• যত্রতত্র বাস থামানো যাবে না, চলবে না লেগুনা: ডিএমপি কমিশনার

সুপ্রিয় পাঠক/শ্রোতা! ৪ সেপ্টেম্বর মঙ্গলবারের কথাবার্তার আসরে স্বাগত জানাচ্ছি । আশা করছি আপনারা প্রত্যেকে ভালো আছেন। আসরের শুরুতে ঢাকা ও কোলকাতার গুরুত্বপূর্ণ বাংলা দৈনিকগুলোর বিশেষ বিশেষ খবরের শিরোনাম তুলে ধরছি।

প্রথমে বাংলাদেশে:

  • সরকারের প্রতি সমর্থন আছে ৬৪ ভাগের: আইআরআই জরিপ-প্রথম আলো
  • যত্রতত্র বাস থামানো যাবে না, চলবে না লেগুনা: ডিএমপি কমিশনার-দৈনিক ইত্তেফাক
  • সরকার ধর্মীয় উসকানি দিয়ে বিশৃঙ্খলা করতে চাইছে : রিজভী-এনটিভিিবিডি
  • বিল পরিশোধে অক্ষমতা-আইসিইউতে নবজাতক রেখে পালালেন মা-বাবা-দৈনিক কালেরকণ্ঠ
  • শহিদুল আলমের জামিন শুনানিতে বিব্রত হাইকোর্ট বেঞ্চ-দৈনিক যুগান্তর
  • রোহিঙ্গাদের নিয়ে ভুয়া ছবির জন্য ক্ষমা চাইল বর্মি সেনাবাহিনী-দৈনিক নয়া দিগন্ত

ভারতের খবর:

  • সিবিআই জালে নারদ মামলার আইনজীবী-আনন্দবাজার পত্রিকা
  • দলিত’‌ শব্দে আপত্তি, বলতে হবে তপশিলি জাতি:‌ টেলিভিশন চ্যানেলগুলিকে নির্দেশিকা কেন্দ্রের-দৈনিক আজকাল

  • দ্রুত ১০০ টাকা ছাড়াবে পেট্রলের দাম, সেঞ্চুরি করবে টাকার দরও’-সংবাদ প্রতিদিন

পাঠক/শ্রোতা! এবারে চলুন, বাছাইকৃত কয়েকটি খবরের বিস্তারিত জেনে নেয়া যাক। প্রথমেই বাংলাদেশ-

সরকারের প্রতি সমর্থন আছে ৬৪ ভাগের: আইআরআই জরিপ-প্রথম আলো

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রতি শতকরা ৬৬ ভাগ মানুষ সমর্থন প্রকাশ করেছেন। পাশাপাশি ৬৪ শতাংশ নাগরিক আওয়ামী লীগ নেতৃত্বাধীন সরকারের প্রতি সমর্থন জানিয়েছেন। ওয়াশিংটনভিত্তিক ইন্টারন্যাশনাল রিপাবলিকান ইনস্টিটিউট (আইআরআই) পরিচালিত এক জরিপের ফলাফলে এ কথা বলা হয়। এ বছরের ১০ এপ্রিল থেকে ২১ মের মধ্যে এই জরিপ পরিচালিত হয়। এতে বলা হয়, শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশের অর্থনীতি আশানুরূপভাবে এগিয়ে যাচ্ছে। ৬২ শতাংশ নাগরিক মনে করেন, অর্থনৈতিক অগ্রযাত্রায় দেশ সঠিক পথে আছে। অর্থনৈতিক উন্নয়নে সন্তুষ্টি প্রকাশ করেছেন ৬৯ শতাংশ নাগরিক। আন্তর্জাতিক গবেষণা সংস্থা সেন্টার ফর ইনসাইট অ্যান্ড সার্ভের এই গবেষণা প্রতিবেদন গত ৩০ আগস্ট প্রকাশ করা হয়েছে।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা

