সুপ্রিয় পাঠক/শ্রোতা! ১২ সেপ্টেম্বর বুধবারের কথাবার্তার আসরে স্বাগত জানাচ্ছি আমি বাবুল আখতার। আশা করছি আপনারা প্রত্যেকে ভালো আছেন। আসরের শুরুতে ঢাকা ও কোলকাতার গুরুত্বপূর্ণ বাংলা দৈনিকগুলোর বিশেষ বিশেষ খবরের শিরোনাম তুলে ধরছি। এঐরপর গুরুত্বপূর্ণ কয়েকটি খবরের বিশ্লেষণে যাবো। বিশ্লেষণ করবেন সহকর্মী সিরাজুল ইসলাম।

বাংলাদেশের শিরোনাম:

  • পুঁজিবাজার বিকাশে সরকার নানা পদক্ষেপ নিচ্ছে: প্রধানমন্ত্রী-কালেরকণ্ঠ
  • কোটা সংস্কারসহ তিন দফা দাবিতে শিক্ষার্থীদের বিক্ষোভ-দৈনিক প্রথমআলো
  • রাজপথেই খালেদা জিয়ার মুক্তি: মওদুদ-দৈনিক যুগান্তর
  • জাতিসংঘের আমন্ত্রণে নিউইয়র্কে গেছেন ফখরুল-দৈনিক মানবজমিন
  • আদালতে আসেননি খালেদা জিয়া: অনুপস্থিতির বিষয়ে শুনানি কাল- দৈনিক নয়াদিগন্ত
  • গুজবের রহস্য উদঘাটনে তথ্য সেল গঠন করেছে তথ্য মন্ত্রণালয় ॥ তারানা হালিম-দৈনিক জনকণ্ঠ

ভারতের শিরোনাম:    

  • দেশে গণপিটুনিতে খুন হলেও ক্ষমতায় আসবে বিজেপিই, হুঙ্কার অমিত শাহের-আনন্দবাজার পত্রিকা
  • ফের হিন্দুত্বের তাস, ক্ষমতায় এলে রাম–পথ তৈরির প্রতিশ্রুতি কংগ্রেসের-দৈনিক আজকাল
  • আরও বিপাকে কেরলের বিশপ, সন্ন্যাসিনীকে ধর্ষণের পর মাদারকে হুমকির অভিযোগ

পাঠক/শ্রোতা! এবারে গুরুত্বপূর্ণ কয়েকটি খবরের বিশ্লেষণে যাব। জনাব সিরাজুল ইসলাম কথাবার্তার আসরে আপনাকে স্বাগত জানাচ্ছি।

কথাবার্তা:

আগামী একনেকের বৈঠকে ইভিএম অনুমোদন দেয়া হবে বলে জানিয়েছেণ পরিকল্পনামন্ত্রী আ হ ম মোস্তফা কামাল। কীভাবে দেখছেন বিষয়টিকে?

২. ইয়েমেন ইস্যুতে এবার মুখ খুলেছে পাকিস্তান: ক্রমেই একা হয়ে পড়ছে সৌদি আরব...এরকম একটি খবর আন্তর্জাতিক গণমাধ্যমে এসেছে। আপনার বিশ্লেষণ কী?

