• যা ইচ্ছে সাজা দেন আদালতে আসতে পারব না: খালেদা জিয়া

সুপ্রিয় পাঠক/শ্রোতা! ৫ সেপ্টেম্বের বুধবারের কথাবার্তার আসরে স্বাগত জানাচ্ছি আমি বাবুল আখতার। আশা করছি আপনারা প্রত্যেকে ভালো আছেন। আসরের শুরুতে ঢাকা ও কোলকাতার গুরুত্বপূর্ণ বাংলা দৈনিকগুলোর বিশেষ বিশেষ খবরের শিরোনাম তুলে ধরছি। এরপর গুরুত্বপূর্ণ কয়েকটি খবরের বিশ্লেষণে যাবো। বিশ্লেষণ করবেন সহকর্মী সিরাজুল ইসলাম।

বাংলাদেশের শিরোনাম:

  • আকাশবীণার উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী-প্রথম আলো
  • যা ইচ্ছে সাজা দেন আদালতে আসতে পারব না: খালেদা জিয়া-ইত্তেফাক
  • সারা দেশেই চলছে মামলার ছড়াছড়ি: রিজভী-দৈনিক কালের কণ্ঠ
  • সংবিধান মেনেই কারাগারে আদালত স্থাপন: অ্যাটর্নি জেনারেল-যুগান্তর
  • ‘বাংলাদেশে অংশগ্রহণমূলক ও গ্রহণযোগ্য নির্বাচন আশা করে যুক্তরাষ্ট্র-মানব জমিন
  • সরকারকে একা খেলতে দেয়া হবে না : দুদু-দৈনিক নয়া দিগন্ত
  • নির্বাচন বাংলাদেশের অভ্যন্তরীণ বিষয়, এ নিয়ে ভারত কথা বলতে চায় না-মানবজমিন

ভারতের শিরোনাম:

  • পূর্ত দফতরের গাফিলতিতেই এত বড় দুর্ঘটনা, মত বিশেষজ্ঞের
  •  

পাঠক/শ্রোতা! এবারে গুরুত্বপূর্ণ কয়েকটি খবরের বিশ্লেষণে যাব। জনাব সিরাজুল ইসলাম কথাবার্তার আসরে আপনাকে স্বাগত জানাচ্ছি।

কথাবার্তার বিশ্লেষণের বিষয়:

আকাশবীণার উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী-প্রথম আলো

বিমানবহরে যুক্ত হওয়া অত্যাধুনিক বোয়িং ৭৮৭-৮ ড্রিমলাইনার আকাশবীণার উদ্বোধন করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। আজ বুধবার দুপুরে এক অনাড়ম্বর অনুষ্ঠানে ড্রিমলাইনারের উদ্বোধন করেন তিনি

সন্ধ্যার দিকে ড্রিমলাইনারের প্রথম বাণিজ্যিক ফ্লাইট পরিচালিত হবে। ফ্লাইটটি ঢাকা থেকে মালয়েশিয়ার কুয়ালালামপুরের উদ্দেশে ছেড়ে যাবে বলে জানান বিমানের মহাব্যবস্থাপক (জনসংযোগ) শাকিল মেরাজ। ১৯ আগস্ট বিকেলে ঢাকায় এসে পৌঁছায় আমেরিকার বোয়িং কোম্পানির তৈরি বাংলাদেশ এয়ারলাইনসের ৭৮৭-৮ ড্রিমলাইনার। যুক্তরাষ্ট্রের সিয়াটল পেনফিল্ড থেকে যাত্রাবিরতি ছাড়াই টানা সাড়ে ১৪ ঘণ্টা উড়ে হজরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে অবতরণ করে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এর নাম দিয়েছেন ‘আকাশবীণা। বোয়িংয়ের কাছ থেকে আরও তিনটি ৭৮৭-৮ ড্রিমলাইনার বিমানবহরে যোগ হতে যাচ্ছে। দ্বিতীয়টি আসবে আগামী নভেম্বরে। অন্য দুটি ড্রিমলাইনার আসবে ২০১৯ সালের শেষ দিকে।