ওই প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, বর্তমানে দেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার জনপ্রিয়তা বেড়েছে। ৬৬ শতাংশ নাগরিকের কাছে জনপ্রিয় শেখ হাসিনা।

যত্রতত্র বাস থামানো যাবে না, চলবে না লেগুনা: ডিএমপি কমিশনার-দৈনিক ইত্তেফাক

রাজধানীর সড়কে শৃঙ্খলা ফেরাতে বাসস্টপের জন্য ১২১টি স্থান নির্ধারণ করা হয়েছে জানিয়ে ডিএমপি কমিশনার আছাদুজ্জামান মিয়া বলেছেন, ‘সড়কে যত্রতত্র বাস থামানো যাবে না। বাস থামানোর জন্য আমরা স্টপেজ নির্ধারণ করে দেব। এক স্টপেজ থেকে আরেক স্টপেজে যাওয়ার পথে কোথাও বাস থামানো যাবে না এবং বাসের দরজা বন্ধ রাখতে হবে।

ডিএমপি কমিশনার আছাদুজ্জামান মিয়া

আজ মঙ্গলবার ডিএমপির মিডিয়া সেন্টারে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ ঘোষণা দেন। ডিএমপি কমিশনার বলেন, ঢাকা মহানগরের রাস্তায় শৃঙ্খলা ফিরিয়ে আনতে সেপ্টেম্বর মাসব্যাপী বিশেষ কার্যক্রম গ্রহণ করেছে ডিএমপি। এই কার্যক্রমের অংশ হিসেবে যত দিন শৃঙ্খলা ফিরে না আসবে, তত দিন পুলিশ কাজ করে যাবে। রাজধানীতে প্রধান সড়কগুলোয় লেগুনা চলবে না।

এছাড়াও হেলমেট ছাড়া কোনো রাইডারকে তেল পাম্পে তেল না দেয়ার নির্দেশ দেয়া হয়েছে। তিনি বলেন, আমরা ইতিমধ্যে পেট্রোল পাম্প মালিকদের সঙ্গে কথা বলেছি। তারা হেলমেট না থাকলে তেল না সরবরাহের প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন।

সরকার ধর্মীয় উসকানি দিয়ে বিশৃঙ্খলা করতে চাইছে: রিজভী-এনটিভিবিডি

সরকার ধর্মীয় উসকানি দিয়ে সমাজে বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি করতে চাইছে বলে অভিযোগ করেছেন বিএনপির জ্যেষ্ঠ যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী। আজ মঙ্গলবার দুপুরে রাজধানীর নয়াপল্টনে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে নিয়মিত সংবাদ সম্মেলনে রিজভী এসব অভিযোগ করেন। সম্প্রতি এক সভায় আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, জাতীয় ঐক্যের নামে সাম্প্রদায়িক চক্রান্ত হচ্ছে, বিএনপি ক্ষমতায় এলে পরিস্থিতি ভয়াবহ হবে।

আজকের সংবাদ সম্মেলনে মূলত আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরের বক্তব্যের সমালোচনা করেন বিএনপির জ্যেষ্ঠ যুগ্ম মহাসচিব। এ সময় তিনি আওয়ামী লীগের প্রবীণ নেতা তোফায়েল আহমেদের দেওয়া বক্তব্যেরও সমালোচনা করেন।আবহমান বাংলাদেশের সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতিকে বিনষ্ট করে সমাজে বিশৃঙ্খলা সৃষ্টির মাধ্যমে ঘোলা পানিতে মাছ শিকার করতে নেমে পড়েছেন ওবায়দুল কাদেররা—এমন মন্তব্য করে রুহুল কবির রিজভী বলেন, এটা ‘অশুভ চক্রান্তের ইঙ্গিতবাহী’।

