বন্ধুরা,আপনাদের অনেক অনেক প্রীতি ও শুভেচ্ছা জানিয়ে শুরু করছি চিঠিপত্রের আজকের আসর।

শুরুতেই যথারীতি একটি হাদিস। বিশ্বনবী (সা.) বলেছেন, যেকোনো উপায়ে হোক নিজেকে পাক-পবিত্র রাখো। কারণ, আল্লাহ তায়ালা পবিত্রতার ওপর ভিত্তি করে ইসলামকে প্রতিষ্ঠিত করেছেন এবং পবিত্রতা অর্জন ছাড়া কেউ জান্নাতে প্রবেশ করতে পারবে না।

মূল্যবান হাদিসের এ বাণী আমাদের জীবনে কাজে লাগানোর প্রত্যাশা ব্যক্ত করে চিঠিপত্রের দিকে নজর দিচ্ছি।  আসরের শুরুতেই হাতে তুলে নিচ্ছি বাংলাদেশ থেকে আসা একটি ইমেইল। সিরাজগঞ্জ জেলার শাহজাদপুর উপজেলার মশিপুরের সূচনা সমাজ কল্যাণ সংঘের সভাপতি মো মিজানুর রহমান পাঠিয়েছেন ইমেইলটি। এর শুরুতেই তিনি লিখেছেন, আমার ক্লাবের পক্ষ থেকে আন্তরিক প্রীতি ও শুভেচ্ছা গ্রহণ করবেন। আপনাদের অনুষ্ঠান আমরা নিয়মিত শোনার চেষ্টা করছি। 

এ অনুষ্ঠান থেকে অনেক জ্ঞান অর্জন করতে পারছি। এরপর তিনি আরো লিখেছেন, দীর্ঘদিন যাবৎ কুইজ প্রতিযোগিতা বন্ধ রয়েছে। অতি সত্তর এটি চালু করার জন্য কর্তৃপক্ষের দৃষ্টি আকর্ষণ করছি।

বহলুল: জ্বি ভাই আপনার দাবির কথা আমরা জানতে পারলাম। এ ধরণের দাবিকে যুক্তি সংগত মনে হলেও আপাতত কিছু সমস্যার কারণে তা দ্রুত চালু করা হয়ত সম্ভব হবে না। এ ভাই আর কি লিখেছেন?

এরপর এ ভাই বর্তমান বিশ্বে সৌদি আরবের ভূমিকার  বিষয়ে কিছু কথা বলেছেন। তিনি লিখেছেন, বর্তমান সৌদি যুবরাজের ভূমিকা নিয়ে না বললেই নয়। মুসলিম বিশ্বে সৌদি যুবরাজের ভূমিকা নিয়ে সমালোচনার ঝড় বইছে। আধুনিকতার নামে সিনেমা হল চালু,ইসরাইলের পক্ষে সাফাই গাওয়া,সৌদি নারীদের গ্যালারীতে বসে ফুটবল ম্যাচ দেখতে দেয়া,সংগীত ও সিনেমা চালু করা এবং টেকিলা এলকোহল পানীয় খাওয়া,কাসিনোতে জুয়া খেলা উন্মুক্ত করে দেয়া,কাতার,সিরিয়া এবং ইরানের প্রতি বৈরী আচরণ মোটেই কাম্য নয়। তিনি আরো লিখেছেন, ইসলামী রাষ্ট্র বা সমাজ পরিবর্তনের নাম আধুনিকতা নয়। এটা নিঃশর্তভাবে পাশ্চাত্যের কাছে আত্মসমর্পণ মাত্র।

সত্যিই ভাই দারুণ পরিভাষা ব্যবহার করেছেন। পাশ্চাত্যের কাছে আত্মসর্মপণ। সৌদি আরবের তরুণ যুবরাজ সাম্প্রতিক সময়ে যেসব কাজ করেছেন বিশ্বের বেশিরভাগ মুসলমান তা পছন্দ করছেন না। বিশেষ করে মুসলিম বিশ্বের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ সংকট ফিলিস্তিনি ইস্যুতে তার ভূমিকা তীব্র বিতর্ক সৃষ্টি করেছে।  আপনি যথার্থভাবে সৌদি যুবরাজের সমালোচনা করেছেন। এখন সৌদি সরকার এসব কর্মসূচির কতগুলো বাস্তবায়ন করতে পারে সেটাই এখন দেখার বিষয়। চিঠি লেখার জন্য ভাই মিজানুর রহমান আপনাকে অনেক অনেক ধন্যবাদ।

এবারে আমরা একটি দারুণ অভিজ্ঞতার কথা শুনবো। হ্যাঁ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের নাট্যকলা বিভাগের সহকারী অধ্যাপক সুদীপ চক্রবর্তী তেহরান ঘুরে গেছেন ক'দিন আগে। ২১তম ইরান আন্তর্জাতিক নাট্যমেলায় অংশ নেয়ার জন্য সরাসরি লন্ডন থেকে তেহরানে আসেন তিনি। সে সময় রেডিও তেহরানকে সাক্ষাৎকার দেন সুদীপ চক্রবর্তী। সাক্ষাৎকার শেষে প্রিয়জনের আসরের শ্রোতা বন্ধুদের জন্য তার জীবনের একটি বিশেষ ঘটনা জানতে চাওয়া হয়। বাংলাদেশের বরেণ্য এই নাট্য-ব্যক্তিত্ব সে সময় বলেন.....