পুঁজিবাজার বিকাশে সরকার নানা পদক্ষেপ নিচ্ছে: প্রধানমন্ত্রী-কালেরকণ্ঠ

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, দেশের আর্থিক খাতের অন্যতম স্তম্ভ হচ্ছে পুঁজিবাজার। এর বিকাশে সরকার নানা পদক্ষেপ নিচ্ছে। ভারত চীনসহ বিভিন্ন দেশ বাংলাদেশের পুঁজিবাজার নিয়ে আগ্রহী হয়েছে। এরই মধ্যে চীন বাংলাদেশের পুঁজিবাজারে বিনিয়োগ করেছে। আজ বুধবার বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে পুঁজিবাজারের ২৫ বছর রজতজয়ন্তী উপলক্ষ্যে আয়োজিত অনুষ্ঠানে তিনি কথা বলেন।তিনি আরো বলেন, আপনারা দেখে, শুনে, বুঝে ভালো কোম্পানিতে বিনিয়োগ করবেন। বাংলাদেশের পুঁজিবাজার হবে দীর্ঘমেয়াদি বিনিয়োগের ফান্ড। প্রধানমন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশের প্রবৃদ্ধি এখন ৭ দশমিক ৮ ভাগে উন্নিত হয়েছে। মূল্যস্ফীত এখন ৫ দশমিক ৪ ভাগে নেমেছে। প্রবৃদ্ধি যথন উচ্চ থাকে এবং মূল্যস্ফীতি যখন নিম্ন থাকে তখন অর্থনৈতিক সুফল জনগণ ভোগ করতে পারে। এখন প্রবৃদ্ধি বেশি ও মূল্যস্ফীতি কম হওয়ায় সাধারণ মানুষ এর সুফল ভোগ করছে। শেখ হাসিনা বলেন, সাধারণত বর্ষাকালে জিনিসপত্রের দাম বাড়ে। কিন্তু এবারের বর্ষায় দাম বাড়েনি। খাদ্যপণ্য জনগণের ক্রয়ক্ষমতার মধ্যেই আছে। তিনি আরো বলেন, আওয়ামী লীগ সরকার ক্ষমতায় আসার পর মানুষের দিন বদল হয়েছে, ভাগ্য বদল হয়েছে, আর্থসামাজিক উন্নয়ন হয়েছে, শিল্পায়ন হয়েছে। দেশ ডিজিটালাইজেশনের অন্তর্ভুক্ত হয়েছে। ১৬ কোটি মানুষের দেশে ১৩ কোটি মানুষ মোবাইল ব্যবহার করছে।

কোটা সংস্কারসহ তিন দফা দাবিতে শিক্ষার্থীদের বিক্ষোভ -দৈনিক প্রথম আলো

সরকারি চাকরিতে কোটা সংস্কারের প্রজ্ঞাপন না দিয়ে ৪০তম বিসিএসের বিজ্ঞপ্তি প্রকাশের প্রতিবাদে বিক্ষোভ করেছেন আন্দোলনকারীরা। আজ বুধবার ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় এলাকায় কোটা সংস্কারসহ তিন দফা দাবিতে শিক্ষার্থীরা বিক্ষোভ করেন। সেখানে তাঁরা দাবি না মানা পর্যন্ত আন্দোলন চালিয়ে যাওয়ার ঘোষণা দেন। মিছিলটি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের বিজ্ঞান গ্রন্থাগারের সামনে থেকে বের হয়ে শাহবাগের পাবলিক লাইব্রেরির হয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় লাইব্রেরির সামনে যায়। আন্দোলনকারীরা সেখানে কোটা সংস্কারের প্রজ্ঞাপন ছাড়া ৪০তম বিসিএসের বিজ্ঞপ্তি ছাত্রসমাজ মানে না বলে স্লোগান দিতে থাকেন। এরপর তাঁরা আবার মিছিল বের করেন। মিছিল বিশ্ববিদ্যালয়ের কলাভবন, ব্যবসায় শিক্ষা অনুষদ, মুহসীন হল, ভিসি চত্বর হয়ে টিএসসির রাজু ভাস্কর্যের সামনে সংক্ষিপ্ত সমাবেশ করে। সমাবেশে বাংলাদেশ সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদের যুগ্ম আহ্বায়ক নুরুল হক বলেন, ‘কোটা সংস্কার যৌক্তিক দাবি সত্ত্বেও এই আন্দোলনে ছাত্রদের ওপর হামলা করা হয়েছে এবং মামলা দেওয়া হয়েছে। আমরা কোটা বাতিল চাইনি। প্রধানমন্ত্রী কোটা বাতিলের ঘোষণা দিয়েছেন। প্রধানমন্ত্রী চাইলে কোটা বাতিল করতে পারেন। তবে কোটা সংস্কার করলে পাঁচ দফার আলোকে করতে হবে। আন্দোলনকারীদের তিন দফা হলো ছাত্রদের ওপর মিথ্যা মামলা প্রত্যাহার করা, তাঁদের ওপর হামলাকারীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দেওয়া ও পাঁচ দফার আলোকে কোটা সংস্কার করা।

খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে বিএনপির গণঅনশন-ইত্তেফাক

বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার নিঃশর্ত মুক্তি ও সুচিকিৎসার দাবিতে প্রতীকী গণঅনশন শুরু করেছে বিএনপি। বুধবার সকাল ১০টায় রাজধানীর ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশন অব বাংলাদেশ (আইইবি) মিলনায়তনে এ গণঅনশন শুরু হয়। গণঅনশন চলবে দুপুর ১২টা পর্যন্ত।দলের মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর দেশের বাইরে যাওয়ায় গণঅনশনে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত রয়েছেন স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন। অনশনে উপস্থিত আছেন-বিএনপির জাতীয় স্থায়ী কমিটির সদস্য মওদুদ আহমদ, ড. আবদুল মঈন খান, ভাইস চেয়ারম্যান চৌধুরী কামাল ইবনে ইউসুফ, সেলিমা রহমান, আহমেদ আযম খান, ডা. এজেড এম জাহিদ হোসেন, নিতাই রায় চৌধুরী, চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা আমান উল্লাহ আমান প্রমুখ।

রাজপথেই খালেদা জিয়ার মুক্তি: মওদুদ-দৈনিক যুগান্তর

বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ বলেছেন, সরকার চায় না খালেদা জিয়া জামিনে মুক্তি পা ক। সেই জন্য আইনি প্রক্রিয়ায় তার মুক্তি সম্ভবপর নয়। তার মুক্তির একটিই পথ- সেটি হল রাজপথ।

বুধবার ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশন চত্বরে আয়োজিত প্রতীকী অনশন কর্মসূচিতে দলের নেতাকর্মী ও সমর্থকদের উদ্দেশে তিনি এসব কথা বলেন। মওদুদ বলেন, মূল মামলায় জামিন হওয়ার পরও সরকার ষড়যন্ত্র করে খালেদা জিয়াকে কারাগারে বন্দি করে রেখেছে। খালেদা জিয়াকে ছাড়া, বিএনপিকে ছাড়া অংশগ্রহণমূলক নির্বাচন হবে না। তাই স্পষ্ট করে বলতে চাই- সরকার যতই ষড়যন্ত্র করুক না কেন, ২০১৪ সালের মতো একতরফা নির্বাচন দেশে আর হতে দেয়া হবে না। সভাপতির বক্তব্যে ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন বলেন, বারবার জনগণের সঙ্গে প্রতারণা করা যায় না। ২০১৪ সালের ৫ জানুয়ারির মতো নির্বাচন এ দেশে আর হবে না। আজ সারা দেশ ঐক্যবদ্ধ হয়েছে। আগামী নির্বাচন হতে হবে নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে। শেখ হাসিনার অধীনে কোনো নির্বাচন হবে না।

ড. মোশাররফ বলেন, আগামী নির্বাচনে খালেদা জিয়ার নেতৃত্বে আমরা অংশগ্রহণ করব এবং এ দেশের জনগণ খালেদা জিয়ার নেতৃত্বে একটি প্রতিনিধিত্বশীল সরকার গঠন করবে। আপনারা যারা প্রশাসনের লোক আওয়ামী লীগের হয়ে কাজ করছেন, আপনাদের কিন্তু প্রজাতন্ত্রের কর্মচারী হিসেবে ভবিষ্যতেও কাজ করতে হবে।

দুপুর ১২টা ৫ মিনিটে বিএনপি নেতাদের পানি পান করিয়ে প্রতীকী অনশন ভাঙান ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক উপাচার্য অধ্যাপক ড. এমাজউদ্দীন আহমদ।

জাতিসংঘের আমন্ত্রণে নিউইয়র্কে গেছেন ফখরুল-দৈনিক মানবজমিন

জাতিসংঘ মহাসচিব অ্যান্টোনিও গুতেরেসের আমন্ত্রণে নিউইয়র্ক গেছেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। মঙ্গলবার রাত পৌনে দুইটায় এমিরেটস এয়ারলাইন্সের একটি ফ্লাইটে যুক্তরাষ্ট্রের উদ্দেশে ঢাকা ছেড়ে যান তিনি। মির্জা আলমগীরের সঙ্গে গেছেন দলের নির্বাহী কমিটির সদস্য তাবিথ আউয়াল। বিএনপির আরও দুয়েকজন নেতা নিউইয়র্ক যাওয়ার কথা রয়েছে। দলের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের উপদেষ্টা বিএনপির সহ-আন্তর্জাতিক সম্পাদক হুমায়ুন কবির লন্ডন থেকে নিউইয়র্কে গিয়ে সে বৈঠকে অংশ নেবেন। সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, আগামীকাল বৃহস্পতিবার জাতিসংঘ সদর দপ্তরে অনুষ্ঠেয় এক বৈঠকে বাংলাদেশের সার্বিক পরিস্থিতি, খালেদা জিয়ার কারামুক্তি ও আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচন নিয়ে বিএনপির পর্যবেক্ষণ ও মতামত তুলে ধরবেন দলটির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। বৃহস্পতিবার নিউইয়র্র্কে স্থানীয় সময় সকাল সাড়ে ১০টায় জাতিসংঘ সদর দপ্তরে সংস্থাটির রাজনীতিবিষয়ক সহকারী সেক্রেটারি জেনারেল মিরোস্লাভ জেনকার সঙ্গে এ বৈঠক করবেন বিএনপি নেতারা। এছাড়া সফরে যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের উচ্চপদস্থ কর্মকর্তাদের সঙ্গে বিএনপির প্রতিনিধি দলের একটি বৈঠক হতে পারে।

সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, বিগত ২৪শে আগস্ট জাতিসংঘ মহাসচিবের পক্ষে রাজনীতিবিষয়ক সহকারী মহাসচিব মিরোস্লাভ জেনকা বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম বরাবর একটি চিঠি পাঠান। এতে জাতিসংঘ মহাসচিবের বাংলাদেশ সফরে বিএনপির নেতাদের সঙ্গে সাক্ষাৎ না হওয়ায় দুঃখ প্রকাশ করে দলটির নেতাদের জাতিসংঘের সদর দপ্তরে আমন্ত্রণ জানানো হয়। দেশের প্রধান দুই নেত্রীর বাইরে বাংলাদেশে একটি প্রধান রাজনৈতিক দলের মহাসচিবকে জাতিসংঘ মহাসচিবের চিঠি দেওয়া বা আমন্ত্রণ জানানোর ঘটনা এই প্রথম। বিএনপি সূত্রে জানা গেছে, বৈঠকে আলোচনার বিষয়বস্তুর মধ্যে রয়েছে- দেশের সার্বিক রাজনৈতিক পরিস্থিতি, মানবাধিকার পরিস্থিতি ও আগামী জাতীয় নির্বাচন। জাতীয় নির্বাচন নিয়ে বিএনপি, ২০ দলীয় জোট ও বৃহত্তর ঐক্য প্রক্রিয়ায় সংযুক্ত রাজনৈতিক দলগুলোর যেসব দাবি রয়েছে তার পক্ষে তথ্য-উপাত্ত ও যুক্তি তুলে ধরে বৈঠকে উপস্থাপনের একটি লিখিত বক্তব্যও তৈরি করেছে বিএনপি। বিশেষ করে, সম্প্রতি অনুষ্ঠিত ৫টি সিটি নির্বাচনের ওপর ভিত্তি করে- ম্যানিপুলেশন অ্যান্ড ইনটিমিডেশন, হাউজ অব কার্ডস, এ নিউ মডেল অব ম্যানিপুলেটেড ইলেকশন, টেল অব ডেসপায়ের ও দ্য পাওয়ার প্লে- শীর্ষক ৫টি আলাদা প্রতিবেদন তৈরি করা হয়েছে। সেসব প্রতিবেদনে বর্তমান সরকার কিভাবে নির্বাচনে প্রভাব বিস্তার, অনিয়ম করে তার কৌশল ও চিত্র তুলে ধরা হয়। প্রতিবেদন এ সংক্রান্ত বিভিন্ন পত্রিকার খবর ও ছবিও উপস্থাপন করা হয়। বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে মামলার বিচার প্রক্রিয়া, তার মুক্তি প্রক্রিয়া বিলম্বিত হওয়া এবং বিএনপি নেতাকর্মীদের হত্যা, গুম, মামলা ও গ্রেপ্তার হয়রানির বিষয়গুলোও জাতিসংঘকে অবহিত করা হবে।