বিএনপির জ্যেষ্ঠ যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী

‘শান্তি ও সহাবস্থানের মধ্য দিয়ে ধর্ম, বর্ণ, ভাষা নির্বিশেষে জনগণের নির্বিঘ্নে বসবাসের ওপর আওয়ামী নেতাদের বক্তব্য মানুষের মধ্যে আতঙ্ক সৃষ্টি করার শামিল। তারা ক্ষমতায় থাকার জন্য রাষ্ট্রসমাজের স্থিতিকে ভেঙে ফেলতে গভীর ষড়যন্ত্রে লিপ্ত। ব্যর্থতার অন্ধগলিতে পথ হারিয়ে তারা এখন চক্রান্তের ওপর নির্ভরশীল হয়ে পড়েছে। সেই জন্য তারা সাম্প্রদায়িকতার ধ্বজা তুলে কোনো খারাপ দৃষ্টান্ত স্থাপন করতে চাইছে।’

রিজভী বলেন, ‘ওবায়দুল কাদের সাম্প্রদায়িক হামলার আশঙ্কা করছেন কেন? তাহলে কি তারাই সাম্প্রদায়িক হামলা করে কোনো রাজনৈতিক স্বার্থ হাসিল করবেন কি না, এ প্রশ্ন জনগণের মধ্যে দীর্ঘতর হচ্ছে। এখনো বর্তমান সংবিধানে যতটুকু ধর্মীয় সম্প্রদায়ের অধিকার আছে, তাঁর বক্তব্য সেই অধিকারকেও বিপন্ন করার উসকানি। জনবিচ্ছিন্ন সরকার ধর্মীয় উসকানি দিয়ে সমাজে বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি করতে চাইছে। আমরা তাদের পরিষ্কার বলতে চাই, কোনো প্রকার উসকানি দিয়ে লাভ হবে না। এ দেশের সব ধর্মীয় সম্প্রদায় অটুট ভ্রাতৃত্বের বন্ধনে ঐক্যবদ্ধ। বরং আওয়ামী লীগ সরকার ক্ষমতায় আসার পর থেকে মন্দির, গির্জা ও প্যাগোডায় সবচেয়ে বেশি আক্রমণ হয়েছে। এই আমলেই সংখ্যালঘুরা সবচেয়ে বেশি নির্যাতিত ও নিরাপত্তাহীন।’

এ সময় ব্লগার অভিজিৎ রায়, পুরোহিত, যাজকসহ ধর্মগুরুদের হত্যার দায় সরকার এড়াতে পারে না বলেও অভিযোগ করেন রিজভী।

বিল পরিশোধে অক্ষমতা-আইসিইউতে নবজাতক রেখে পালালেন মা-বাবা-দৈনিক কালেরকণ্ঠ

অতিরিক্ত বিলের চাপে কুমিল্লা নগরীর একটি হাসপাতালের আইসিইউতে চিকিৎসাধীন নবজাতক সন্তানকে রেখে পালিয়ে গেছেন মা-বাবা। বিষয়টি নিয়ে বিপাকে পড়েছে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ। দুই লক্ষাধিক টাকা বিল আদায় তো দূরে কথা, ফেলে যাওয়া শিশুটির রক্ষণাবেক্ষণে হিমশিম খেতে হচ্ছে তাদের।

ঘটনাটি জানাজানি হওয়ার পর জেলা সিভিল সার্জন আশ্বাস দিয়েছেন, বাচ্চাটির চিকিৎসার ব্যয়ভার জেলা স্বাস্থ্য বিভাগ থেকে বহন করা হবে। তবে চিকিৎসাসেবায় জড়িতদের আরো মানবিক হওয়ার আহ্বান তাঁর।