যা ইচ্ছে সাজা দেন আদালতে আসতে পারব না: খালেদা জিয়া-ইত্তেফাক

 দৈনিক ইত্তেফাকের শিরোনামের খবরে বলা হয়েছে, দীর্ঘ সাত মাস পর বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়াকে আদালতে হাজির করা হয়েছে। জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট মামলায় তাকে আজ বুধবার হাজির করা হয় পুরাতন কেন্দ্রীয় কারাগারের অস্থায়ী আদালতে।

হাজির হয়ে খালেদা জিয়া বলেন, ‘আমার শারীরিক অবস্থা ভালো না। পা ফুলে গেছে। চিকিৎসকরা বলেছে, পা ঝুলিয়ে রাখা যাবে না। আমি আদালতে বারবার আসতে পারব না। আপনাদের যা মনে চায়, যতদিন ইচ্ছা আমাকে সাজা দিয়ে দেন। তিনি বলেন, ন্যায়বিচার বলে কিছু নাই। অবিচার হচ্ছে। কথা বলা যায় না। ইচ্ছামতো আপনারা যা খুশি সাজা দিয়ে দেন।

ঢাকার বিশেষ জজ আদালত ৫ এর কার্যক্রম চলছে এই আদালতে। খালেদা জিয়া বলেন, এই মামলায় শুনানির জন্য আজকের দিন তো আগে থেকেই ঠিক করা ছিল। কিন্তু একদিন আগে তড়িঘড়ি করে আদালত স্থানান্তরের গেজেট করা হয়েছে।

আজ দুপুর ১২টা ১৪ মিনিটে খালেদা জিয়াকে কারাগারে তার কক্ষ থেকে হুইল চেয়ারে করে আদালতের এজলাসে নিয়ে যাওয়া হয়। পরে আদালতের কার্যক্রম শুরু হয়। আগামী ১২ ও ১৩ সেপ্টেম্বর শুনানির জন্য দিন ধার্য রাখা হয়েছে। জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট মামলায় ৫ বছরের দণ্ডপ্রাপ্ত হয়ে পুরাতন কেন্দ্রীয় কারাগারের একটি ভবনে আটক আছেন।

সারা দেশেই চলছে মামলার ছড়াছড়ি: রিজভী-দৈনিক কালের কণ্ঠ

রাজধানীসহ সারা দেশেই চলছে মামলার ছড়াছড়ি, গ্রেপ্তার ও আসামি করার হিড়িক। এমনকি যেসব বিএনপি নেতা দেশে নেই বা অনেকে হজ পালন করতে মক্কায় অবস্থান করছেন, তাদের নামেও মামলা দেয়া হয়েছে বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী। আজ বুধবার রাজধানীর নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এসব কথা বলেন।

রিজভী বলেন, সরকার অজানা আশঙ্কায় বিএনপিসহ বিরোধী দলের নেতাকর্মীদের অন্যায়ভাবে গ্রেপ্তার করে কারাগার ভরে ফেলেছে। সারা দেশে কোনো ঘটনা না ঘটলেও বিভিন্ন থানায় অগ্রিম মামলা করে রেখেছে পুলিশ। এসব মামলায় হাজার হাজার অজ্ঞাতনামা ব্যক্তিকে আসামি করে রাখা হয়েছে। এতে সুস্পষ্টভাবে প্রমাণিত হয় সরকারবিরোধী দলের বিরুদ্ধে বিনাকারণে দমননীতির অংশ হিসেবে মামলা দায়ের ও সে মামলায় গ্রেপ্তার করে।