তবে জাতিসংঘের চিঠি, নেতাদের আমন্ত্রণ ও মহাসচিবের নিউইয়র্ক যাত্রা নিয়ে আনুষ্ঠানিকভাবে কোন বক্তব্য দেয়নি বিএনপি। এ ব্যাপারে প্রকাশ্যে কিছু বলতেও রাজি হননি দলটির নেতারা। বিষয়টি জানেন না বলেই জানিয়েছেন দলের সংশ্লিষ্ট সিনিয়র নেতারা। বিএনপি স্থায়ী কমিটির একজন সদস্য জানান, সোমবার দলের ভাইস চেয়ারম্যানদের সঙ্গে স্থায়ী কমিটির বৈঠকে একজন নেতা জাতিসংঘের চিঠির বিষয়টি জানতে চান। এ সময় চিঠির বিষয়টি নেতাদের জানান মির্জা আলমগীর। তিনি জানান, বিষয়টির দেখভাল করছেন দলের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান। বৈঠকের সার্বিক বিষয়গুলো অবহিত করতে নিউইয়র্ক থেকে লন্ডনে যাবেন মির্জা আলমগীর। দলের স্থায়ী কমিটির অন্য একজন সদস্য জানান, বিএনপি মহাসচিবসহ দলের নেতাদের জাতিসংঘে যাওয়ার বিষয়টি প্রকাশ হলে সরকারের তরফে প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টির আশঙ্কা ছিল। তাই বিষয়টি প্রকাশ করা হয়নি। বিএনপি মহাসচিব দেশে ফেরার পর পুরো বিষয় আনুষ্ঠানিকভাবে দেশবাসীর সামনে তুলে ধরবেন। বিএনপি চেয়ারপারসনের একান্ত সচিব এবিএম আবদুস সাত্তার বলেন, কয়েক মাস আগে বাংলাদেশের রাজনৈতিক, মানবাধিকারসহ সার্বিক পরিস্থিতি জানতে চেয়ে জাতিসংঘের পাঠানো একটি চিঠি পেয়েছিল বিএনপি। নতুন করে চিঠির কথা বা মহাসচিবের নিউইয়র্ক যাত্রার বিষয়টি এখন পর্যন্ত আমি জানি না।  

 আদালতে আসেননি খালেদা জিয়া: অনুপস্থিতির বিষয়ে শুনানি কাল- দৈনিক নয়াদিগন্ত

জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট মামলার বিচারে পুরাতন ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারে স্থাপিত আদালতে হাজির হননি বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া। কারা কর্তৃপক্ষ এ বিষয়ে আদালতে কাস্টরি ওয়ারেন্ট পাঠিয়েছে। এ বিষয়ে শুনানির জন্য আগামীকাল সময় নির্ধারণ করেছেন আদালত।

রাজধানীর নাজিমউদ্দিন রোডের পুরনো কেন্দ্রীয় কারাগারে অবস্থিত অস্থায়ী ঢাকার ৫ নং বিশেষ জজ ড. মো: আখতারুজ্জামান আদালতে আজ ‍বুধবার জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট মামলায় যুক্তি উপস্থাপনের দিন ধার্য ছিল। কিন্তু অসুস্থতার কারণে হাজির হননি খালেদা জিয়া। খালেদা জিয়ার পক্ষে আজ শুনানি করেন তার আইনজীবী সানাউল্লাহ মিয়া। তিনি আদালতকে বলেন, বেগম খালেদা জিয়া গুরুতর অসুস্থ হওয়ায় আদালতে হাজির হননি। এর আগেও তিনি তার অসুস্থতার কথা আদালতকে জানিয়েছেন।

তাছাড়া এ আদালত আইন ও সংবিধান অনুযায়ী হয়নি উল্লেখ করে সানাউল্লাহ মিয়া আদালতকে জানান, এ ব্যাপারে প্রধান বিচারপতির কাছে একটি আবেদন করা হয়েছে। আবেদনে প্রধান বিচারপতির অনুমোদন ছাড়া এ আদালত বসানোর বিষয়টি উল্লেখ করা হয়েছে। প্রধান বিচারপতি এ বিষয়ে এখনো কিছু বলেননি। অপরদিকে দুদকের পক্ষে পিপি মোশাররফ হোসেন কাজল আদালতকে বলেন, খালেদা জিয়া আজ এ আদালতে উপস্থিত হতে চাননি। তিনি সাবেক প্রধানমন্ত্রী তাই তাকে হাজিরের ব্যাপারে জোরজবরদস্তি করা হয়নি। তাই আইন অনুযায়ী পদক্ষেপ নেয়ার জন্য তিনি আদালতে আবেদন করেন। উভয় পক্ষের শুনানি শেষে আদালত খালেদা জিয়ার অনুপস্থিতির বিষয়ে শুনানির জন্য আগামীকাল দিন ধার্য করেন।

