অন্য সব আসরের মতো আজও আমরা শুরুতেই একটি হাদিস শোনাবো। বিশ্বনবী হযরত মুহাম্মাদ (সা.) বলেছেন, যে ব্যক্তি খাঁটি মনে ও একাগ্রচিত্তে আল্লাহ তায়ালার ইবাদত করে, মহান আল্লাহ তার জন্য সব ধরনের কল্যাণের ব্যবস্থা করেন।

আজকের আসরের শুরুতেই যে চিঠি তুলে নিয়েছি তা এসেছে ভারত থেকে।  দেশটির ছত্তিসগড় রাজ্যের শিবাজি থেকে এটি পাঠিয়েছেন রেডিও তেহরানের পুরনো শ্রোতা ভাই আনন্দ মোহন বাইন। গত ডিসেম্বর মাসের ৫ তারিখে পাঠানো চিঠি আমাদের হাতে এসে পৌঁছেছে কয়েক দিন আগে।

বহলুল: বাপরে! চিঠি যেন গতিতে শামুককে হারিয়ে দেয়ার প্রতিযোগিতায় নেমেছে। একেবারে চমৎকৃত হওয়ার মতো।

চমৎকৃত হওয়ার মতোই ব্যাপার। তারপরও ইমেইল এবং মেসেজের এই যুগে শেষ পর্যন্ত চিঠি যে গন্তব্যে পৌঁছেছে সেটাই আমাদের কাছে অবাক হওয়ার বিষয়।  সে যাক, চিঠির মধ্যে শ্রবণ মান সংক্রান্ত প্রতিবেদন দিয়েছেন ভাই আনন্দমোহন বাইন। রেডিও তেহরান থেকে প্রচারিত অনুষ্ঠান শুনছেন এবং তা ভালো লাগছে উল্লেখ করে তিনি আরো লিখেছেন, খবর এবং অন্যান্য পরিবেশনা ভালো লেগেছে।

বহলুল: ভাই আনন্দমোহন বাইন, আপনাকে ধন্যবাদ দেয়ার ভাষা নেই। সত্যিই আপনার চিঠি আমাদের অশেষ আনন্দ দিয়েছে।

বহলুল ভাই ঠিকভাবেই আমাদের মনের কথা তুলে ধরেছেন। আর হ্যাঁ, ভবিষ্যতে আরো চিঠি লিখবেন এবং রেডিও তেহরানের অনুষ্ঠান সম্পর্কে মতামত দেবেন বলেও আশা করছি।

বহলুল: দেখুন,এখানে আমি একটি চাহিদার কথা না বলে থাকতে পারছি না। সেটা হলো এখন আর চিঠিপত্র হাতে নেয়ার দরকার নেই। চিকিৎসকদের কাছ থেকে কিছু শিক্ষামূলক বা মজার অভিজ্ঞতার কথা এর আগে আমরা শুনেছি। আজ সে রকম আরেকটা অভিজ্ঞতা শুনতে চাই।

একটু অপেক্ষা করুন দেখছি এ রকম অভিজ্ঞতা আমাদের কাছে আছে কিনা। 

হ্যাঁ বলতে বলতেই পেয়ে গেলাম। বাংলাদেশের ময়মনসিংহ জেলার কমিউনিটি বেজড মেডিক্যাল কলেজ বাংলাদেশ বা সিবিএমসিবি'র ইন্টারনাল মেডিসিন বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ডা. আমিনুল ইসলামের একটি অভিজ্ঞতা রয়েছে আমাদের কাছে। তা হলে আসুন বহলুল ভাইয়ের সঙ্গে মিলে আমরাও শুনি এ অভিজ্ঞতা।

বহলুল: বিরিয়ানি সত্যিই খুবই মজার খাবার তবে রোগীর জন্য হয়ত তা সব সময়ই মজার নয়। তা ছাড়া ডাক্তার বলেছেন স্রেফ পানি খাওয়াতে আর রোগীর আত্মীয়-স্বজনরা তার মুখে তুলে দিলেন বিরিয়ানি! এক  একজন একেবারে বুদ্ধির তালগাছ!

