিজানুর রহমান ও ফয়সাল আহমেদ।

রাজশাহী আইএইচটিতে ছাত্রীদের ওপরে ছাত্রলীগের মামলার ঘটনায় গতকাল অনির্দিষ্টকালের জন্য প্রতিষ্ঠান বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে। ওই দিন বেলা একটার মধ্যে ছাত্রদের এবং বেলা তিনটার মধ্যে ছাত্রীদের ছাত্রাবাস খালি করার নির্দেশ দেওয়া হয়।

রসিক নির্বাচন-সেনা মোতায়েনের প্রয়োজনবোধ করছেন না সিইসি- দৈনিক মানবজমিন

সিইসি কে এম নুরুল হুদা

আগামী ২১শে ডিসেম্বর রংপুর সিটি করপোরেশন নির্বাচন অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে। এ নিয়ে চলছে সব প্রস্তুতিও। নির্বাচন প্রার্থী ও কমিশন সবাই ব্যাপক উৎসাহ উদ্দীপনার সঙ্গে প্রস্তুত হচ্ছে নির্বাচনের জন্য। তবে এ নির্বাচনে সেনাবাহিনী মোতায়েনের কোনো প্রয়োজন নেই বলে মনে করছেন প্রধান নির্বাচন কমিশনার কে এম নূরুল হুদা। তিনি বলেছেন, নির্বাচনে সেনাবাহিনী মোতায়েনের প্রয়োজন নেই।

তবে মানবজমিনের অন্য একটি খবরের শিরোনাম এরকম যে,

‘ভোটাররা এখনো ভয়ভীতির মধ্যেই রয়েছেন,রসিকে সেনা মোতায়েনের দাবি'-রিজভী

বিএনপির জ্যেষ্ঠ যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী আহমেদ

বিএনপির জ্যেষ্ঠ যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী আহমেদ বলেছেন, নির্বাচনী মাঠে প্রচারণায় সকল প্রার্থীর সমান সুযোগ তৈরি হয়নি। ক্ষমতাসীন দলের প্রভাবে ভোটাররা এখনো ভয়ভীতির মধ্যেই রয়েছেন। অবাধ, সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ হবে কী না এ ব্যাপারে যথেষ্ট সন্দেহ রয়েছে। বিএনপির পক্ষ থেকে অবাধ, সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ নির্বাচনের পরিবেশ তৈরির জোর দাবি জানাচ্ছি। একই সঙ্গে ম্যাজিস্ট্রেসি ক্ষমতা দিয়ে সেনাবাহিনী মোতায়েনেরও জোর দাবি জানাচ্ছি।

'আগামী নির্বাচনে আওয়ামী লীগকে ভোট ভিক্ষা চাইতে হবে না'-দৈনিক ইত্তেফাক

স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রী ইঞ্জিনিয়ার খন্দকার মোশাররফ হোসেন বলেছেন, আওয়ামী লীগ সরকারের সময়ে দেশ ও জনগণের কল্যাণে যে বৈপ্লবিক উন্নয়ন সাধিত হয়েছে তা পৃথিবীতে রোল মডেল। তাই আগামী নির্বাচনে আওয়ামী লীগকে আর ভোট ভিক্ষা চাইতে হবে না। তাদের কল্যাণের কথা ভেগে জনগণ বুঝে শুনেই বঙ্গবন্ধুর দল আওয়ামী লীগকে বিপুল ভোটে বিজয়ী করবে।

তিনি বলেন, 'বিএনপির দিকে কেউ ছুটবে না। তাদের দুর্নীতি-গ্রস্ত কর্মকাণ্ড আর জামায়াতকে সাথে নিয়ে জালাও-পোড়াওয়ের যে রাজনীতি করেছে তাতে তারা আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ভোট চাওয়ায় নৈতিকতা হারিয়েছে। জনগণ তাদের আর কখনো ক্ষমতায় দেখতে চায় না।'

ব্যাংকিং খাতকে ক্ষতিগ্রস্ত করছে খেলাপি ঋণ-যুগান্তর

ব্যাংকিং খাতকে ক্ষতিগ্রস্ত করছে খেলাপি ঋণ

বাংলাদেশের অর্থনীতিতে যে চ্যালেঞ্জগুলো রয়েছে তার মধ্যে অন্যতম খেলাপি ঋণ। এই ঋণ ব্যাংকিং খাতকে ক্ষতিগ্রস্ত করছে। যেভাবে ব্যাংকিং খাত সম্প্রসারিত হয়েছে, তার অর্ধেকও সক্ষমতা বাড়েনি বাংলাদেশ ব্যাংকের। তাই খেলাপি ঋণ নিয়ন্ত্রণে উদ্যোগ নেয়ার পাশাপাশি কেন্দ্রীয় ব্যাংকের দক্ষতা ও সক্ষমতা বাড়ানো উচিত। বুধবার বাংলাদেশ উন্নয়ন গবেষণা প্রতিষ্ঠানের (বিআইডিএস) বার্ষিক গবেষণা সম্মেলনের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বক্তারা এসব কথা বলেন।

