সেপ্টেম্বর ২২, ২০২২ ১৮:৪৩ Asia/Dhaka

চলতি এসএসসি পরীক্ষার প্রশ্ন ফাঁসের ঘটনায় গত মঙ্গলবার কুড়িগ্রামের ভূরুঙ্গামারী নেহাল উদ্দিন পাইলট উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধানশিক্ষক ও কেন্দ্র সচিব লুৎফর রহমানসহ তিন শিক্ষককে গ্রেফতার করা হয়েছে। উদ্ধার করা হয়েছে ফাঁস হয়ে যাওয়া গণিত, কৃষি, পদার্থ বিজ্ঞান ও রসায়ন বিজ্ঞানের প্রশ্নপত্র। দিনাজপুর শিক্ষা বোর্ড ওই চারটি পরীক্ষা স্থগিত ঘোষণা করেছে।

প্রশ্ন ফাঁসের ঘটনায় বুধবার (২১ সেপ্টেম্বর) নেহাল উদ্দিন পাইলট (এনইউ) উচ্চ বিদ্যালয়ের আরো দুই শিক্ষক এবং একজন অফিস সহায়ককে আটক করেছে পুলিশ।

এ তিনজন হলেন- ওই বিদ্যালয়ের বাংলা বিষয়ের শিক্ষক সোহেল আল মামুন, পদার্থ বিজ্ঞান বিষয়ের শিক্ষক হামিদুল ইসলাম এবং অফিস সহায়ক সুজন মিয়া।

আজ (বৃহস্পতিবার) দুপুরে এদের কুড়িগ্রাম কোর্টে প্রেরণ করা হয়েছে। এ নিয়ে প্রশ্ন ফাঁসের ঘটনায় মোট ছয়জনকে গ্রেফতার করা হলো।

প্রশ্ন ফাঁসের ঘটনায় দিনাজপুর শিক্ষা বোর্ডের কলেজ পরিদর্শক মো. ফারাজ উদ্দিন তালুকদারকে আহ্বায়ক করে গঠিত তিন সদস্যের তদন্ত টিম ইতিমধ্যে ভূরুঙ্গামারী রওয়ানা হয়েছে।

এদিকে, আজ (বৃহস্পতিবার) বিকেলে দিনাজপুর শিক্ষা রোর্ড স্থগিত রাখা পরীক্ষার পরিবর্তিত সময়সূচির নোটিশ বোর্ডের ওয়েবসাইটে প্রকাশ করেছে। পরিবর্তিত সময়সূচি অনুযায়ী, ১০ অক্টোবর গণিত (আবশ্যিক), ১১ অক্টোবর কৃষি শিক্ষা (তত্ত্বীয়), ১৩ অক্টোবর রসায়ন (তত্ত্বীয়) ও ১৫ অক্টোবর পদার্থ বিজ্ঞান (তত্ত্বীয়) পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে। এছাড়া ব্যবহারিক পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে ১৬ অক্টোবর থেকে ২০ অক্টোবর পর্যন্ত।

দিনাজপুর শিক্ষাবোর্ডের চেয়ারম্যান প্রফেসর কামরুল ইসলাম জানান, কোমলমতি শিক্ষার্থীদের যাতে কোনো ধরনের সমস্যা না হয় এবং এই টেনশনে থাকতে না হয় যে পরীক্ষাগুলো কবে হবে সেজন্য দ্রুত নতুন সূচি দেওয়া হয়েছে। আন্তঃশিক্ষাবোর্ডের সঙ্গে সমন্বয় করে এই সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়েছে।

কুড়িগ্রামের নেহাল উদ্দিন উচ্চ বালিকা বিদ্যালয়কেন্দ্রে এসএসসি পরীক্ষার প্রশ্নপত্র ফাঁসের প্রতিবাদে ও যথাসময়ে পরীক্ষা শেষের দাবিতে এসএসসি পরীক্ষার্থীরা মানববন্ধন করেছে। বৃহস্পতিবার সকালে কুড়িগ্রাম প্রেসক্লাবের সামনে এই মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়। এসময় বক্তারা বলেন, ‘পরীক্ষায় কোনো প্রশ্ন ফাঁস হবে না বলে শিক্ষামন্ত্রী কথা দিয়েছিলেন। তবু কার গাফিলতি ও দুর্নীতির কারণে ভুরুঙ্গামারীতে প্রশ্ন ফাঁস হলো তা দ্রুত খুঁজে বের করতে হবে। '

পরে পরীক্ষার্থীদের একটি মিছিল শহরের প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ করে।

পরীক্ষায় প্রশ্ন ফাঁসের কথা স্বীকার করে আন্তঃশিক্ষা বোর্ড সমন্বয় উপকমিটির সভাপতি অধ্যাপক তপন কুমার সরকার বলেছেন বিষয়টি আরো সতর্কতার সাথে তদারকী করা হবে। 

তবে শিক্ষা গবেষকগণ বলছেন, মুখস্তনির্ভর পরীক্ষা পদ্ধতি পরিবর্তন করা ছাড়া নকল প্রবণতা বা প্রশ্নপত্র ফাঁসের ঘটনা বন্ধ করা যাবে না।

ওদিকে, মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদফতরের অধীন দেশের সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের একাদশ শ্রেণির বার্ষিক পরীক্ষা আগামী ৩ নভেম্বরের মধ্যে শেষ করার নির্দেশনা দেয়া হয়েছে।

বুধবার (২১ সেপ্টেম্বর) মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদফতরের (মাউশি) পরিচালক (কলেজ ও প্রশাসন শাখা) অধ্যাপক মো. শাহেদুল খবির চৌধুরী স্বাক্ষরিত এক আদেশে এমন নির্দেশনা দেয়া হয়।#

পার্সটুডে/আশরাফুর রহমান/২২

বিশ্বসংবাদসহ গুরুত্বপূর্ণ সব লেখা পেতে আমাদের ফেসবুক পেইজে লাইক দিয়ে অ্যাকটিভ থাকুন।

 

ট্যাগ