শেখ হাসিনা মনে করেন, তার বিরুদ্ধে যাতে কোনো দিক থেকে কোনোভাবেই কেউ যেন টুঁ শব্দ না করতে পারে, সে জন্যই পুলিশ গ্রেফতার ও মিথ্যা মামলায় সয়লাব করে দিয়েছে সারা দেশকে। বর্তমান অবৈধ সরকার বিদ্বেষ ও উগ্রতা দিয়ে মামলা-হামলা গ্রেপ্তারের মাধ্যমে বিরোধী দলের ওপর দমন-পীড়ন চালিয়ে ভোটারবিহীন বেআইনিভাবে ক্ষমতায় চিরকালীন থাকাটা নিশ্চিত করতে চাচ্ছে।

রিজভী আরও বলেন, ক্ষমতাসীন নেতা ও মন্ত্রীদের হুমকি-ধমকি দেখে মনে হয়- অন্ধকারে ভয়ে যেমন মানুষ চিৎকার করে, তেমনি সরকার পতনের ভয়ে আর্তচিৎকার করছে। এ সময়ে অন্যদের মধ্যে ছিলেন বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা আবদুস সালাম, সাংগঠনিক সম্পাদক এমরান সালেহ প্রিন্স, কেন্দ্রীয় নেতা এবিএম মোশররফ হোসেন, মুনির হোসেন আব্দুল সালাম আজাদ, আমিনুল ইসলাম প্রমুখ।

ইভিএম পদ্ধতির সমালোচনা করে বঙ্গবীর কাদের সিদ্দিকী বলছেন, ইভিএম পদ্ধতির মাধ্যমে যে কেউ জাল ভোট দিতে পারে। এটা পরীক্ষিত। শুক্রবার বিকালে জাতীয় প্রেস ক্লাবে বঙ্গবন্ধু হত্যা ও তার প্রতিবাদ, প্রতিরোধ সংগ্রাম শীর্ষক আলোচনা সভায় সভাপতির বক্তব্যে তিনি এ মন্তব্য করেন।  কাদের সিদ্দিকী বলেন, ‘গত পরশু নির্বোধ নির্বাচন কমিশন ইভিএমের একটি সিদ্ধান্ত নিয়েছে। ইতিহাসে নেই, কোনো কমিশনের সদস্য কমিশনের মিটিং বয়কট করে, সেটাও হয়েছে। এ মুহূর্তে ইভিএম হওয়ার কোনো মানে নেই। যারা ইভিএম চালাবেন তারাও শেখেন নাই। যারা ভোট দেবেন তারাও জানেন না। তিনি বলেন, নির্বাচনে ইভিএম চলবে কি চলবে না তা নিয়ে হুদা কমিশন রাজনৈতিক দলগুলোর মতামতের জন্য ডেকেছিল। সেখানে উপস্থিত সবার সামনে আমাদের দলের সাধারণ সম্পাদক ছয় ছয়টি জাল ভোট দিয়েছিলেন। তখন আমি বলেছিলাম, নির্বাচন কমিশনার আপনাদের চোখের সামনে ছয়বার জাল ভোট দেয়া হল আপনি কিছুই করতে পারলেন না। আপনার ইভিএম কিছু করতে পারল না। এই ইভিএম চলবে না। সেই ইভিএম তৈরি করেন যেটা একবারের বেশি কোনো মানুষকে গ্রহণ করবে না।

সংবিধান মেনেই কারাগারে আদালত স্থাপন: অ্যাটর্নি জেনারেল

রাষ্ট্রীয় নিরাপত্তার কথা বিবেচনা করে সংবিধান মেনেই পুরনো কারাগারে অস্থায়ী আদালত স্থাপন করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম। কারাগারে অস্থায়ী আদালত স্থাপন করায় সংবিধান লঙ্ঘন হয়েছে’বিএনপিপন্থী আইনজীবীদের অভিযোগের প্রেক্ষিতে বুধবার বিকালে এক প্রতিক্রিয়ায় সাংবাদিকদের তিনি এসব কথা বলেন। এ সময় অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম বলেন, কারগারে আদালত স্থানান্তর করায় সংবিধান লঙ্ঘন হয়নি। নিরাপত্তাজনিত কারণেই পুরনো কারাগারে অস্থায়ী আদালত স্থাপন করা হয়েছে।

