• গোলটেবিলে বিশিষ্টজনেরা; দলীয় সরকারের অধীনে সুষ্ঠু নির্বাচন সম্ভব না

সুপ্রিয় পাঠক/শ্রোতা! ১৬ সেপ্টেম্বর রোববারের কথাবার্তার আসরে স্বাগত জানাচ্ছি আমি বাবুল আখতার। আশা করছি আপনারা প্রত্যেকে ভালো আছেন। আসরের শুরুতে ঢাকা ও কোলকাতার গুরুত্বপূর্ণ বাংলা দৈনিকগুলোর বিশেষ বিশেষ খবরের শিরোনাম তুলে ধরছি।

বাংলাদেশের শিরোনাম:

  • গোলটেবিলে বিশিষ্টজনেরা; দলীয় সরকারের অধীনে সুষ্ঠু নির্বাচন সম্ভব না-দৈনিক প্রথম আলো
  • আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রাখা উন্নয়নের পূর্বশর্ত: প্রধানমন্ত্রী-ইত্তেফাক 
  • খালেদা জিয়ার স্বাস্থ্য পরীক্ষার প্রতিবেদন দাখিল- দৈনিক কালেরকণ্ঠ
  • মেডিকেল বোর্ডে খালেদা জিয়ার সঠিক চিকিৎসা হবে না: বিএনপি-দৈনিক যুগান্তর
  • ডাকসু নির্বাচন নিয়ে আলোচনায় ঢাবি প্রশাসন- দৈনিক মানবজমিন
  • শেখ হাসিনার নেতৃত্বে দেশের সব সেক্টরে উন্নয়ন হয়েছে : নাসিম-দৈনিক জনকণ্ঠ

ভারতের শিরোনাম:

  • ১২ ঘণ্টা পরেও জ্বলছে বাগরি মার্কেট, চেষ্টা চলছে ভিতরে ঢোকার-দৈনিক আনন্দবাজার পত্রিকা
  • ২০৪৭ সালে আবার দেশ ভাগ হবে, মন্তব্য কেন্দ্রীয় মন্ত্রী গিরিরাজ সিংয়ের-দৈনিক আজকাল
  • জ্বালানির দাম বাড়লে আমার কী, কেন্দ্রীয় মন্ত্রীর মন্তব্যে বিতর্ক তুঙ্গে-সংবাদ প্রতিদিন

প্রিয় পাঠক/শ্রোতা‍! এবারে চলুন বাছাই করা কয়েকটি খবরের বিস্তারিত জেনে নেয়া যাক। প্রথমেই বাংলাদেশ:

গোলটেবিলে বিশিষ্টজনেরা;দলীয় সরকারের অধীনে সুষ্ঠু নির্বাচন সম্ভব না-দৈনিক প্রথম আলো

রাজধানীতে এক গোলটেবিল বৈঠকে বিশিষ্টজনেরা বলেছেন, শুধু সরকার চাইলেই সুষ্ঠু নির্বাচন সম্ভব। দলীয় সরকারের অধীনে সুষ্ঠু নির্বাচন হবে না। তাই সুষ্ঠু নির্বাচনের জন্য একমাত্রা দাবি হওয়া উচিত নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে জাতীয় নির্বাচন। আজ রোববার জাতীয় প্রেসক্লাবে গণপ্রতিনিধিত্ব আদেশ (আরপিও) ও সুষ্ঠু নির্বাচন শীর্ষক এ গোলটেবিল বৈঠকের আয়োজন করে সুশাসনের জন্য নাগরিক (সুজন)। আলোচনা সভায় বক্তারা ইভিএম সংযুক্ত করে আরপিও সংশোধনের সমালোচনা করে বলেন, আইনকে অস্ত্রে পরিণত করার চেষ্টা দেখছেন তাঁরা।সভাপতির বক্তব্যে সাবেক তত্ত্বাবধায়ক সরকারের উপদেষ্টা এম হাফিজউদ্দিন খান বলেন, এ দেশে কোনো নির্বাচন রাজনৈতিক সরকারের আমলে সুষ্ঠু হয়নি। সুতরাং দলীয় সরকারের অধীনে সুষ্ঠু নির্বাচন হবে না। নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে নির্বাচন করতে হবে। এটা জোরেশোরে দাবি হওয়া উচিত।

আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রাখা উন্নয়নের পূর্বশর্ত: প্রধানমন্ত্রী

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, শান্তি ও স্থিতিশীলতা বজায় থাকা এবং আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রাখা একটি দেশের উন্নয়নের জন্য গুরুত্বপূর্ণ এবং উন্নয়নের অন্যতম পূর্বশর্ত। তিনি বলেন, বাংলাদেশ পুলিশের সেবার মনভাব, সততা এবং আন্তরিকতা সমাজে শান্তি-শৃঙ্খলা প্রতিষ্ঠায় ভূমিকা রাখছে। শেখ হাসিনা আজ সকালে রংপুর এবং গাজীপুর পুলিশের দু’টি পৃথক মেট্রোপলিটন ইউনিটের উদ্বোধনকালে একথা বলেন। প্রধানমন্ত্রী তাঁর বাসভবন গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে সরকারি কর্মকর্তা এবং স্থানীয় জনগণ এবং রংপুর ও গাজীপুর পুলিশ লাইন্সের সঙ্গে সংযুক্ত থেকে এই ইউনিট দু’টির উদ্বোধন করেন। জননিরাপত্তা বিভাগের সচিব মোস্তফা কামাল উদ্দিন এবং পুলিশের আইজিপি ড. মোহাম্মদ জাভেদ পাটোয়ারি অনুষ্ঠানে বক্তৃতা করেন। মুখ্য সচিব মো. নজিবুর রহমান ভিডিও কনফারেন্সটি সঞ্চালনা করেন।

খালেদা জিয়ার স্বাস্থ্য পরীক্ষার প্রতিবেদন দাখিল- দৈনিক কালেরকণ্ঠ

দুর্নীতি মামলায় কারাবন্দি বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার স্বাস্থ্য পরীক্ষার প্রতিবেদন দাখিল করেছে মেডিক্যাল বোর্ড। আজ রবিবার বেলা পৌনে ১২টার দিকে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বিএসএমএমইউ) পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল আব্দুল্লাহ আল হারুনের হাতে এ প্রতিবেদন তুলে দেন মেডিক্যাল বোর্ডের প্রধান বিএসএমএমইউর মেডিসিন বিভাগের অধ্যাপক এম এ জলিল। এর আগে গত বৃহস্পতিবার খালেদা জিয়ার চিকিৎসার জন্য সরকার পাঁচ সদস্যের মেডিক্যাল বোর্ড গঠন করে। এর প্রেক্ষিতে পরদিন শনিবার দুপুরে পুরাতন কেন্দ্রীয় কারাগারে যান গঠিত মেডিক্যাল বোর্ড। এ ব্যাপারে মেডিক্যাল বোর্ডের প্রধান গণমাধ্যমকে বলেন, আমরা গতকাল (শনিবার) খালেদা জিয়ার স্বাস্থ্য পরীক্ষা করেছি। আজ সকাল ১০টা থেকে বোর্ডে ৫ সদস্য বসে দেড় ঘণ্টা পর্যালোচনা করে এ প্রতিবেদন তৈরি করেছি।  তিনি আরও বলেন, খালেদা জিয়ার চিকিৎসায় কী কী করণীয় তা প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়েছে। তার চিকিৎসায় অনেক কিছুই করণীয় আছে। কোথায় চিকিৎসা হওয়া দরকার সে বিষয়েও পরামর্শ দেওয়া আছে। পাশাপাশি রোগের বর্ণনাও রয়েছে।

