অক্টোবর ০৭, ২০২২ ২০:১২ Asia/Dhaka

বাংলাদেশে ঘন ঘন লোডশেডিংয়ে নাকাল জনজীবন। দিনে-রাতে সমান তালে বিদ্যুৎ বন্ধ থাকা আর অপরিকল্পিত লোডশেডিংয়ে অতিষ্ঠ মানুষ।

তিন দিন ধরে রাজধানীর বিভিন্ন এলাকায় লোডশেডিংয়ের প্রবণতা বেড়েছে। দিনে তিন থেকে চারবার বিদ্যুৎ চলে যাচ্ছে। প্রতিবারই এক ঘণ্টা বা তারও বেশি সময় করে লোডশেডিং থাকছে। এমনকি ছুটির  দিন শুক্রবারও তার ব্যতিক্রম হচ্ছে না।

সরকারের ন্যাশনাল লোড ডেসপাচ সেন্টারের হিসাবে গড়ে ১৪ হাজার মেগাওয়াট বিদ্যুতের চাহিদা রয়েছে সারা দেশে।

ডিপিডিসির ব্যবস্থাপনা পরিচালক বিকাশ দেওয়ান গণমাধ্যমকে জানিয়েছেন, দিনে ও রাতে ৪০০ মেগাওয়াটের বেশি ঘাটতি হচ্ছে। এতে প্রতিটি ফিডারে (নির্দিষ্ট গ্রাহক এলাকা) অন্তত দুবার, কোথাও তিনবার লোডশেডিং করতে হচ্ছে। তাই এক ঘণ্টা করে লোডশেডিংয়ের সূচি মানা যাচ্ছে না।

বিদ্যুৎ না থাকার কারণে ব্যাহত হয়েছে হাসপাতালে ভর্তি থাকা রোগীদের চিকিৎসাসেবা। বিদ্যুৎ পরিস্থিতি স্বাভাবিক রাখার জন্য জেনারেটর চালিয়ে জরুরি বিভাগ, অপারেশন থিয়েটারে রোগীদের সেবা দেওয়ার চেষ্টা করা হলেও ভোগান্তি বেড়েছে রোগীদের। চিকিৎসাসেবা অব্যাহত রাখতে গিয়ে হিমশিম খেতে হয়েছে চিকিৎসক, হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ ও স্বাস্থ্যকর্মীদের।

তবে দেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা গতকাল গণভবনে আয়োজিত  এক সংবাদ সম্মেলনে বিশ্ব জ্বালানি সংকটের কথা উল্লেখ করে বলেছেন, ভবিষ্যতে পরিস্থিতির আরো অবনতি হতে পারে। তখন হয়তো সনাতন পন্থায় প্রদীপ জ্বালানো বা লাকড়ির চুলায় রান্না করতে হবে।

জ্বালানি তেলের দাম কমার প্রসঙ্গে বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ বিপু বলেছেন, পরিস্থিতি ভালো না। তাই সহসাই জ্বালানি তেলের দাম কমার কোনো সম্ভাবনা নেই।

আজ (শুক্রবার) সকালে নিজ বাসভবনে বিদ্যুৎ পরিস্থিতি নিয়ে এক ব্রিফিংয়ে প্রতিমন্ত্রী বলেন, ঘাটতি মোকাবিলার জন্য তেল-গ্যাস আমদানির বিকল্প কোন উৎস খুঁজে পাওয়া যাচ্ছে না।

এসময় তিনি সম্প্রতি দেশের বড় অংশে বিদ্যুৎ বিভ্রাট নিয়েও কথা বলেন। প্রতিমন্ত্রী বলেন, কেন হঠাৎ জাতীয় গ্রিডে এই সমস্যা দেয়া দিয়েছে সেটা এখনি বলা যাবে না। তদন্ত কমিটি কাজ করছে। তাদের রিপোর্টের জন্য অপেক্ষা করতে হবে। আধুনিক প্রযুক্তিসম্পন্ন নিরবিচ্ছিন্ন গ্রিড পেতে প্রায় দু'বছরের মত সময় লাগবে। সরকার ধাপে ধাপে কাজ করছে।#

পার্সটুডে/আব্দুর রহমান খান/আশরাফুর রহমান/৭

বিশ্বসংবাদসহ গুরুত্বপূর্ণ সব লেখা পেতে আমাদের ফেসবুক পেইজে লাইক দিয়ে অ্যাকটিভ থাকুন।

ট্যাগ