এর আগে, সকালে নাজিম উদ্দিন রোডের পুরনো কারাগারের ভেতরে বিশেষ জজ আদালতের অস্থায়ী এজলাস বসিয়ে জিয়া দাতব্য ট্রাস্ট দুর্নীতির মামলার বিচার অনুষ্ঠিত হয়েছে। সেখানে মামলার প্রধান আসামি বিএনপি চেয়ারপারসন ও সাবেক প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়া নিজের অসন্তোষ ব্যক্ত করেন। আদালতে বিচারককে খালেদা জিয়া বলেন, আপনার যত দিন ইচ্ছা সাজা দিন, আমি এ অবস্থায় আসতে পারব না। এ আদালতে আমার ন্যায়বিচারও হবে না। খালেদা জিয়া বলেন, আমি অসুস্থ। আমি বারবার আদালতে আসতে পারব না। আর এভাবে বসে থাকলে আমার পা ফুলে যাবে। তিনি বলেন, আমার সিনিয়র কোনো আইনজীবী আসেনি। এটি জানলে আমি আসতাম না। আদালতের বিচারক ঢাকার ৫ নম্বর বিশেষ জজ আদালতের বিচারক মো. আখতারুজ্জামান। বেলা ১১টার দিকে তিনি আদালতে আসেন। খালেদা জিয়াকে দুপুর সোয়া ১২টার দিকে আদালতে হাজির করা হয়। হুইলচেয়ারে বসিয়ে তাকে আনা হয়।

পরনে ছিল বেগুনি রঙের শাড়ি। চেয়ারে বসা অবস্থায় তার পায়ের ওপরের অংশ থেকে নিচ পর্যন্ত সাদা চাঁদর দিয়ে ঢাকা ছিল। আধা ঘণ্টারও কম সময় আদালতের কার্যক্রম চলা

বাংলাদেশে অংশগ্রহণমূলক ও গ্রহণযোগ্য নির্বাচন আশা করে যুক্তরাষ্ট্র-মানব জমিন

মার্কিন রাষ্ট্রদূত মার্শা ব্লুম বার্নিকাট বলেছেন, বাংলাদেশের মানুষের প্রত্যাশা অনুযায়ী একটি অংশগ্রহণমূলক ও গ্রহণযোগ্য নির্বাচন আশা করে যুক্তরাষ্ট্র। বাংলাদেশের সরকারও এমন একটি নির্বাচন করতে চায় বলে মনে করেন তিনি। আজ সকালে পররাষ্ট্র সচিব শহিদুল হকের সঙ্গে সাক্ষাৎ শেষে তিনি উপস্থিত সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে এসব কথা বলেন। রোহিঙ্গা ইস্যুতে আসন্ন জাতিসংঘ সাধারণ অধিবেশন ও নিরাপত্তা পরিষদে যুক্তরাষ্ট্র কঠোর অবস্থান নেবে বলে জানিয়েছেন বার্নিকাট। তিনি বলেন, ‘জাতিসংঘের সাধারণ অধিবেশন ও নিরাপত্তা পরিষদে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের সভাপতির পদে দায়িত্ব গ্রহণের বিষয়ে পররাষ্ট্রসচিবের সঙ্গে আলোচনা হয়েছে। জাতিসংঘের সাধারণ অধিবেশনে বিভিন্ন বিষয়ের পাশাপাশি রোহিঙ্গা সংকটকে যুক্তরাষ্ট্র গুরুত্ব দিচ্ছে।