গত ১৮ আগস্ট অপরিণত ও অপেক্ষাকৃত কম ওজনের সন্তানকে বাঁচাতে কুমিল্লায় নিয়ে আসেন চাঁদপুরের শাহ আলম ও রোকেয়া দম্পতি। চিকিৎসার জন্য সন্তানকে ভর্তি করান নগরীর ঝাউতলার সিভিক স্কয়ারের মা ও শিশু স্পেশালাইজড হসপিটালে। ছয় দিন চিকিৎসার পর ২৪ আগস্ট হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ তাঁদের হাতে তুলে দেয় দুই লক্ষাধিক টাকার বিলের রসিদ। বিলের ফিরিস্তি দেখে আইসিইউতে থাকা সন্তান ফেলে পালিয়ে যান দারিদ্র্যপীড়িত মা-বাবা। বিষয়টি এখন গড়িয়েছে পুলিশ, স্বাস্থ্য বিভাগ ও জেলা প্রশাসন পর্যন্ত।

শহিদুল আলমের জামিন শুনানিতে বিব্রত হাইকোর্ট বেঞ্চ-দৈনিক যুগান্তর

তথ্য ও যোগাযোগপ্রযুক্তি আইনের মামলায় আলোকচিত্রী শহিদুল আলমের জামিন আবেদন শুনানিতে বিব্রতবোধ করেছেন হাইকোর্টের একটি বেঞ্চ। মঙ্গলবার বিচারপতি মো. রুহুল কুদ্দুস ও বিচারপতি খোন্দকার দিলীরুজ্জামানের সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চে বিব্রতবোধের এ ঘটনা ঘটে। বেঞ্চের একজন বিচারপতি বিব্রতবোধ করেছেন বলে জানিয়েছেন আদালত।

আলোকচিত্রী শহিদুল আলম

মঙ্গলবার হাইকোর্টের বেঞ্চে জামিন আবেদনটি শুনানির তালিকায় ছিল। আবেদনকারীর পক্ষে ছিলেন আইনজীবী সারা হোসেন ও জ্যোতির্ময় বড়ুয়া। আর রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম, ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল বিশ্বজিৎ দেবনাথ, অমিত তালুকদার ও অরবিন্দু কুমার রায়। অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম বলেন, আলোকচিত্রী শহিদুল আলমের জামিন আবেদনের শুনানিতে হাইকোর্ট বেঞ্চ বিব্রত। এর কারণ ব্যাখ্যা করার রেওয়াজ নেই আদালতের। তবে শহিদুল আলমকে বিনাকারণে আটক রাখা হয়নি।

রোহিঙ্গাদের নিয়ে ভুয়া ছবির জন্য ক্ষমা চাইল বর্মি সেনাবাহিনী-দৈনিক নয়া দিগন্ত

রোহিঙ্গা সঙ্কট নিয়ে প্রকাশিত একটি বইয়ে ভুয়া ছবি প্রকাশের জন্য ক্ষমা চেয়ে মিয়ানমারের সেনাবাহিনী বলেছে, দু’টি ছবি তারা ‘ভুলভাবে’ প্রকাশ করেছে। 

মিয়ানমারের সেনাবাহিনীর মুখপত্র মিন্দানাও ডেইলিতে সোমবার প্রকাশিত এক বিবৃতিতে বলা হয়, ‘এই ভুলের জন্য পাঠক এবং ওই ছবি দু’টির আলোকচিত্রীদের কাছে আমরা আন্তরিকভাবে ক্ষমাপ্রার্থী।’রোহিঙ্গা সঙ্কটের ‘আসল সত্য’ প্রকাশের ঘোষণা দিয়ে মিয়ানমারের সেনাবাহিনী গত জুলাই মাসে বইটি প্রকাশ করে, যেখানে অন্য দেশের পুরনো দু’টি ছবি ব্যবহার করে রাখাইনের রোহিঙ্গাদের নিয়ে মিথ্যা তথ্য উপস্থাপন করা হয়। আরেকটি ছবির ক্যাপশনে দেয়া হয় ভুয়া তথ্য।