মেডিকেল বোর্ডে খালেদা জিয়ার সঠিক চিকিৎসা হবে না: বিএনপি-দৈনিক যুগান্তর

সরকার গঠিত মেডিকেল বোর্ডের চিকিৎসকদের দিয়ে খালেদা জিয়ার সঠিক ও উপযুক্ত চিকিৎসা হবে না এবং তার স্বাস্থ্যের দ্রুত অবনতি হচ্ছে বলে জানিয়েছেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশররফ হোসেন। রোববার বেলা ১১টায় নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে দলটির স্থায়ী কমিটি সদস্য খন্দকার মোশাররফ হোসেন বলেন, এ মেডিকেল বোর্ড নিয়ে তারা অসন্তুষ্ট। তিনি বলেন, আমরা মনে করি না যে সরকারদলীয় চিকিৎসকদের দিয়ে দেশনেত্রী খালেদা জিয়ার উপযুক্ত চিকিৎসা হবে। এটি আমরা বিশ্বাস করতে পারছি না।আগে যারা খালেদার চিকিৎসা করতেন, তাদের অন্তর্ভুক্ত করে নতুন করে মেডিকেল বোর্ড করে সেই বোর্ডের মাধ্যমে বিএনপি চেয়ারপারসনকে চিকিৎসা দেয়ার দাবি জানান দলটির এ জ্যেষ্ঠ নেতা।

ডাকসু নির্বাচন নিয়ে আলোচনায় ঢাবি প্রশাসন- দৈনিক মানবজমিন

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদ (ডাকসু) এর নির্বাচন নিয়ে সক্রিয় ছাত্র সংগঠনগুলোর সঙ্গে আলোচনায় বসেছে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন। আজ রবিবার সকাল ১১টা ৪০ মিনিটে উপাচার্যের কার্যালয় সংলগ্ন আব্দুল মতিন ভার্চুয়াল ক্লাসরুমে এ সভা শুরু হয়। আলোচনা সভায় উপস্থিত রয়েছেন, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো.আখতারুজ্জামান, উপ-উপাচার্য (শিক্ষা) অধ্যাপক নাসরীন আহমাদ, উপ উপাচার্য (প্রশাসন) মুহম্মদ সামাদ, প্রক্টর অধ্যাপক ড.একেএম গোলাম রব্বানী ও কোষাধ্যক্ষ ড. কামাল উদ্দিনসহ বিভিন্ন হলের প্রাধ্যক্ষরা। এদিকে আলোচনা সভায় ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শাখার সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক, কেন্দ্রীয় ছাত্রদলের সভাপতি ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শাখার সাধারণ সম্পাদক, ছাত্র ইউনিয়ন, ছাত্র ফেডারেশন, ছাত্র ফ্রন্ট, ছাত্র মৈত্রী, বিপ্লবী ছাত্র মৈত্রী, জাসদ ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় ও বিশ্ববিদ্যালয় শাখার নেতারা উপস্থিত আছেন।

শেখ হাসিনার নেতৃত্বে দেশের সব সেক্টরে উন্নয়ন হয়েছে : নাসিম-দৈনিক জনকণ্ঠ

জাতীয় নির্বাচনে ভোট প্রদানের আগে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাস্তবায়িত দেশের উন্নয়নসমূহ মনে রাখার জন্য দেশের জনগনের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম। তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে দেশের সব সেক্টরে উন্নয়ন সাধিত হয়েছে, যা জাতীয় ও আন্তর্জাতিকভাবে স্বীকৃত। যোগ্য নেত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বাধীন দলকেই ভোট দিতে হবে। ভুল করলে দেশ আবার অন্ধকারে নিমজ্জিত হবে। থেমে যাবে দেশের উন্নয়নের গতি। দেশের উন্নয়নের বর্তমান স্রোতে অব্যাহত থাকলে খুব শীঘ্রই বাংলাদেশ এশিয়ার অন্যতম সেরা দেশ হবে। বুধবার রাজধানীর তেজগাঁওস্থ জাতীয় নাক, কান ও গলা ইনস্টিটিউট আয়োজিত কক্লিয়ার ইমপ্লান্ট বরাদ্দ বিতরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