চিকিৎসকদের কথা না শুনলে অনেক সময়ই তার চড়া মূল্য দিতে হয়- এ কথা আমাদের ভুলে যাওয়া ঠিক হবে না।  অধ্যাপক ডা. আমিনুল ইসলামের অভিজ্ঞতা আমাদেরকে এ কথাই  বুঝতে সাহায্য  করেছে। ধন্যবাদ ডা. আমিনুল ইসলাম।

এবার আমরা যথারীতি নজর দেব ফেসবুক গ্রুপে যে সব খবর নিয়ে আলোচনা হয়েছে সে দিকে।  'সিরিয়া থেকে ইসরাইল নির্মূল না হওয়া পর্যন্ত ইরানের উপস্থিতি থাকবে' শিরোনামের খবরটি প্রকাশিত হয়েছে ৮ জুলাই। এ খবরে বলা হয়েছে, সিরিয়া সরকারকে বিদেশী মদদপুষ্ট সন্ত্রাসীদের নির্মূলে সহায়তা দিতে তার দেশের সামরিক উপদেষ্টারা যতদিন প্রয়োজন ততদিন দেশটিতে অবস্থান করবেন। এ কথা বলেছেন ইরানের পার্লামেন্ট স্পিকারের বিশেষ সহকারী ও সাবেক উপ পররাষ্ট্রমন্ত্রী হোসেইন আমির-আব্দুল্লাহিয়ান।

ফেসবুকের গ্রুপে এ খবরে যে সব মন্তব্য হয়েছে তার সবগুলোই তুলে ধরা গেলে ভালো হতো। পাঠক ভাই আবদুস সালিম লিখেছেন,অভিশপ্ত ইহুদিবাদীরা ধ্বংস হবেই। এদিকে ইসরাইলের হয়ে কাজ করছে সৌদি আরব: হুথি নেতা শীর্ষক খবরটি প্রকাশিত হয়েছে ৮ জুলাই। এ খবরে বলা হয়েছে,ইয়েমেনে জনপ্রিয় হুথি আনসারুল্লাহ নেতা আবদুল মালেক আল-হুথি বলেছেন,মধ্যপ্রাচ্যে ইহুদিবাদী ইসরাইলের লক্ষ্য অর্জনের জন্য সৌদি আরব কাজ করছে।

রেডিও তেহরানের ফেসবুক গ্রুপে খবরটি স্বাভাবিকভাবেই আলোড়ন তুলেছে।  বন্ধু মাহদী হাসান মাসুম যে মন্তব্য করেছেন তা এখানে তুলে ধরছি। তিনি লিখেছেন, মধ্যপ্রাচ্যে ইহুদিবাদী ইসরাইলের জন্মে কথিত সৌদি রাজ পরিবারের হাত আছে !!!!

বহলুল: ইতিহাসকে পাঠক বন্ধুরা ভুলে যাননি দেখতে পাচ্ছি। আপনাদের সবাইকে ধন্যবাদ।

এদিকে, মুসলিম যুবককে হত্যায় জড়িতদের জামিন: স্বাগত জানালেন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী শীর্ষক খবরটি প্রকাশিত হয়েছে ৭ জুলাই। এ খবরে বলা হয়েছে, ভারতের বিজেপিশাসিত ঝাড়খণ্ডে গণপিটুনিতে আলিমুদ্দিন নামে এক মুসলিম যুবককে হত্যায় অভিযুক্ত ৮ জন জামিন পাওয়ায় তাদেরকে ফুলের মালা পরিয়ে স্বাগত জানালেন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী ও বিজেপি নেতা জয়ন্ত সিনহা এমপি। ওই ঘটনায় বিজেপির জেলা দফতরে মিষ্টি বিলি করে আনন্দ প্রকাশ করা হয়েছে।

এ খবরে প্রতিনিধিত্বশীল মন্তব্য তুলে ধরার মধ্য দিয়ে আসরের ইতি টানতে হবে। হ্যাঁ এ মন্তব্য করেছেন বন্ধু সাইফুল ইসলাম। তিনি লিখেছেন, এর মাধ্যমে আরও মুসলিম হত্যা করতে উৎসাহিত করা হইল।

দেখতে দেখতে আসরের সময় শেষে হয়ে এসেছে। এবার বিদায় নেয়ার পালা। যারা চিঠি লিখেছেন, ইমেইল করেছেন, খবরে মন্তব্য করেছেন এবং এতক্ষণ মূল্যবান সময় খরচ করে আমাদের সঙ্গ দিয়েছেন তাদের সবাইকে অসংখ্য ধন্যবাদ। কথা হবে আবার আগামী আসরে।#

খবরসহ আমাদের ওয়েবসাইটে প্রকাশিত সব লেখা ফেসবুকে পেতে এখানে ক্লিক করুন এবং নোটিফিকেশনের জন্য লাইক দিন 

ট্যাগ

২০১৮-০৯-০৩ ১৬:৩০ বাংলাদেশ সময়
মন্তব্য