ইমাম জাফর সাদেক (আ.) বলেছেন, কোনো চিন্তাভাবনা ছাড়া যে ব্যক্তি কোনো কাজে হাত দেয় সে হচ্ছে ওই পথহারা পথিকের মতো যে গন্তব্য ভুলে ভিন্ন পথে চলে গেছে। এ অবস্থায় সে যত দ্রুত হাঁটতে থাকবে তত বেশি সে তার গন্তব্য থেকে দূরে চলে যাবে।

অনেক মূল্যবান হাদিস শুনলাম। আমাদের অবস্থা যেন এই পথহারা পথিকের মতো না হয় সেদিকে লক্ষ্য রাখতে হবে। যাই হোক, আজকের আসরের প্রথম চিঠিটি এসেছে ভারত থেকে। পশ্চিমবঙ্গের দক্ষিণ দিনাজপুর জেলার জল্লাই হেজাজিপাড়া গ্রাম থেকে এটি লিখেছেন শ্রোতাভাই মকবুল হোসেন মণ্ডল। মার্চ মাসের ২২ তারিখে লেখা এ চিঠি কয়েক দিন আগে আমাদের হাতে এসে পৌঁছেছে।

বহলুল: সাব্বাস! তারপরও চিঠি তার ঠিকানায় পৌঁছেছে। এটা সত্যিই সৌভাগ্যের ব্যাপার। কারণ তা না হলে এ শ্রোতা ভাই ভুল বুঝতে পারতেন যে, আমরা তার চিঠিকে এড়িয়ে গেছি বা জবাব দেই নি।

না বহলুল ভাই। দুই/একজন শ্রোতা ভাইয়ের অভিযোগের দায় অন্যদের ওপর চাপিয়ে দেয়া ঠিক হবে না। তা যাই হোক, এ চিঠিতে তিনি কোলকাতার সাংবাদিক আবদুল হাকিম ভাইয়ের প্রতিবেদনের প্রশংসা করেছেন। পাশাপাশি তিনি বিশ্ব সংবাদ, সংবাদ ভাষ্যের অনুষ্ঠান দৃষ্টিপাত শিশু-কিশোরদের অনুষ্ঠান রংধনু এবং পত্রপত্রিকার পাতার আয়োজন কথাবার্তা ভালো লেগেছে বলে জানিয়েছেন। তিনি লিখেছেন, রেডিও তেহরানের অনুষ্ঠান আমার ও আমার পরিবারের ভালো লাগে।

বহলুল: চিঠি লেখার জন্য অনেক অনেক ধন্যবাদ ভাই মকুবল হোসেন।  ভবিষ্যতে আরো চিঠি দেবেন বলে আশা করছি। না না। এবারে কোনো চিঠিই নয়। বরং শুনি কি বলেছেন শ্রোতা ভাই।

এতো জোর দিয়ে যখন বলছেন,তখন আর কি করা। আসুন তাহলে শুনি। হ্যাঁ ভারতের পশ্চিমবঙ্গের পূর্ব বর্ধমানের শ্রোতা ভাই গোলাম গাউসের সঙ্গে কথা হয়েছে আমাদের। এবারে শুনি সে কথা…….

বহলুল: রেডিও তেহরান কবে শোনা শুরু করেছেন জানতে চাইলে ভাই গোলাম গউস বলেন বলেন………

রেডিও তেহরান যখন শোনা শুরু করেন তখন তিনি কি করতেন সে কথা শোনানোর পাশাপাশি নিজের বর্তমান অবস্থা নিয়েও কথা বলেন ভাই গোলাম গউস।..........

পশ্চিমবঙ্গের শ্রোতাভাই গোলাম গউসের সঙ্গে কথা বলছিলাম এতোক্ষণ। রেডিও তেহরানকে সময় দেয়ার জন্য ভাই গোলাম গউস আপনাকে অনেক অনেক ধন্যবাদ। পা হারানোর পরও আপনি যে বিপুল উৎসাহে রেডিও তেহরানের অনুষ্ঠান শুনছেন সেজন্য অনেক অনেক ধন্যবাদ। ভবিষ্যতে আরো কথা বলার আশা রইল।

শ্রোতাভাই বোনেরা রেডিও তেহরানের সঙ্গে যারা কথা বলতে আগ্রহী তারা নিজ নিজ ফোন নম্বর পাঠাতে পারেন। আমরা আপনাদেরকে ফোন করে কথা বলব।

বহলুল: তাহলে এবার আমরা ফেসবুক গ্রুপে যে সব মন্তব্য হয়েছে সে দিকে নজর দেবো। কে শুরু করবেন আজ?