এবার ভারতের কয়েকটি  খবর তুলে ধরছি।

১২ ঘণ্টা পরেও জ্বলছে বাগরি মার্কেট, চেষ্টা চলছে ভিতরে ঢোকার-দৈনিক আনন্দবাজার পত্রিকা

ফিরে এল ১০ বছর আগের নন্দরাম মার্কেট অগ্নিকাণ্ডের ভয়াবহ স্মৃতি।

ফের ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ড কলকাতায়। শনিবার রাত আড়াইটে নাগাদ আগুন লাগে মধ্য কলকাতার ক্যানিং স্ট্রিটের বাগরি মার্কেটের একটি ছ’তলা বাড়িতে। দ্রুত খবর দেওয়া হয় দমকলে। স্থানীয়রা জানিয়েছেন, শুধু এই বাড়িটিতেই হাজার খানেক দোকান ছিল। আগুন লাগার কারণ সঠিক ভাবে জানতে না পারলেও দমকল এবং পুলিশ প্রাথমিক ভাবে মনে করছে, শর্ট সার্কিট থেকেই এই অগ্নিকাণ্ড। আগুন নেভাতে গিয়ে আহত হয়েছেন এক দমকল কর্মী। দমকল ও পুলিশ সূত্রে খবর, দমকলের ৩০টি ইঞ্জিন আগুন নেভানোর কাজ করছে। আগুন লাগার খবর পেয়ে রাতেই ঘটনাস্থলে পৌঁছন মেয়র তথা দমকলমন্ত্রী শোভন চট্টোপাধ্যায়, পুলিশ কমিশনার-সহ উচ্চ পদস্থ আধিকারিকরা। রাত আড়াইটে নাগাদ আগুন লাগলেও রবিবার সকাল ৯টা নাগাদও বাড়িটির দোতলার বেশি উঠতে পারেননি দমকম কর্মীরা। আগুনের তীব্রতা এতটাই বেশি যে, গোটা এলাকা কালো ধোঁয়ায় ঢেকে যায়। দমকলকর্মীরা বাড়িটির জানলা ও শাটার ভেঙে ভিতরে ঢোকার চেষ্টা করছেন।

২০৪৭ সালে আবার দেশ ভাগ হবে, মন্তব্য কেন্দ্রীয় মন্ত্রী গিরিরাজ সিংয়ের

বিজেপি নেতা তথা কেন্দ্রীয় মন্ত্রী গিরিরাজ সিং আবারও বেফাঁস মন্তব্য করে শিরোনামে এলেন। এবার তিনি জানালেন, ২০৪৭ সালে ভারত আবার ভাগ হবে। ১৯৪৭ সালে ধর্মের ভিত্তিতে দেশভাগ হয়েছিল, ২০৪৭ সালে ফের তার পুনরাবৃত্তি হবে। তিনি আরও জানান, এই ৭২ বছরে দেশের জনসংখ্যা ৩৩ কোটি থেকে ১৩৫.‌৭ কোটি দাঁড়িয়েছে। আর এটাই কারণ দেশভাগ হওয়ার জন্য।