আজ এ মামলার অপর দুই আসামি জিয়াউল ইসলাম মুন্নার পক্ষে শুনানি করেন আইনজীবী আমিনুল ইসলাম এবং মনিরুল ইসলাম খানের পক্ষে আইনজীবী ছিলেন আখতারুজ্জামান। এ আইনজীবীরাও শুনানিতে এ আদালত আইন ও সংবিধান অনুযায়ী হয়নি বলে উল্লেখ করেন।

গুজবের রহস্য উদঘাটনে তথ্য সেল গঠন করেছে তথ্য মন্ত্রণালয় ॥ তারানা হালিম-দৈনিক জনকণ্ঠ

আজ বুধবার সচিবালয়ের নিজ কার্যালয়ে তথ্য প্রতিমন্ত্রী তারানা হালিম সাংবাদিকদের বলেছেন, ‘ফেসবুকসহ অন্যান্য সামাজিক মাধ্যমে যেসব গুজব রটানো হয়, সেসব গুজবের রহস্য উদঘাটনে তথ্য সেল গঠন করেছে তথ্য মন্ত্রণালয়। যেকোনও ধরনের গুজবের রহস্য ৩ ঘণ্টার মধ্যে উদঘাটন করে তা গণমাধ্যমকে জানানো হবে। প্রতিমন্ত্রী বলেন, ‘এই তথ্য সেল ২৪ ঘণ্টা খোলা থাকবে। ৮ ঘণ্টা করে তিন শিফটে সংশ্লিষ্টরা দায়িত্ব পালন করবেন।’

তিনি আরও বলেন, ‘বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট এখন সম্প্রচারের ক্ষেত্রে পুরোপুরি কার্যকর। বাংলাদেশ টেলিভিশন বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইটের মাধ্যমে সাফ ফুটবল সম্প্রচার করছে। এর মাধ্যমে এখন থেকে বাংলাদেশ টেলিভিশনকে সম্প্রচার ফি বাবদ আর বছরে ৬ কোটি টাকা দেওয়া লাগবে না। এ কারণে দেশের বেসরকারি টিভি চ্যানেল কর্তৃপক্ষকে বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট ব্যবহারের অনুরোধ জানিয়ে তথ্য মন্ত্রণালয় থেকে চিঠি পাঠানো হয়েছে।’

এবার ভারতের কয়েকটি  খবর তুলে ধরছি।

দেশে গণপিটুনিতে খুন হলেও ক্ষমতায় আসবে বিজেপিই, হুঙ্কার অমিত শাহের-আনন্দবাজার পত্রিকা

১২৫ বছর আগে এই দিনটিতেই শিকাগোতে সহিষ্ণুতার বাণী শুনিয়েছিলেন স্বামী বিবেকানন্দ।  আর আজ বিজেপির সভাপতি অমিত শাহ জানিয়ে দিলেন, গণপিটুনিতে মহম্মদ আখলাকের মতো কেউ খুনই হোন আর অসহিষ্ণুতার প্রতিবাদে কেউ পুরস্কারই ফেরান, ক্ষমতায় আসবে বিজেপিই। বিরোধীদের মতে, হত্যাকাণ্ড বা প্রতিবাদকে গুরুত্ব দেওয়ার প্রয়োজন আছে বলেই মনে করছে না বিজেপি।

ভোটমুখী রাজস্থানের রাজধানী জয়পুরে এ দিন সভা করেন বিজেপি সভাপতি। বিজেপির ফের ক্ষমতায় ফেরার সম্ভাবনা নিয়ে আরও সুর চড়ান তিনি। আর তা করতে গিয়ে টেনে আনেন উত্তরপ্রদেশের দাদরিতে গণপিটুনিতে হত্যার প্রসঙ্গ। দাদরিতে স্বঘোষিত গোরক্ষকদের হাতে মহম্মদ আখলাকের হত্যার অভিযোগ নিয়ে বেকায়দায় পড়েছিল নরেন্দ্র মোদী সরকার। দেশে অসহিষ্ণুতা বাড়ার প্রতিবাদে পুরস্কার ফিরিয়ে দেন বিশিষ্ট জনেদের একাংশ। কিন্তু তার পরেও গত বছরে উত্তরপ্রদেশে জয় পেয়েছে বিজেপি। রাজস্থানের অলওয়ারেও স্বঘোষিত গোরক্ষকদের হামলায় মৃত্যুর অভিযোগ উঠেছে। রাজসমুন্দে অভিযোগ উঠেছে  ‘লাভ জেহাদ’-এ জড়িত সন্দেহে পুড়িয়ে মারার। রাজস্থানের বিজেপি সরকার এই ধরনের ঘটনা রুখতে কড়া পদক্ষেপ করছে না বলে অভিযোগ বিরোধীদের।

