২০১৯-০৯-০২ ১৬:১১ বাংলাদেশ সময়

ক. আসরের শুরুতেই হাতে তুলে নিচ্ছি যে ইমেইল তা এসেছে বাংলাদেশে থেকে। রাজধানী ঢাকার গেন্ডারিয়া থেকে এটি পাঠিয়েছেন রেডিও তেহরানের পুরানো শ্রোতা ভাই জিল্লুর রহমান।

তিনি লিখেছেন, রেডিও তেহরানসহ অন্যান্য গণমাধ্যমের খবরে শুনলাম ইরানের সর্বোচ্চ নেতা আয়াতুল্লাহ আলী খামেনির অফিসসহ শীর্ষ স্থানীয় সামরিক কর্মকর্তাদের উপর বিশেষ নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেছে মার্কিন ট্রাম্প প্রশাসন়। এছাড়া, ইরান আমেরিকার চরম উত্তেজনা নিয়ে বেশ কিছুদিন যাবৎ রেডিও তেহরানে নানা প্রতিবেদন শুনছি এবং ওয়েবসাইট ও ফেইসবুক পাতায় পড়ছি।

খ. এরপর তিনি আরও লিখেছেন, আসলে, মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প ক্ষমতা গ্রহণ করে একের পর এক চরম  বিতর্কিত কিন্তু হটকারী সিদ্ধাস্ত গ্রহন করেই চলেছেন। তিনি ২০১৫ সালে ইরানের সাথে সম্পাদিত ছয় জাতীর পরমানু সমযোতা চুক্তি থেকে আমেরিকাকে সম্পূর্ণ একতরফাভাবে প্রত্যাহার করে নেন। চুক্তিতে অনুস্বাক্ষরকারী বাকী দেশগুলো ট্রাম্পের এ পদক্ষেপনকে চরম অপরিপক্ক সিদ্ধান্ত বলে অভিহিত করেছে। ইঙ্গ-মার্কিন জোট সম্পূর্ণ মিথ্যা অজুহাতে ২০০৩ সালে ইরাক আক্রমণ করেছিল যা পরবর্তীতে প্রমানিত হয়েছে। মনে হচ্ছে, ঠিক একইভাবে আমেরিকা পায়ে পাড়া দিয়ে ইরানের সাথে যুদ্ধ করতে চাইছে যা কোন বিবেকবান মানুষের জন্য কাম্য হতে পারে না। আমারতো মনে হয়, জন বোল্টন, মাইক পম্পেও, মোহাম্মদ বিন সালমানের মতো কিছু চরম ইরান বিদ্বেষী লোকের প্ররোচনায় ডোনাল্ড ট্রাম্প আগামী প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের একটি মোক্ষম এজেন্ডা বানিয়ে নির্বাচনে জয়লাভ করতে চাইছে।

ক. প্রশ্ন হচ্ছে, বুশের ন্যায় ইরাকের মতো আরেকটি অন্যায্য ও অন্যায় যুদ্ধ ইরানের উপর চাপিয়ে দেয়া হয় কী না, সেটা নিয়েই আমরা গভীরভাবে উদ্বিগ্ন? আমরা যুদ্ধ চাই না, শান্তি চাই। আসলে যুদ্ধ রক্তপাত ছাড়া আর কিছুই আনে না। আমেরিকা যদি ইরান আক্রমন করে তবে তা হবে চরম বোকামি ও মারাত্মক ভুল সিদ্ধান্ত।

বহলুল: ভুল মহাভুল হবে। ইরানের হুল খেয়ে হামলাকারীরা চিরতরে জ্ঞান হারাবে।

ক. যা বললেন বহুলুল ভাই। ধন্যবাদ ভাই জিল্লুর রহমান। ভবিষ্যতে আরও চিঠি দিবেন। হ্যা এরপর

বহলুল: না এবারে কবিতা আবৃত্তি শুনবো। অনেক দিন কবিতা শোনা হয় না।

খ. জ্বি কবিতাটা আবৃত্তি করেছেন বাংলাদেশের কবি হাসান বিন নজরুল। এটি তার লিখিত...

ক. ধন্যবাদ কবি হাসান বিন নজরুল। ...

বহলুল: না আর বিলম্ব নয়।

খ. জ্বি।  রেডিও তেহরানের ওয়েবসাইটে ২৬ জুন প্রকাশিত একটি খবরের শিরোনাম হলো গণপিটুনির ঘটনা আমাকে ব্যথিত করেছে: মোদি এ খবরে বলা হয়েছে, ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি ঝাড়খণ্ডে গণপিটুনিতে হত্যার ঘটনা প্রসঙ্গে বলেছেন, 'গণপিটুনির ঘটনা আমাকে ব্যথিত করেছে। অন্যদেরও হতবাক করেছে। আমরা সুবিচার নিশ্চিত করতে চাই। এই ঘটনা যাতে বারবার না ঘটে সেদিকে পদক্ষেপ করতে চাই।

ক. রেডিও তেহরানে ওয়েবসাইটের খবরটিতে মন্তব্য করেছেন পুরানো পাঠক ভাই জাফর পাঠান। তিনি লিখেছেন, মোদি সাহেব, আপনার এই ব্যথা আসল ব্যথা হয়ে থাকলে- দোষিদের ধরে খুনের দায়ে মৃত্যুদন্ড দিন, তাহলে বিশ্ববাসী বুঝবে যে আপনি মেকি নন বা সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির পক্ষে। এই খুনিরা দেশকে টুকরো টুকরো করে দিবে- যদি এদের বিচার না হয়।

বহলুল: এ খবরটি বড়ই বেদনার। একই সঙ্গে দোষীরা শাস্তি না পেলে না মানবজাতির জন্য ভয়ানক খবর।

খ. এদিকে ইরান-বিরোধী বাগাড়ম্বর বাড়িয়েছে ব্রিটেন শীর্ষক খবরটি প্রকাশিত হয়েছে ২৪ জুন। এ খবরে বলা হয়েছে, ইসলামি প্রজাতন্ত্র ইরানের বিরুদ্ধে বাগাম্বর বাড়িয়েছে ব্রিটেন। যখন দেশটির জুনিয়র পররাষ্ট্রমন্ত্রী অ্যান্ড্রু মুরিসন পারস্য উপসাগরীয় অঞ্চলে দৃশ্যত উত্তেজনা কমাতে চাইছেন তখন পররাষ্ট্রমন্ত্রী জেরেমি হান্ট ইঙ্গিত দিচ্ছেন যে, ইরানের বিরুদ্ধে সম্ভাব্য সামরিক অভিযানে আমেরিকার সঙ্গে লন্ডন যোগ দিতে পারে।

ক. এ খবরে অনেক মন্তব্যের মধ্যে ভাই দিপু শেখ আল আমিনের খবরটি হাতে তুলে নিচ্ছি। তিনি লিখেছেন, দুনিয়াতে যত বড় বড় অপকর্ম হইছে তার সবটার সাথেই ব্রিটেনে কোন না কোন ভাবে জড়িত আছে।

বহলুল: এ মন্তব্যের পর আর বলার কিছু নেই। চমৎকার মন্তব্য করার জন্য ধন্যবাদ । এদিকে আসরের সময় শেষ হয়ে এসেছে।#

ট্যাগ

মন্তব্য