কোনও সম্প্রদায়ের নাম না নিয়ে কেন্দ্রীয় মন্ত্রী তাঁর টুইটারে বলেন, ‘বিচ্ছিন্নতাবাদী শক্তির সংখ্যা সমষ্টিগতভাবে বেড়ে গিয়েছে। ফলে আগামী দিনে এই দেশের নাম ভারত নাও থাকতে পারে।’‌‌ জম্মু–কাশ্মীরে সংবিধানের ৩৫এ ধারায় এ রাজ্যকে বিশেষ মর্যাদা দেওয়া নিয়ে চলা বিতর্ক প্রসঙ্গেও গিরিরাজ সিং বলেন, ‘‌১৯৪৭ সালে ধর্মের ভিত্তিতে দেশভাগ হয়েছিল। ২০৪৭ সালেও একই অবস্থা তৈরি হবে। ৭২ বছরে চারগুণের বেশি জনসংখ্যা বেড়েছে। আগামী দিনে ভারতকে এই নামে ডাকাও অসম্ভব হয়ে উঠবে।’‌ সম্প্রতি এক জাতীয় সংবাদমাধ্যমকে দেওয়া সাক্ষাতকারে কেন্দ্রীয় মন্ত্রী জানান, জনসংখ্যা ক্রমাগত বেড়ে চলা ভারতের এক বড় সমস্যা। সংসদে এ সংক্রান্ত বিতর্ক চলার সময় গিরিরাজ সিং জানিয়েছিলেন, জনসংখ্যা বাড়ার পেছনে সংখ্যালঘুরাই দায়ি। জনসংখ্যা রোধের জন্য কড়া আইন তৈরি না হলে দেশকে পরবর্তীকালে ভুগতে হবে বলেও মনে করছেন গিরিরাজ সিং।

জ্বালানির দাম বাড়লে আমার কী, কেন্দ্রীয় মন্ত্রীর মন্তব্যে বিতর্ক তুঙ্গে- দৈনিক সংবাদ প্রতিদিন

বাড়তে থাকা জ্বালানির খরচ সামাল দিতে মাথায় হাত পড়েছে দেশের সাধারণ মানুষের৷ এসব নিয়ে ইতিমধ্যে চড়তে শুরু করেছে রাজনৈতিক উত্তেজনা৷ কেন্দ্রের মোদি সরকারের বিরুদ্ধে মধ্যবিত্তের মনে জমতে শুরু করেছে ক্ষোভ৷ এমন অবস্থায় সেই ক্ষোভের আগুনে ঘৃতাহুতি দিলেন মোদির মন্ত্রিসভার সদস্য রামদাস আঠাওয়ালে৷ তিনি মন্ত্রী, তাই জ্বালানির দাম বাড়লে তাঁর কিছুই যায় আসে না! এমনই বিতর্কিত মন্তব্য করে বসলেন কেন্দ্রের সামাজিক ন্যায়বিচার ও ক্ষমতায়ন দপ্তরের এই রাষ্ট্রমন্ত্রী৷

রাজস্থানের জয়পুরে একটি অনুষ্ঠানে যোগ দিতে যান রামদাস আঠাওয়ালে৷ সেখানেই এই বিতর্কিত স্বীকারোক্তি করেন তিনি৷ সকলের সামনেই বলেন, ‘জ্বালানির দাম বৃদ্ধির কোনও প্রভাবই আমি টের পাচ্ছি না৷ কারণ আমি একজন মন্ত্রী৷ বরং মন্ত্রীত্ব চলে গেলে আমি বেশি অসুবিধার মুখে পড়ব৷’ মন্ত্রীর এই মন্তব্যের পরেই কেন্দ্রের বিজেপি সরকারকে নিশানা করেছেন বিরোধীরা৷ জ্বালানির দাম বৃদ্ধিতে সাধারণ মানুষের চরম দুর্ভোগ হলেও কেন্দ্র নির্বিকার এবং এতে তাঁদের কিছুই আসে যায় না তা স্পষ্ট করেছেন রামদাস আঠাওয়ালের মন্তব্য৷ এমনই মত বিরোধীদের৷#

পার্সটুডে/বাবুল আখতার/১৬

খবরসহ আমাদের ওয়েবসাইটে প্রকাশিত সব লেখা ফেসবুকে পেতে এখানে ক্লিক করুন এবং নোটিফিকেশনের জন্য লাইক দিন

 

 

 

 

 

 

 

২০১৮-০৯-১৬ ১৩:৩৯ বাংলাদেশ সময়

 

 

 

 

ট্যাগ

২০১৮-০৯-১৬ ১৬:৪৯ বাংলাদেশ সময়
মন্তব্য