জানুয়ারি ১৭, ২০২২ ১৯:৩২ Asia/Dhaka

বাংলাদেশের মন্ত্রিপরিষদ সচিব ড. খন্দকার আনোয়ারুল ইসলাম আজ হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করে বলেছেন, করোনার বিধিনিষেধ মানাতে পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণ করে দুই-তিন দিন পর অ্যাকশনে যাচ্ছে সরকার। এ বিষয়ে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীসহ সংশ্লিষ্টদের নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে।

আজ (সোমবার) সচিবালয়ে মন্ত্রপরিষদ বিভাগের সম্মেলন কক্ষে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে মন্ত্রিপরিষদ সচিব আরও বলেন, করোনার বিপর্যয় থেকে সুরক্ষার জন্য আমাদের সবাইকে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলতে হবে। অবশ্যই মাস্ক পরতে হবে। সরকার যে ১১ দফা নির্দেশনা দিয়েছে সেটাকে কার্যকর করতে হবে।

তবে বিশেষজ্ঞগণ বলছেন, সভা সমাবেশ, নির্বাচন, বাণিজ্যমেলা- এসব চালু রেখে  কতগুলি নির্দেশনা জারি করে সঙ্কট ঠেকানো যাবে না।

জনস্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞ ডাক্তার মোস্তাক আহমেদ জানিয়েছেন, ঢাকায় ওমিক্রনের গণসংক্রমণ শুরু হয়ে গেছে। এটা আরও বাড়বে।

এদিকে আজ সাপ্তাহিক মন্ত্রিসভার বৈঠকের পর নিজ কার্যালয়ে আয়োজিত ভিন্ন এক সংবাদ সম্মেলনে স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণমন্ত্রী জাহিদ মালেক বলেছেন, ‘দেশে ওমিক্রন ও ডেলটা ভ্যারিয়েন্টে আক্রান্তের সংখ্যা দিন দিন লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে। তাতে আমরা কিছুটা হলেও চিন্তিত ও আতঙ্কিত। আমরা চাই না যে, এভাবে বাড়ুক।’

এ সময় স্বাস্থ্যমন্ত্রী আরও বলেন, ‘গত ১৫ থেকে ২০ দিনে সংক্রমণ ১৮ শতাংশে উঠে গেছে। গতবার মাসব্যাপী ডেলটা ভ্যারিয়েন্ট ২৯ থেকে ৩০ শতাংশে উঠেছিল। এখন যে ধাপে ধাপে বাড়ছে, তাতে আমার মনে হয়—এভাবে বাড়লে ৩০ শতাংশে পৌঁছাতে বেশি সময় লাগবে না।’

দেশে যে হারে করোনার সংক্রমণ বাড়ছে, তাতে আগামী এক থেকে দেড় মাসের মধ্যে হাসপাতালে জায়গা দেওয়া যাবে না বলে মনে করছেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী। ওমিক্রনের সংক্রমণের হার ঢাকায় ৬৯ শতাংশ এবং ঢাকার বাইরে এর সংক্রমণ বাড়বে বলে আশঙ্কা প্রকাশ করেন তিনি।

অপরদিকে, জার্মানির গ্লোবাল ইনিশিয়েটিভ অন শেয়ারিং অল ইনফ্লুয়েঞ্জা তথ্যভাণ্ডার থেকে জানাগেছে, করোনাভাইরাসের নতুন ভ্যারিয়েন্ট ওমিক্রন বাংলাদেশে ৫৫ জনের শরীরে শনাক্ত হয়েছে। আজ নতুন করে যে ২২ জনের মধ্যে ওমিক্রন সনাক্ত হয়েছে তাদের ১২ জনই রাজধানীর মহাখালীর বাসিন্দা। বাকিদের মধ্যে উত্তরার চার জন, বাসাবোর দু’জন এবং চাঁনখারপুল এলাকার বাসিন্দা চার জন।

ওদিকে, দেশে নভেল করোনাভাইরাসে গত ২৪ ঘণ্টায় আরও ১০ জনের মৃত্যু হয়েছে। এ নিয়ে দেশে এযাবৎ মোট মৃত্যুর সংখ্যা দাঁড়াল ২৮ হাজার ১৫৪ জনে। আজ নতুন করে আরও ছয় হাজার ৬৭৬ জন আক্রান্ত হয়েছে। এ নিয়ে মোট আক্রান্ত ১৬ লাখ ২৪ হাজার ৩৮৭ জন।

আজ (সোমবার) স্বাস্থ্য অধিদপ্তর থেকে পাঠানো এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে।#

পার্সটুডে/আবদুর রহমান খান/আশরাফুর রহমান/১৭

বিশ্বসংবাদসহ গুরুত্বপূর্ণ সব লেখা পেতে আমাদের ফেসবুক পেইজে লাইক দিয়ে অ্যাকটিভ থাকুন। 

ট্যাগ