এবার ভারতে বিস্তারিত খবর তুলে ধরছি

সিবিআই জালে নারদ মামলার আইনজীবী-আনন্দবাজার পত্রিকা

টাকা না দিলে মাদকের মিথ্যে মামলায় ফাঁসিয়ে দেওয়া হবে— এমনটাই হুমকি দেওয়া হয়েছিল বলে অভিযোগ। আর সেই তোলাবাজির টাকা নিতে গিয়ে হাতেনাতে সিবিআইয়ের হাতে ধরা পড়লেন শহরের এক নামী আইনজীবী এবং নার্কোটিক কন্ট্রোল ব্যুরো (এনসিবি)-র এক অফিসার। সোমবার গভীর রাতে সিবিআই আধিকারিকরা গ্রেফতার করেন দু’জনকে।

দানিশ হক

সিবিআই সূত্রে খবর, প্রতাপ আদিত্য নামে এক ব্যবসায়ী সিবিআইয়ের দুর্নীতি দমন শাখায় অভিযোগ করেন যে, তাঁকে মাদকের মিথ্যে মামলায় ফাঁসিয়ে দেওয়ার হুমকি দিচ্ছেন এক আইনজীবী। কলকাতা হাইকোর্টের সেই আইনজীবীর নাম দানিশ হক। এনসিবি-র নাম করে তিনি নাকি এই টাকা চাইছেন। অভিযোগকারী সিবিআইকে জানিয়েছেন, দানিশ তাঁর কাছে গ্রেফতারি এড়ানোর জন্য দু’লাখ টাকা চান। শুধু ওই আইনজীবী নন, অভিযোগকারী জানায়, তাঁকে একই কথা বলেছেন এনসিবি-র ইনটেলিজেন্স অফিসার অমরেন্দ্রকুমার সিংহও। এই দানিশ হক, নারদ মামলায় ইকবাল আহমেদের আইনজীবী। এ ছাড়াও গাড়ি দুর্ঘটনায় মডেল সোনিকা সিংহের মৃত্যুর মামলাতেও যুক্ত ছিলেন তিনি।

দলিত’‌ শব্দে আপত্তি, বলতে হবে তপশিলি জাতি:‌ টেলিভিশন চ্যানেলগুলিকে নির্দেশিকা কেন্দ্রের-দৈনিক আজকাল

‘‌দলিত’‌ শব্দ ব্যবহার নিয়ে টেলিভিশন চ্যানেলগুলিকে সতর্ক করল কেন্দ্রীয় তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রক। নির্দেশিকা জারি করা বলা হয়েছে ‘‌দলিত’‌ নয় বলতে বা লিখতে হবে ‘‌তপশিলি জাতি’‌।বম্বে হাইকোর্টের আবেদন মেনেই এই নির্দেশিকা জারি করেছে কেন্দ্রীয় তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রক।

গত জুনে বম্বে হাইকোর্ট কেন্দ্রকে অনুরোধ করেছিল, দলিত শব্দের পরিবর্তে তপশিলি জাতি ব্যবহার করা হোক। সেই আবেদনের প্রেক্ষিতেই এই নির্দেশিকা বলে জানানো হয়েছে। দেশের সব বেসরকারি টেলিভিশন চ্যানেল গুলিতে নির্দেশিকা পাঠানো হয়েছে। সেই সঙ্গে সংবাদ পত্র এবং পত্রিকাগুলিকে  এই নির্দেশিকা মেনে চলতে হবে বলে জানিয়েছে তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রক।

নির্দেশিকায় আরও জানানো হয়েছে ইংরেজিতে সিডিউল্ড কাস্ট শব্দটি লিখতে হবে দলিতের পরিবর্তে। আর অন্যান্য ভাষায় এর উপযুক্ত অনুবাদ করতে হবে। কোনওভাবেই দলিত শব্দ ব্যবহার করা যাবে না। কারণ সংবিধানের ৩৪১ নম্বর ধারা অনুযায়ী দলিতরা তপশিলি জাতির অন্তর্ভুক্ত। সেই শংসাপত্রই তাঁদের দেওয়া হয়।