ধন্যবাদ সুদীপ চক্রবর্তী। আপনার অভিজ্ঞতা থেকে শিখতে পারলাম যে, লক্ষ্যে পৌঁছাতে হলে নিরলস প্রচেষ্টা চালাতে হবে।

বহলুল. একবার না পারিলে দেখ শতবার বলে বাংলায় একটা বহুল প্রচলিত প্রবাদ আছে। এ ছাড়া লাগিয়া থাকিলে মাগিয়া খাইতে হয় না বলেও আরেকটি কথা আছে। সব মিলিয়ে দাঁড়াল নিষ্ঠার সঙ্গে লেগে থাকতে হবেই হবে।  তা হলেই ধরা দেবে সাফল্য।

আসরের এ পর্বে রেডিও তেহরানের ফেসবুক গ্রুপে প্রকাশিত খবরে যে সব প্রাণবন্ত মতামত হয়েছে সেদিকে নজর দেবো। হ্যাঁ, সিরিয়ায় ইসরাইলি হামলার নিন্দা জানালেন এরদোগান শীর্ষক খবরটি প্রকাশিত হয়েছে ১৪ মে। এ খবরে বলা হয়েছে, তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রজব তাইয়্যেব এরদোগান সিরিয়ায় ইহুদিবাদী ইসরাইলের সাম্প্রতিক বিমান হামলার তীব্র নিন্দা জানিয়ে বলেছেন,তেল আবিব গোটা মধ্যপ্রাচ্যকে যুদ্ধের দিকে ঠেলে দিতে চায়। তিনি সিরিয়ায় ইসরাইলি হামলাকে অপ্রয়োজনীয় আগ্রাসন বলেও অভিহিত করেছেন।

ফেসবুক গ্রুপে এ খবর বেশ আলোড়ন তুলেছে। তবে সব প্রতিক্রিয়া তুলে ধরার সুযোগ পাওয়া যাবে না। বন্ধু অ্যালেস্টার নাথান কুক লিখেছেন, সকল শয়তানের মূলে এই এরদোগান। অন্যদিকে তার প্রতি সহমত ব্যক্ত করে স্কাই লাইন ইভান ছদ্মনাদের বন্ধু লিখেছেন,  হুম,তার দ্বিমুখী নীতির জন্য মধ্যপ্রাচ্যের অনেক সমস্যা তৈরি হয়েছে ।

বহলুল: হক কথারও ওপরে হক কথা। না পাঠক-শ্রোতাদেরকে ফাঁকি দেয়া এতো সহজ নয়।

এদিকে যৌথ কমিশনের বৈঠক: ইরানের সঙ্গে বাণিজ্য বাড়াবে কাতার শীর্ষক খবরটি প্রকাশিত হয়েছে ১৪ মে। এ খবরে বলা হয়েছে, ইসলামি প্রজাতন্ত্র ইরানের সঙ্গে দ্বিপক্ষীয় বাণিজ্য বাড়াবে কাতার। দেশটির অর্থ ও বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের আন্তর্জাতিক সহযোগিতা বিভাগ বলেছে,চলতি বছরের শেষ নাগাদ ইরানের সঙ্গে বাণিজ্যের পরিমাণ বাড়িয়ে ১০০ কোটি ডলারে নেয়া হবে। ফেসবুকের গ্রুপে এ খবরেও প্রতিক্রিয়া সৃষ্টির সব উপাদান রয়েছে।

বন্ধু ইকবাল নওয়াজ লিখেছেন, কাতার একটা বেইমান রাষ্ট্র,তাদের ঘাঁটি ব্যবহার করে সিরিয়ায় হামলা হয়েছে।

বহলুল: দেখেছেন? পাঠক-শ্রোতারা সব দিকেই খেয়াল রাখছেন। তার এ বক্তব্যও সমর্থন করেছেন বেশ কয়েকজন। কিন্তু এখন আর কথা বাড়ানোর অবকাশ নেই। কারণ আসরের সময় শেষ হয়ে এসেছে।

জ্বি বহলুল ভাই, আজকের আসরের সময়ও শেষ হয়ে এসেছে। যারা চিঠি লিখেছেন, মতামত জানিয়েছেন তাদের সবাইকে আবারো আন্তরিক শুভেচ্ছা জানাচ্ছি। #

ট্যাগ

২০১৮-০৭-২৪ ১৬:৩১ বাংলাদেশ সময়
মন্তব্য