কে শুরু করবে মানে? আমিই তো তৈরি হয়ে বসে আছি। ঠিক আছে শুরু করছি। হ্যাঁ  জম্মু-কাশ্মিরে নিরাপত্তা বাহিনীর সঙ্গে বন্দুকযুদ্ধে ১ গেরিলা নিহত,কারফিউ জারি শীর্ষক খবরটি প্রকাশিত হয়েছে ১২ জুলাই। এ খবরে বলা হয়েছে, ভারত নিয়ন্ত্রিত জম্মু-কাশ্মিরে নিরাপত্তা বাহিনীর সঙ্গে কথিত বন্দুকযুদ্ধে এক গেরিলা নিহত হয়েছে।

ফেসবুক গ্রুপে এ খবরে বন্ধু শহিদুল ইসলাম লিখেছেন, অতিরিক্ত বল প্রয়োগ হিতে বিপরীত হতে বাধ্য। অন্যদিকে আবদুল কাইয়ুম তার ভাষায় গেরিলাদের মুক্তিযোদ্ধা হিসেবে উল্লেখ করেছেন। 

এদিকে আবার ইসরাইলি হামলা প্রতিহত করেছে সিরিয়া- শীর্ষক খবরটি প্রকাশিত হয়েছে ১২ জুলাই। এ খবরে বলা হয়েছে, সিরিয়ার সামরিক বাহিনীর বিমান প্রতিরক্ষা ইউনিট আবারো ইহুদিবাদী ইসরাইলের ক্ষেপণাস্ত্র হামলা প্রতিহত করেছে। সিরিয়ার রাষ্ট্রীয় বার্তা সংস্থা সানা জানিয়েছে,কুনেত্রা প্রদেশে ইসরাইল ওই হামলা চালিয়েছে।

এ খবরে ফেসবুকের গ্রুপে যে সব মন্তব্য হয়েছে তা থেকে প্রতিনিধিত্বশীল বক্তব্য তুলে ধরার চেষ্টা করবো। হ্যাঁ পাঠক বন্ধু, মোহাম্মদ হযরত আলী লিখেছেন শুধু প্রতিরোধ করলেই হবে না পাল্টা আক্রমণ চালাতে হবে।

বহলুল: মনের কথাগুলো পাঠক বন্ধুদের মুখ দিয়ে চলে আসে। সত্যিই উজ্জীবিত হওয়ার মতোই ঘটনা।

এভাবেই পাঠক বন্ধুদের সাড়া আমাদের দিনে দিনে আরো উজ্জীবিত করে তুলছে। এদিকে ইরানের তেল বিক্রি: কঠোর অবস্থান থেকে আমেরিকার পশ্চাদপসরণ- শীর্ষক খবরটি প্রকাশিত হয়েছে ১১ জুলাই। এ খবরে বলা হয়েছে মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাইক পম্পেও বলেছেন,তার দেশ ইরানের তেল কেনার ওপর আরোপিত নিষেধাজ্ঞা থেকে কিছু দেশকে ছাড় দেয়ার বিষয়টি পর্যালোচনা করে দেখবে।

ফেসবুক গ্রুপে এ খবরে পাইলট জাহাংগীর লিখেছেন, পৃথিবীতে যত দেশ আছে তার মধ্যে ২টি দেশকে আমেরিকা ভয় করে একটি হলো ইরান অন্যটি উত্তর কোরিয়া।

দারুণ বলেছেন ভাই। আপনাকে অনেক অনেক ধন্যবাদ। এদিকে দেখতে দেখতে আজকের আসরের সময়ও শেষ হয়ে এসেছে। আপনারা যারা চিঠি লিখেছেন, ইমেইল করেছেন এবং রেডিও তেহরানের ফেসবুক গ্রুপের খবরে মন্তব্য করেছেন তাদের সবাইকে অসংখ্য ধন্যবাদ জানিয়ে আজ এখানেই গুটিয়ে নিচ্ছি প্রিয়জনের আসর। #

খবরসহ আমাদের ওয়েবসাইটে প্রকাশিত সব লেখা ফেসবুকে পেতে এখানে ক্লিক করুন এবং নোটিফিকেশনের জন্য লাইক দিন 

২০১৮-০৯-১০ ১৬:১০ বাংলাদেশ সময়
মন্তব্য