আজ জয়পুরের সভায় অমিত বলেন, ‘‘যখনই ভোট আসে তখনই এক দল লোক আখলাক হত্যার প্রসঙ্গ তোলেন। বিশিষ্ট জনেদের একাংশ পুরস্কার ফিরিয়ে দেন। কিন্তু এ সব ঘটনায় বিজেপির জয় আটকানো যায়নি। আমরা আগেও জিতেছি। এ বারও জিতব।’’ তাঁর কথায়, ‘‘মানুষকে প্রশ্ন করুন তাঁরা রাহুল গাঁধীকে প্রধানমন্ত্রী, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে বিদেশমন্ত্রী আর মুলায়ম সিংহ যাদবকে প্রতিরক্ষামন্ত্রী হিসেবে দেখতে চান কি না?’’

বিরোধী ও নাগরিক সমাজের একাংশের মতে, অমিতের বক্তব্য থেকে বোঝাই যাচ্ছে বিজেপি এখন ক্ষমতার দম্ভে মত্ত হয়ে রয়েছে। বিজেপির ৫০ বছর দেশ শাসনের সম্ভাবনা প্রসঙ্গে কংগ্রেসের মুখপাত্র বলেছিলেন, ‘‘মুঙ্গেরিলাল কি হাসিন স্বপ্নে সিরিয়ালের মুখ্য চরিত্রের মতোই দিবাস্বপ্ন দেখছেন অমিত।’’ এ দিন বিজেপি সভাপতির পাল্টা খোঁচা, ‘‘কংগ্রেসের নেতারা সব নার্সারি রাইমের হাম্পটি ডাম্পটির মতো চরিত্র। অহঙ্কার ছাড়া তাঁদের মাথায় কিছু নেই।’’ কংগ্রেস নেতা রণদীপ সুরজেওয়ালার বক্তব্য, ‘‘পরাজয় সামনে দেখে মোদী-অমিত শাহদের হতাশা বাড়ছে। তাই অমার্জিত শব্দ ব্যবহার করছেন তাঁরা। এতে বিজেপি নেতাদের অহঙ্কারও ফুটে বেরোচ্ছে।’

ফের হিন্দুত্বের তাস, ক্ষমতায় এলে রামপথ তৈরির প্রতিশ্রুতি কংগ্রেসের-দৈনিক আজকাল

মধ্যপ্রদেশে ভোট যত এগিয়ে আসছে। কংগ্রেসের নরম হিন্দুত্বের তত্ত্ব ততটাই বেগ পাচ্ছে। রাজ্যের প্রতিটি পঞ্চায়েতে গোশালা তৈরির প্রতিশ্রুতির পর রাম–পথ তৈরির প্রতিশ্রুতি দিল মধ্যপ্রদেশের কংগ্রেস নেতৃত্ব। বর্ষীয়ান নেতা দিগ্বিজয় সিং মঙ্গলবার সাংবাদিক বৈঠকে জানিয়েছেন, ক্ষমতায় এলে রাজ্যের সীমান্তে রাম–পথ তৈরি করা হবে। নর্মদা পরিক্রমা পথও তৈরি করা হবে।

২০০৩ সালে বিজেপি মধ্যপ্রদেশে ক্ষমতায় আসার আগে একাধিক এলাকা জুড়ে রাম–পথ তৈরির প্রতিশ্রুতি দিয়েছিল। ২০০৭ সালে সতনা, পান্না, সান্দাল, জব্বলপুর এবং বিদিশা জেলা জুড়ে রাম–গমন–পথ তৈরির কথা ঘোষণাও করেন মুখ্যমন্ত্রী শিবরাজ সিং চৌহান। কিন্তু কার্যক্ষেত্রে তা আর গড়ে ওঠেনি। মঙ্গলবার দিগ্বিজয় সিং সাংবাদিক বৈঠকে বলেন, ‘‌বিজেপি প্রতিশ্রুতি দিয়েও আজও রাম–পথ তৈরি করেনি। আমরা ক্ষমতায় এলে রাজ্যের সীমান্তে রাম–পথ তৈরি হবে। নর্মদা পরিক্রমা পথও তৈরি হবে নর্মদার তীরে।’‌

