জুন ৩০, ২০২২ ১৪:২৬ Asia/Dhaka

নড়াইল সদর উপজেলার মির্জাপুর ইউনাইটেড ডিগ্রি কলেজের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ স্বপন কুমার বিশ্বাসকে নড়াইলের কলেজ শিক্ষক স্বপন কুমার বিশ্বাসের গলায় জুতার মালা পরানোর ঘটনার বিচার বিভাগীয় তদন্ত চেয়ে হাইকোর্টে রিট দায়ের করা হয়েছে।

আজ (বৃহস্পতিবার) আইন ও সালিশ কেন্দ্রের পক্ষে অ্যাডভোকেট পূর্ণিমা জাহান এ রিট দায়ের করেন।

এর আগে, গত ২৮ জুন ধর্ম অবমাননার অভিযোগ তুলে নড়াইলের কলেজ শিক্ষক স্বপন কুমার বিশ্বাসের গলায় জুতার মালা পরানোর ঘটনায় রিট আবেদন নিয়ে আসতে বলেছিল হাইকোর্ট।

ফেসবুকে ভারতীয় জনতা পার্টির (বিজেপি) বহিষ্কৃত মুখপাত্র নূপুর শর্মার সমর্থনে কলেজের এক হিন্দু শিক্ষার্থীর পোস্ট দেওয়াকে কেন্দ্র করে গত ১৮ জুন দিনভর নড়াইল সদর উপজেলার মির্জাপুর ইউনাইটেড ডিগ্রি কলেজ ক্যাম্পাসে বিক্ষোভ, সহিংসতা চলে। গুজব ছড়িয়ে দেওয়া হয় ওই শিক্ষার্থীর পক্ষ নিয়েছেন কলেজের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ স্বপন কুমার বিশ্বাস। 

এরপর পুলিশের পাহারায় বিকেল ৪টার দিকে স্বপন কুমার বিশ্বাসকে ক্যাম্পাসের বাইরে নিয়ে যাওয়ার সময় তাকে দাঁড় করিয়ে গলায় জুতার মালা পরিয়ে দেয় একদল ব্যক্তি। শিক্ষক স্বপন কুমার হাত উঁচিয়ে ক্ষমা চাইতে থাকেন। পরে তাকে তুলে নেওয়া হয় পুলিশের গাড়িতে। পুলিশের সামনে এমন ঘটনায় দেশজুড়ে তৈরি হয়েছে তীব্র ক্ষোভ।

রহমতুল্লাহ বিশ্বাস রনি

প্রধান অভিযুক্ত গ্রেপ্তার

নড়াইলের কলেজ শিক্ষক স্বপন কুমার বিশ্বাসকে জুতার মালা পরানোর ঘটনায় প্রধান অভিযুক্ত রহমত উল্লাহ রনিকে বুধবার (২৯ জুন) দুপুরে খুলনা থেকে গ্রেফতার করেছে এ নিয়ে এই মামলায় ৪ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

এর আগে, গ্রেফতার করা হয় নড়াইলের মির্জাপুরের সৈয়দ রিমন আলী, মির্জাপুর বাজারের মোবাইল ফোন ব্যবসায়ী শাওন খান এবং মধ্যপাড়ার মো. মনিরুল ইসলামকে। তাদের ২৮ জুন আদালতের মাধ্যমে জেল হাজতে পাঠানো হয়।

প্রভাষক উৎপল হত্যার প্রতিবাদে মানববন্ধন

এদিকে, ঢাকার সাভারের আশুলিয়ায় কলেজ প্রভাষক উৎপল কুমার সরকারকে পিটিয়ে হত্যার ঘটনায় আজও (বৃহস্পতিবার) সাভারে মানববন্ধন হয়েছে। ঢাকা–আরিচা মহাসড়কের আরিচাগামী লেনে আয়োজিত মানববন্ধন থেকে শিক্ষক হত্যায় অভিযুক্ত ছাত্রের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি নিশ্চিতের পাশাপাশি কিশোর গ্যাং, মাদক, সন্ত্রাস, ইভটিজিং এবং তথ্য ও প্রযুক্তির অপব্যাবহার রোধে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেওয়ারও দাবি জানানো হয়।

মানববন্ধন শেষে একই দাবিতে দুপুরে সাভার উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার মাধ্যমে জেলা প্রশাসক বরাবর স্মারকলিপি দেওয়া হয়।

জিতুর ১০ দিনের রিমান্ড চায় পুলিশ

শিক্ষক উৎপল কুমার সরকার হত্যার প্রধান আসামি আশরাফুল আহসান জিতুকে ১০ দিনের রিমান্ড চেয়ে আদালতে পাঠানো হয়েছে। এর আগে দুপুর আড়াইটার দিকে জিতুকে আশুলিয়া থানায় হস্তান্তর করে র‌্যাব।

বৃহস্পতিবার দুপুর ২টা ৪০ মিনিটের দিকে ১০ দিনের রিমান্ড চেয়ে মাইক্রোবাসে করে জিতুকে আদালতে পাঠায় আশুলিয়া থানা পুলিশ।

এর আগে আজ দুপুরে র‍্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‌্যাব) এক সংবাদ সম্মেলনে জানিয়েছে, ঘটনার কয়েকদিন আগে কলেজ শাখার এক ছাত্রীকে সঙ্গে নিয়ে ক্যাম্পাসে অযাচিতভাবে ঘোরাফেরা করছিলেন দশম শ্রেণির ছাত্র আশরাফুল আহসান জিতু। এ রকম ঘোরাফেরা থেকে জিতুকে বিরত থাকতে বলেন শৃঙ্খলা কমিটির সভাপতি শিক্ষক উৎপল। এই ঘটনায় জিতু ক্ষুব্ধ হয়ে ওই ছাত্রীর কাছে নিজের হিরোয়িজম প্রদর্শন করতে শিক্ষক উৎপলের ওপর হামলার পরিকল্পনা করে। সে অনুযায়ী গত ২৫ জুন স্কুলে ছাত্রীদের ক্রিকেট টুর্নামেন্ট চলাকালে উৎপলকে স্ট্যাম্প দিয়ে এলোপাতাড়ি পিটিয়ে আহত করে জিতু। ফলে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় শিক্ষক উৎপল মারা যান।’

র‌্যাব জানায়, জিতু এলাকায় জিতু দাদা নামে পরিচিত ছিল। স্কুলে সে বেপোরায়া চলাফেরা করত। বিভিন্ন সময় ছাত্রীদের উত্ত্যক্ত করত। শৃঙ্খলা কমিটি বিভিন্ন সময় অভিযোগ পেয়ে জিতুকে সতর্ক করা হয়েছিল। এসব কারণেও সে ওই শিক্ষকের ওপর ক্ষুব্ধ ছিল।#

পার্সটুডে/আবদুর রহমান খান/আশরাফুর রহমান/৩০

ট্যাগ