তবে এই নিয়ম না মানা হলে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের বিরুদ্ধে কোনও পদক্ষেপ করা হবে কিনা তা স্পষ্ট করে কিছু লেখা হয়নি নির্দেশিকায়। প্রেস কাউন্সিল অব ইন্ডিয়ায় এই নির্দেশিকা পাঠিয়ে অবিলম্বে সেটি কার্যকর করার নির্দেশ দিয়েছে তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রক। ‌

দ্রুত ১০০ টাকা ছাড়াবে পেট্রলের দাম, সেঞ্চুরি করবে টাকার দরও’-সংবাদ প্রতিদিন

ক্রমশ লাগাম ছাড়াচ্ছে পেট্রল-ডিজেলের দাম। পাল্লা দিয়ে ডলারের তুলনায় কমছে টাকার দরও। টাকার দর পড়ায় আন্তর্জাতিক বাণিজ্যে আমদানি-রপ্তানি শুল্কের ক্ষেত্রে অতিরিক্ত পয়সা গুণতে হচ্ছে ব্যবসায়ীদের। যার সরাসরি প্রভাব পড়বে খোলা বাজারের দ্রব্যমূল্যে। দেশের অর্থনীতির এই হাল নিয়ে এবার সরব হলেন অন্ধ্রপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী চন্দ্রবাবু নায়ডু। যে গুঞ্জন এতদিন শোনা যাচ্ছিল আম আদমির গলায় এবার তাই উঠে এল অন্ধ্রের মুখ্যমন্ত্রীর গলায়। নায়ডু বললেন, “আর সেদিন দেরি নেই যেদিন পেট্রল ১০০ টাকা লিটার দরে বিকোবে। পেট্রল ১০০ টাকার গণ্ডি পেরোনোর সঙ্গে সঙ্গে ডলারের দামও হবে ১০০ টাকা।

মঙ্গলবারও লিটারপ্রতি পেট্রলের দাম বেড়েছে ১৯ পয়সা, ডিজেলের দাম বেড়েছে ১৬ পয়সা। আজ কলকাতায় পেট্রলের দাম ৮২ টাকা ছাড়িয়েছে, ডিজেল ছাড়িয়েছে চুয়াত্তরের গণ্ডি। একই দিনে আবারও রেকর্ড পতন হয়েছে টাকার দামে। মার্কিন ডলারের তুলনায় সর্বকালের সর্বনিম্ন হয়ে দাঁড়িয়েছে ৭১ টাকা ৩৩ পয়সায়। নায়ডুর দাবি, নোট বাতিলের ফলেই দেশের অর্থনীতির এই অবস্থা। তিনি বলেন, “দেশের অর্থনীতির এই অবস্থা পুরোপুরি মোদি সরকারের অপদার্থতার জন্য। দেশের ব্যাংকগুলির অবস্থা করুণ। বড় নোটের প্রয়োজনীয়তা কী? আজও স্পষ্ট নয়। বড় নোট অর্থনীতির জন্য ভাল খবর নয়, দ্রুত ২০০০ টাকার নোট বন্ধ করে দেওয়া উচিত।” রিজার্ভ ব্যাংকের দেওয়া নোট বাতিলের রিপোর্ট নিয়ে সাংবাদিকেদের মুখোমুখি হয়েছিলেন অন্ধ্রের মুখ্যমন্ত্রী। তিনি বলেন, “কেন্দ্র সঠিকভাবে নোট বাতিলকে চালু করতে পারেনি।” #

পার্সটুডে/বাবুল আখতার/৪

 

 

 

 

 

 

 

২০১৮-০৯-০৪ ১৮:১৫ বাংলাদেশ সময়

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

২০১৮-০৯-০৪ ১৬:২৭ বাংলাদেশ সময়
মন্তব্য