সরকারকে একা খেলতে দেয়া হবে না : দুদু-দৈনিক নয়া দিগন্ত

কোনো ষড়যন্ত্র করেই প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এবার ক্ষমতায় থাকতে পারবে না মন্তব্য করে বিএনপির ভাইস-চেয়ারম্যান শামসুজ্জামান দুদু প্রধানমন্ত্রীর উদ্দেশে বলেছেন, যত যাই কিছু করেন না কেনো কোনো লাভ হবে না। ডিসেম্বর এবং জানুয়ারি বিএনপির সময়। ডিসেম্বর এবং জানুয়ারি ২০ দলের সময়। এই দুটি মাসের মধ্যেই বাংলাদেশে ধানের শীষের সরকার ক্ষমতায় আসবে। এর বাইরে কোনো সত্য নেই। এসময় তিনি প্রধানমন্ত্রীর উদ্দেশে আরো বলেন, ‘যদি আপনি পদত্যাগ না করেন ভালো কথা। আমরা তখন সেই ব্যবস্থা করবো। আপনি যেভাবে চাইবেন আমরা সেই ভাবেই খেলবো। একা একা খেলে আপনি জয়লাভ করবেন এবার আর সেটা হবে না। মাঠে আমরা আছি আন্দোলনের মাঠেও থাকবো নির্বাচনের মাঠেও থাকবো ইনশাআল্লাহ।

আজ বুধবার দুপুরে বাংলাদেশ ইয়ুথ ফোরাম আয়োজিত বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের ১১তম কারামুক্তি দিবস উপলক্ষে এক আলোচনা সভায় প্রধান আলোচকের আলোচনায় তিনি এসব কথা বলেন। আলোচনায় সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য দেন দলটির আরেক ভাইস-চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট খন্দকার মাহবুব হোসেন। এসময় আরো বক্তব্য দেন-বিএনপির নির্বাহী কমিটির সদস্য আবু নাসের মুহাম্মাদ রহমাতুল্লাহ, জাতীয় পার্টির (জাফর) প্রেসিডিয়াম সদস্য আহসান হাবীব লিঙ্কন প্রমুখ।

এবার ভারতে বিস্তারিত খবর তুলে ধরছি

পূর্ত দফতরের গাফিলতিতেই এত বড় দুর্ঘটনা, মত বিশেষজ্ঞের

এ যেন শাঁখের করাত। যে দিকেই টানা হোক না কেন, তাতেই কাটা যাচ্ছে পূর্ত দফতরের নাক!কী ভাবে ভেঙে পড়ল মাঝেরহাট সেতুর ওই অংশ? তা জানার চেষ্টা করতেই আমরা বুধবার সকালে নির্মাণ ও পরিবহণ বিশেষজ্ঞ ইঞ্জিনিয়ার অনির্বাণ পালকে সঙ্গে নিয়ে পৌঁছেছিলাম ঘটনাস্থলে। ঘণ্টাখানেকেরও বেশি সময় ধরে গোটাটা খতিয়ে দেখে যা উঠে এল, তা শহরবাসীর কাছে মোটেও স্বস্তিদায়ক নয়। প্রাথমিক ভাবে যে সব কারণ উঠে এসেছে, তাতে দেখা যাচ্ছে, সমস্ত গাফিলতিটাই পূর্ত দফতরের। তারা যদিও সেই দায় নিয়ে কোনও মন্তব্য করতে রাজি হয়নি। প্রায় ৫০ বছর আগে তৈরি হয়েছিল মাঝেরহাটের ওই সেতু। মঙ্গলবার সেতুর দু’টি স্তম্ভের মধ্যবর্তী প্রায় ৪৫ মিটার একটা অংশ ভেঙে পড়ে। ওই অংশটি গার্ডারের সাহায্যে যে দু’টি স্তম্ভের উপর লাগানো ছিল, সে দু’টিতে কোনও ফাটল বা বিচ্যুতি নেই। মূলত ক্ষতিগ্রস্ত হয়ে গার্ডার সরে যাওয়ার ফলেই ওই বিপর্যয় ঘটেছে বলে মত বিশেষজ্ঞদের। কিন্তু, কেন গার্ডার সরে গেল? ক্ষতিগ্রস্তই বা হল কী করে, তা নিয়ে একাধিক মত উঠে এসেছে

