২০১৭-০১-২৮ ১৭:৪৮ বাংলাদেশ সময়
  • মন্ত্রিপরিষদ সচিব মোহাম্মদ শফিউল আলম
    মন্ত্রিপরিষদ সচিব মোহাম্মদ শফিউল আলম

বাংলাদেশে নতুন নির্বাচন কমিশন গঠনের লক্ষ্যে প্রেসিডেন্টের সঙ্গে সংলাপে অংশগ্রহণকারী রাজনৈতিক দলগুলোকে নাম প্রস্তাব করতে বলেছে সার্চ কমিটি। আজ (শনিবার) সুপ্রিম কোর্টের জাজেজ লাউঞ্জে সার্চ কমিটির প্রথম সভার পর মন্ত্রিপরিষদ সচিব মোহাম্মদ শফিউল আলম সাংবাদিকদের এ তথ্য জানান। 

তিনি বলেন, যে ৩১টি দল সংলাপে অংশ নিয়েছে, তাদের ৩১ জানুয়ারি বেলা ১১টার মধ‌্যে পাঁচটি করে নাম মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের অতিরিক্ত সচিব (প্রশাসন) বরাবর জমা দিতে বলা হয়েছে। এছাড়া নতুন নির্বাচন কমিশন গঠনে মতামত নেয়ার জন‌্য আগামী সোমবার ১২ জন বিশিষ্ট নাগরিকের সঙ্গে সার্চ কমিটি বৈঠক করবে বলে তিনি জানান।

ওই ১২ জন বিশিষ্ট নাগরিক হলেন বিচারপতি মো. আবদুর রশিদ, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক ভিসি অধ্যাপক এ কে আজাদ চৌধুরী, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক ভিসি অধ্যাপক এস এম এ ফায়েজ, মানবাধিকারকর্মী সুলতানা কামাল, সাবেক প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) এ টি এম শামসুল হুদা, সাবেক নির্বাচন কমিশনার ব্রিগেডিয়ার জেনারেল (অব.) এম সাখাওয়াত হোসেন, সাবেক নির্বাচন কমিশনার ছহুল হোসাইন, স্থানীয় সরকার বিশেষজ্ঞ তোফায়েল আহমেদ, সুশাসনের জন্য নাগরিক-সুজনের সাধারণ সম্পাদক বদিউল আলম মজুমদার, শিক্ষাবিদ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ইংরেজি বিভাগের ইমেরিটাস অধ্যাপক সিরাজুল ইসলাম চৌধুরী, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের বাংলা বিভাগের সংখ্যাতিরিক্ত অধ্যাপক আবুল কাশেম ফজলুল হক ও পুলিশের সাবেক মহাপরিদর্শক (আইজিপি) নুরুল হুদা।

সার্চ কমিটি

এদিকে, নির্বাচন কমিশন (ইসি) পুনর্গঠনের জন্য গঠিত সার্চ কমিটির বৈধতা চ্যালেঞ্জ করে হাইকোর্টে সম্পূরক আবেদন করা হয়েছে। আবেদনে রুল শুনানি না হওয়া পর্যন্ত সার্চ কমিটির কার্যক্রম স্থগিত চাওয়া হয়েছে।

আজ (শনিবার) হাইকোর্টের সংশ্লিষ্ট শাখায় অ্যাডভোকেট ইউনুছ আলী আকন্দ এ আবেদন দায়ের করেন।

পরে ইউনুছ আলী আকন্দ সাংবাদিকদের বলেন, ‘ইসি গঠনে আইন প্রণয়নের নির্দেশনা চেয়ে ১১ জানুয়ারি হাইকোর্টে যে রিট করেছি সেটি রবিবার শুনানির জন্য বিচারপতি মইনুল ইসলাম চৌধুরী ও বিচারপতি জে বি এম হাসানের বেঞ্চের কার্যতালিকায় রয়েছে। ওই রিটেই এই সম্পূরক আবেদন করা হয়েছে।’

তিনি আরও বলেন, ‘সংবিধানের ১১৮নং অনুচ্ছেদে ইসি গঠন ও দায়িত্ব পালনের ক্ষেত্রে সংবিধান ও আইনের অধীনে পরিচালিত হওয়ার কথা বলা থাকলেও এখন পর্যন্ত আইন প্রণয়ন করা হয়নি। একটি গুরুত্বপূর্ণ সাংবিধানিক প্রতিষ্ঠান সংবিধানের বিধানের বাইরে চলতে পারে না। আর আইনে সার্চ কমিটির কথা নেই। তাই সার্চ কমিটি গঠন করে যে গেজেট জারি করা হয়েছে তার বৈধতা চ্যালেঞ্জ করা হয়েছে।’

তিনি বলেন, ‘নির্বাচন কমিশন গঠনের জন্য আইন তৈরির নির্দেশনা চেয়ে দায়ের একটি রিট বিচারাধীন রয়েছে। এমতাবস্থায় সার্চ কমিটি গঠন অবৈধ।

উল্লেখ্য, নতুন ইসি গঠন করতে প্রেসিডেন্ট মো. আবদুল হামিদ ২৫ জানুয়ারি আপিল বিভাগের বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেনের নেতৃত্বে ছয় সদস্যের অনুসন্ধান কমিটি গঠন করেন। গঠিত হওয়ার দিন থেকে ১০ কার্যদিবস অর্থাৎ আগামী ৮ ফেব্রুয়ারির মধ্যে সার্চ কমিটিকে ইসির জন্য ব্যক্তিদের নাম সুপারিশ করতে হবে।

আপিল বিভাগের বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেনের নেতৃত্বে অনুসন্ধান কমিটির অন্য সদস্যরা হলেন হাইকোর্ট বিভাগের বিচারপতি ওবায়দুল হাসান, সরকারি কর্মকমিশনের চেয়ারম্যান মোহাম্মদ সাদিক, বাংলাদেশের মহাহিসাব নিরীক্ষক ও নিয়ন্ত্রক (সিএজি) মাসুদ আহমেদ, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ইংরেজি বিভাগের অধ্যাপক সৈয়দ মনজুরুল ইসলাম ও চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রো-ভিসি শিরীণ আখতার। #

পার্সটুডে/আবদুর রহমান খান/আশরাফুর রহমান/২৮

 

 

ট্যাগ

মন্তব্য