এতদিন পর্যন্ত বিজেপির বিরুদ্ধে হিন্দুত্বের তাস খেলার অভিযোগ উঠত। কিন্তু এবার কংগ্রেসও একই রাস্তা অবলম্বন করেছে। অন্তত মধ্যপ্রদেশ নির্বাচনের আগে তেমনটাই দেখা যাচ্ছে। তবে কী বিজেপিকে হিন্দুত্বের তাসেই বধ করতে চাইছে কংগ্রেস? দিগ্বিজয়ের জবাব অবশ্য ‘না। বরং তাঁর দাবি, ‘‌উগ্র হিন্দুত্ব আর ধর্ম আলাদা জিনিস। ধর্মের কাজ করা মানেই উগ্র হিন্দুত্ব নয়।’‌

আরও বিপাকে কেরলের বিশপ, সন্ন্যাসিনীকে ধর্ষণের পর মাদারকে হুমকির অভিযোগ

কেরলে সন্ন্যাসিনী ধর্ষণের ঘটনায় লাগল নতুন রং৷ নিজের বিরুদ্ধে ওঠা অভিযোগ খারিজ করে দিলেন বিশপ ফ্যাঙ্কো মুলাক্কেল৷ পালটা চক্রান্তের অভিযোগে সরব তিনি৷ বিশপের অভিযোগজলন্ধরের চার্চ বিরোধী কয়েকজন মানুষ সিস্টারদের কাজে লাগিয়ে তার বিরুদ্ধে ধর্ষণের চক্রান্ত করেছেন। তিনি আরও বলেন, কিছু সুবিধাভোগী মানুষ সিস্টারদের সামনে রেখেই এই পরিস্থিতির সুযোগ নিচ্ছেন।

বিশপ ফ্যাঙ্কো মুলাক্কেল বলেন, পুলিশ তাকে একটানা ন’ঘণ্টা ধরে জেরা করেছে। ‘নির্যাতিতা’ ওই সন্ন্যাসিনীর বয়ানও রেকর্ড করেন পুলিশ আধিকারিকরা। কেরল হাইকোর্ট সরকারকে নির্দেশ দিয়েছে সন্ন্যাসিনীর অভিযোগের ভিত্তিতে একটি তদন্ত কমিটি গঠন করার। বিশপ মুলাক্কেলের বিরুদ্ধে ২০১৪ থেকে ২০১৬ সালের মধ্যে একাধিকবার ধর্ষণ ও অস্বাভাবিক যৌনাচারের অভিযোগ এনেছেন ওই সন্ন্যাসিনী। সেই অভিযোগের ভিত্তিতেই দুজনকে জেরা করার পর নির্যাতিতা ও বিশপের বক্তব্যে কিছু অসঙ্গতি খুঁজে পেয়েছেন তদন্তকারীরা। এতেই পুলিশের মনে সন্দেহ দানা বাঁধে৷ আধিকারিকরা খতিয়ে দেখছেন বিশপ না নির্যাতিতা, আদতে কার অভিযোগ সত্যি।

কোচিতে বিশপকে গ্রেপ্তারের দাবিতে পথে নামেন অন্যান্য সন্ন্যাসিনীরা। ধর্ষণের পর এবার নতুন এক অভিযোগ এনেছেন প্রতিবাদীরা৷ তাঁদের দাবি, ‘‘প্রতিবাদে নামার সময়ই তাঁরা জানতেন না কার অভিযোগ সত্যি আর কে মিথ্যে বলছেন৷ আমরা এ বিষয়ে মাদার জেনারেল রেজিনাকে অভিযোগও জানিয়েছে৷ কিন্তু ওই  মাদার বিশপ ফ্যাঙ্কো মুলাক্কেলেরই পাশে রয়েছেন৷ বিশপকে সমর্থন না করলে তিনি পদচ্যুত হতে পারেন বলে রীতিমতো আতঙ্কে দিন কাটাচ্ছেন মাদার জেনারেল রেজিনা। সন্ন্যাসিনীকে ধর্ষণের অভিযোগ, সম্পূর্ণ মিথ্যা বলেই দাবি করেছেন বিশপ ফ্যাঙ্কো মুলাক্কেল৷ ঠিক সেই সময় প্রতিবাদীদের নতুন অভিযোগে অস্বস্তিতে বিশপ।

 পার্সটুডে/বাবুল আখতার/১২

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

২০১৮-০৯-১২ ১৭:১৫ বাংলাদেশ সময়
মন্তব্য