অনুষ্ঠানে বক্তারা বলেন, অর্থনীতির অন্য চ্যালেঞ্জগুলো হল- কর্মসংস্থান তৈরি, অবকাঠামো উন্নয়ন, ব্যবসার পরিবেশ উন্নত করা, বিদেশি বিনিয়োগ বৃদ্ধি, বৈষম্য দূর করা, পাইপলাইনে জমে থাকা বৈদেশিক সহায়তার কার্যকর ব্যবহার, রফতানি বহুমুখীকরণ, রাজস্ব আদায় বাড়ানো এবং বিদ্যুৎ সরবরাহ বাড়ানো ইত্যাদি। এসব চ্যালেঞ্জ মোকাবেলায় সতর্ক হতে হবে।

তিন মাসে রাজধানীতে ১৩ জন ‘নিখোঁজ : গ্রেফতার ও ফেরার তালিকায় ৭-দৈনিক নয়া দিগন্ত

 গুম 

রাজধানীতে গত তিন মাসে নিখোঁজ হয়েছেন ১৩ জন। এভাবেই একের পর এক নিখোঁজ হচ্ছেন বিভিন্ন শ্রেণী-পেশার মানুষ। এদের মধ্যে সাতজন ফিরে এলেও এক সাংবাদিকসহ এখনো ছয়জন নিখোঁজ রয়েছেন। এই সাতজনের মধ্যে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা কয়েকজনকে গ্রেফতার দেখিয়েছে। এই নিখোঁজের তালিকায় সর্বশেষ যুক্ত হয়েছেন ভিয়েতনামের সাবেক রাষ্ট্রদূত মারুফ জামান (৭০)। এসব নিখোঁজের ঘটনায় থানায় সাধারণ ডায়েরি বা মামলা দায়েরের পরও তাদের কোনো হদিস মিলছে না।

সর্বশেষ গত সোমবার রাজধানীর ধানমন্ডি এলাকা থেকে নিখোঁজ হয়েছেন সাবেক রাষ্ট্রদূত মারুফ জামান। এ ঘটনায় তার মেয়ে সামিহা জামান বাদি হয়ে গত মঙ্গলবার সকালে ধানমন্ডি থানায় একটি জিডি (জিডি নম্বর-২১৩) করেছেন।

রংপুরে সংখ্যালঘুদের বাড়িতে হামলা পরিকল্পিত'-দৈনিক ইত্তেফাক

রংপুরে সংখ্যালঘুদের বাড়িতে হামলা

রংপুরে ফেসবুক স্ট্যাটাসকে কেন্দ্র করে সংখ্যালঘুদের বাড়িতে অগ্নিসংযোগ, হামলা, ভাঙচুর ও লুটপাটের ঘটনায় মন্ত্রীপরিষদ বিভাগ থেকে গঠিত তদন্ত কমিটি বলছে, 'এ ঘটনা পরিকল্পিত। আইনশৃঙ্খলা বাহিনী আগে থেকে আরো তৎপর হলে ঘটনাটি এড়ানো যেত।' তিনদিনের তদন্ত শেষে বুধবার রাতে চার সদস্যের ওই কমিটি ঢাকায় ফিরে গেছে। ঢাকায় যাওয়ার আগে রংপুর সার্কিট হাউসে সাংবাদিকদের সাথে মতবিনিময়কালে তদন্ত কমিটির প্রধান মন্ত্রীপরিষদ বিভাগের অতিরিক্ত সচিব মোসাম্মদ নাসিমা বেগম এ কথা বলেন।

এবার কোলকাতার দৈনিকগুলোর কয়েকটি খবরের বিস্তারিত

লাভ জিহাদে-ভারতে পুড়িয়ে মারা হলো মুসলিম যুবককে-দৈনিক বর্তমান

ভারতের রাজস্থানে উগ্র হিন্দুবাদীদের কথিত ‘লাভ জিহাদ’-এর শিকার হয়ে নৃশংসভাবে নিহত হলেন এক মুসলিম যুবক। তার নাম মোহাম্মদ আফরাজুল। বাড়ি পশ্চিমবঙ্গের মালদহে।

তাকে জীবন্ত পুড়িয়ে মারার ভিডিও এখন সোস্যাল নেটওয়ার্কিং সাইটগুলোতে ভাইরাল। যুবকটির ‘অপরাধ’ ভিন্নধর্মে ভালোবাসা ও বিয়ে। ভিডিওটিকে কেন্দ্র করে ভারতজুড়ে তোলপাড় শুরু হয়েছে। উঠছে নিন্দার ঝড়ও। ভিডিওটিতে দেখা যাচ্ছে, প্রথমে লাঠি দিয়ে মার, পরে ধারালো অস্ত্র দিয়ে এলোপাথাড়ি কোপ দেয়া হচ্ছে ওই যুবকে। লাল জামা, সাদা প্যান্ট, পায়ে সাদা স্নিকার- কার্যত কেতাদুরস্ত এক ব্যক্তির চরম হিংসার শিকার আফরাজুল তখন বারবার প্রাণভিক্ষা চাইছে। কিন্তু ওই ব্যক্তি কোনো কথায় কান না দিয়ে আঘাত করেই চলেছে তাকে। এরপর মাটিতে ফেলে তার গায়ে কেরোসিন ঢেলে জীবন্ত জ্বালিয়ে দেয়া হয়। মৃতপ্রায় যুবককে বাঁচাতে কেউই এগিয়ে আসেননি। 