গুরুশিষ্যের দেশ ভারত বললেন মুখ্যমন্ত্রী

সারা ভারতবর্ষ জুড়ে পালিত হচ্ছে শিক্ষক দিবস। সংবাদ সংস্থা পিটিআইয়ের কাছে রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি ভারতবর্ষকে গুরুশিষ্যের দেশ বলে অভিহিত করেছেন। তিনি বলেছেন ভারতবর্ষ বহু যুগ ধরে গুরুশিষ্যর ঐতিহ্য বহন করে চলেছে। শিক্ষকরাই হচ্ছেন আমাদের গুরু। ভারতবর্ষ থেকেই গুরু শিষ্যের ঐতিহ্যছড়িয়ে পড়েছে সারা পৃথিবীতে। নিজের টুইটারে এই কথা লিখেছেন মুখ্যমন্ত্রী তিনি জানান, তাঁর সরকার ইতিমধ্যে শিক্ষা রতন সম্মান প্রদান করার কাজ শুরু করেছে। যে সমস্ত শিক্ষকেরা শিক্ষা জগতে বিশেষ অবদান রাখতে সক্ষম হবেন তাঁদের এই পুরস্কার প্রদান করা হবে। তিনি আরও বলেন, ‘‌আজকের দিনে সরকার চালিত শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলির যে সমস্ত শিক্ষক বিশেষ অবদান রাখতে সক্ষম হয়েছেন তাঁদের এই শিক্ষা রতন পুরস্কার প্রদান করা হবে।‌ শিক্ষকদের অবদানের জন্য তাঁরা যে বিশেষ সম্মান লাভের অধিকারী এদিন সেটাই প্রমাণ করে।

রাফালে কেনাবেচায় স্থগিতাদেশ মামলা গ্রহণ সুপ্রিম কোর্টের 

রাফালে চুক্তির ভবিষ্যৎ বড়সড় প্রশ্নচিহ্ন তৈরি হল। চুক্তি অনুযায়ী আদৌ রাফালে কেনাবেচা করা যাবে কিনা এসবই এখন নির্ভর করছে সুপ্রিম কোর্টের উপর। কারণ, রাফালে চুক্তিতে অনিয়ম হয়েছে, এই যুক্তিতে একটি জনস্বার্থ মামলা করেন সুপ্রিম কোর্টের এক আইনজীবী। সেই মামলা গ্রহণ করেছে শীর্ষ আদালত।

এতদিন রাফালে চুক্তিতে অনিয়মের অভিযোগ আনছিল কংগ্রেস। এবার কংগ্রেসের আনা অভিযোগের ভিত্তিতে সুপ্রিম কোর্টে একটি জনস্বার্থ মামলা দায়ের করলেন আইনজীবী এম এল শর্মা। বুধবার এমএল শর্মার করা ওই জনস্বার্থ মামলা গ্রহণ করল সর্বোচ্চ আদালত। প্রধান বিচারপতি দীপক মিশ্র, বিচারপতি এএম খানউইলকর এবং বিচারপতি ডিওয়াই চন্দ্রচূড় মামলাটি গ্রহণ করেছেন। শুধু গ্রহণ করা নয়, মামলাটির দ্রুত শুনানির যে আবেদন করা হয়েছিল, তাও গ্রহণ করেছে সর্বোচ্চ আদালত। আগামী সপ্তাহেই মামলার প্রথম শুনানি হওয়ার কথা।

সুপ্রিম কোর্ট এই মামলা গ্রহণ করার মানে রাফালের ভবিষ্যৎ প্রশ্নের মুখে পড়ে গেল। রাফালে নিয়ে দীর্ঘদিন ধরেই দুর্নীতির অভিযোগে সরব হয়েছে কংগ্রেস। দেশজুড়ে সরকার-বিরোধী আন্দোলনের পথেও হাঁটছে রাহুল গান্ধীর দল।# 

পার্সটুডে/বাবুল আখতার/৫

 

 

২০১৮-০৯-০৫ ১৮:২৮ বাংলাদেশ সময়
মন্তব্য