অক্টোবর ০৭, ২০২২ ১২:২০ Asia/Dhaka
  • পাকিস্তানের কাছে ২১ রানে হেরে ত্রিদেশীয় সিরিজ শুরু করল বাংলাদেশ

বাংলাদেশের বিপক্ষে ত্রিদেশীয় সিরিজের প্রথম ম্যাচে ২১ রানের সহজ জয় পেয়েছে পাকিস্তান। পাকিস্তানের ছুঁড়ে দেওয়া ১৬৮ রানের লক্ষ্যে ব্যাট করতে নামা বাংলাদেশকে কখনোই ম্যাচ জেতার মতো মেজাজে দেখা যায়নি! শেষদিকে ইয়াসির আলি রাব্বি অপরাজিত ঝড়ো ইনিংসে কেবল হারের ব্যবধানই কমাতে পারেন।

আজ (শুক্রবার) নিউজিল্যান্ডের ক্রাইস্টচার্চে ত্রিদেশীয় সিরিজের প্রথম টি-টোয়েন্টিতে টস হেরে ব্যাটিংয়ে নেমে ৫ উইকেটে ১৬৭ রান তোলে পাকিস্তান। জবাবে সাকিব আল হাসানবিহীন বাংলাদেশ পৌঁছাতে পারে ৮ উইকেটে ১৪৬ রান পর্যন্ত।

১২ ওভার শেষে পাকিস্তানের সংগ্রহ ছিল ১ উইকেটে ৯১ রান। একই সময়ে বাংলাদেশ ২ উইকেটে ৮৪ রান জমা করে। অর্থাৎ দুই দলের মধ্যে খুব বেশি রানের পার্থক্য ছিল না। কিন্তু এরপর পাকিস্তানের বোলারদের তোপে উল্টো পথে যাত্রা শুরু হয় টাইগারদের।

বাংলাদেশের পক্ষে তিনে নেমে লিটন ২৬ বলে ৩৫ রান করেন। তার ব্যাট থেকে আসে ৪ চার ও ১ ছক্কা। চারে নামা আফিফ ২৩ বলে ২৫ রান করেন ১টি করে চার ও ছয়ের সাহায্যে। তৃতীয় উইকেটে ৪০ বলে ৫০ রান যোগ করেন দুজনে।

মোহাম্মদ নওয়াজ এই জুটি ভাঙার পর খেই হারায় দল। মাত্র ১৪ রানের মধ্যে ৪ উইকেট খুইয়ে টাইগাররা অনেক আগেই ছিটকে যায় ম্যাচ থেকে। সাত নম্বরে নেমে ইয়াসির বিস্ফোরক ব্যাটিংয়ে ৪২ রান করেন। ২১ বল মোকাবিলায় ৫ চার ও ২ ছক্কা মারেন তিনি। পেসার হারিস রউফের করা ইনিংসের শেষ ওভারে বাউন্ডারির ফুলঝুরি ছুটিয়ে ২০ রান আনেন তিনি।

পাকিস্তানের পেসার মোহাম্মদ ওয়াসিম ৪ ওভারে ২৪ রানে নেন ৩ উইকেট। বাঁহাতি স্পিনার নওয়াজ ২ উইকেট নিতে খরচ করেন ২৫ রান। চূড়ান্ত রূপ দিতে না পারলেও দুজনই জাগান হ্যাটট্রিকের সম্ভাবনা। পাশাপাশি রউফ, শাহনেওয়াজ দাহানি ও শাদাব খান পান উইকেটের স্বাদ।

এর আগে ব্যাটিং করতে নেমে পাকিস্তানের সেরা দুই ব্যাটার বাবর আজম ও মোহাম্মদ রিজওয়ান ওপেনিংয়ে ৫১ রানের জুটি গড়েন। অষ্টম ওভারের প্রথম বলে মেহেদি হাসান মিরাজকে সুইপ খেলতে গিয়ে বল হাওয়ায় ভাসিয়ে বাবর ২৫ বলে ২২ রান করে ফিরলে এই জুটি ভাঙে।

তিনে নেমে শান মাসুদ শুরুতে নাসুম আহমেদের স্পিনে বেশ নড়বড়ে ছিলেন। তবে হাত খুলেছেন খানিক বাদেই। রিজওয়ানের সঙ্গে দ্বিতীয় উইকেট জুটিতে ৪২ রান তোলেন তার মধ্যে মাসুদের একারই ৩১। নাসুমের বলে হাসান মাহমুদের দুর্দান্ত এক ক্যাচ হয়ে ফেরার আগে ২২ বলে ৪টি চার ১টি ছয়ে ৩১ রান করেন মাসুদ।

এরপর নিয়মিত বিরতিতেই উইকেট তুলে নিতে পেরেছে বাংলাদেশ। তবে একপ্রান্তে অবিচল ছিলেন মোহাম্মদ রিজওয়ান। রিজওয়ানের হাত ধরেই শেষ পর্যন্ত চ্যালেঞ্জিং স্কোর দাঁড় করিয়েছে পাকিস্তান।

নির্ধারিত ২০ ওভারে শেষ পর্যন্ত ৫ উইকেট হারিয়ে ১৬৭ রান তুলেছে দলটি। রিজওয়ান ৫০ বলে ৭টি চার ২টি ছয়ে ৭৮ রান করেন। ৮ বলে ১৩ রান করেছেন ইফতেখার আহমেদ।

বাংলাদেশের সবচেয়ে সফল বোলার তাসকিন আহমেদ। ৪ ওভারে ২৫ রান দিয়ে ২ উইকেট নিয়েছেন  বাংলাদেশি পেসার। নাসুম আহমেদ ৪ ওভারে ২২ রানে ও মেহেদি হাসান মিরাজ ২ ওভারে ১২ রান দিয়ে নিয়েছেন একটি করে উইকেট। মোস্তাফিজুর রহমান আজও ছিলেন বেশ খরুচে। ৪ ওভারে ৪৮ রান খরচ করেও উইকেটশূন্য।

৫০ বলে ৭৮ রান করে প্লেয়ার অব দ্যা ম্যাচ পুরস্কার পান ওপেনার পাকিস্তানের মোহাম্মদ রিজওয়ান।#  

পার্সটুডে/আশরাফুর রহমান/৭

বিশ্বসংবাদসহ গুরুত্বপূর্ণ সব লেখা পেতে আমাদের ফেসবুক পেইজে লাইক দিয়ে অ্যাকটিভ থাকুন।

ট্যাগ