রাজস্থানের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী গুলাবচাঁদ কাটারিয়া এ ব্যাপারে একটি বিশেষ তদন্তকারী দল গঠন করে ঘটনার তদন্তের নির্দেশ দিয়েছেন। বলেছেন, এই খুনে সাম্প্রদায়িক কারণ আছে কিনা খতিয়ে দেখতে।

জামা মসজিদ আসলে যমুনা দেবীর মন্দির, বিজেপি নেতার দাবিতে বিতর্ক-সংবাদ প্রতিদিন

জামা মসজিদ আসলে যমুনা দেবীর মন্দির, বৃহস্পতিবার এমনই দাবি করলেন বিজেপি নেতা বিনয় কাটিয়ার। এদিন তিনি বলেন, ‘মোঘল সম্রাটরা প্রায় ৬০০০ ঐতিহাসিক সৌধ ভেঙে গুঁড়িয়ে দেয়। দিল্লির জামা মসজিদ আসলে ছিল যমুনা দেবীর মন্দির, তাজমহল ছিল তেজো মহালয়া।’

তাঁর সংযোজন, মুসলিমরা দেশের বহু ঐতিহ্যশালী ইমারতকে ভেঙে ফেলেছে। কিন্তু হিন্দুরা রাম জন্মভূমি, কাশীর বাবা বিশ্বনাথের মন্দির বা মথুরায় শ্রীকৃষ্ণের জন্মভূমিকে মুসলিম শাসকদের অত্যাচার থেকে বাঁচিয়ে রাখতে সক্ষম হয়েছিল। আপাতত রাম জন্মভূমির দাবি থেকে যে বিজেপি কোনওমতেই সরে আসবে না, সেকথাও স্পষ্ট করেছেন বিজেপির এই বিতর্কিত নেতা।

মীরাটে বন্দেমাতরমের পাল্টা জাতীয় সঙ্গীত-দৈনিক আজকাল

‘বন্দে মাতরম’–এর পাল্টা ‘জনগণমন অধিনায়ক’! বিজেপি উগ্র জাতীয়তাবাদী নীতির মোকাবিলা এভাবেই করছেন মীরাটের নয়া মেয়র সুনীতা বর্মা। এর আগে বিজেপি–র দাবি ছিল পুরসভার সমস্ত বৈঠকের আগে বন্দেমাতরম গাইতেই হবে। তার প্রতিবাদ জানিয়ে বহুজন সমাজবাদী পার্টির সদস্য তথা নতুন পুরপ্রধান সুনীতা বর্মা বলেন, কোথাও এরকম কোনও সরকারি নির্দেশ নেই। আর গাইতেই যদি হয় তাহলে জাতীয় সঙ্গীত গাওয়াটাই বেশি যুক্তিযুক্ত বলে তিনি মনে করেন। যদিও এই বক্তব্যের তীব্র বিরোধিতা করা হয়েছে বিজেপির তরফ থেকে। বিষয়টি নিয়ে তারা প্রতিবাদ করবে।

নারদের টাকা ‘ভোটের চাঁদা’, মন্তব্য মমতার-আনন্দবাজার

ভোটে খরচ করার জন্য দু’এক লাখ টাকা নিয়ে নারদ-অভিযুক্তরা কোনও অন্যায় করেননি বলে বুঝিয়ে দিলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

নারদ-কাণ্ডে তৃণমূলের যে নেতা-মন্ত্রীর নাম জড়িয়েছে, তাঁরা ভোটের জন্যই ওই টাকা ‘চাঁদা’ হিসেবে নিয়েছিলেন বলে বুধবার দাবি করলেন মমতা। গাঁধী মূর্তির পাদদেশে বাবরি মসজিদ ধ্বংসের ২৫ বছর পূর্তি উপলক্ষে সংহতি দিবসের মঞ্চে তৃণমূল নেত্রী বলেন, ‘‘নির্বাচন কমিশন তো বলেছে, ২৮ লক্ষ টাকা পর্যন্ত ভোটে খরচ করা যেতে পারে। ভোটের খরচ কেউ কি আর নিজের পকেট থেকে করে? চাঁদা তুলেই করে। এক লাখ টাকা কেউ যদি জোর করে দিতে চায়, কী করবে? ওঁরা(নারদ অভিযুক্ত) তো আর চায় নি!’’#

পার্সটুডে/গাজী আবদুর রশীদ/৭
 

২০১৭-১২-০৭ ১৬:২৮ বাংলাদেশ সময়
মন্তব্য