অক্টোবর ২৯, ২০১৯ ১৬:২৫ Asia/Dhaka
  • বিশ্বসেরা ক্রিকেট অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসান
    বিশ্বসেরা ক্রিকেট অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসান

বাংলাদেশের সেরা ক্রিকেটার, টেস্ট এবং টি টোয়েন্টি টীমের অধিনায়ক সাকিব আল হাসান ম্যাচ ফিক্সিং প্রস্তাব আইসিসির অ্যান্টি করাপশন ইউনিটকে না জানানোর অপরাধে নিষেধাজ্ঞার কবলে পড়ার আশংকা দেখা দিয়েছে।

দু’বছর আগে পাওয়া ম্যাচ ফিক্সিং অফার সম্পর্কে আইসিসি জানতে পারে কল রেকর্ড ট্রেকিংয়ের মাধ্যমে। এরপর অভিযুক্ত সাকিব আল হাসানকে জানানো হয়। সাকিব প্রস্তাব পাবার কথা স্বীকার করেন এবং  আইসিসিকে যথা সময়ে না জানানোর জন্য ভুলও স্বীকার করেছেন।

তবে, ম্যাচ ফিক্সিং-এর প্রস্তাব পেলে গোপন করাও অপরাধ। আইসিসির অ্যান্টিকরাপশন ধারা ২ এর ৪ উপধারায় যার শাস্তি সর্বনিম্ন ৬ মাস আর সর্বোচ্চ পাঁচ বছর। তবে আকসুর জিজ্ঞাসাবাদে সহযোগিতা করা এবং ভুল স্বীকার করায় নিষেধাজ্ঞার মেয়াদ  সর্বনিম্ন  হতে পারে বলে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ ধারণা করছেন। 

ইতোমধ্যে জাতীয় ক্রিকেটারদের দাবী-দাওয়া ও আন্দোলনের প্রেক্ষিতে বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান গত ২২ অক্টোবর সংবাদ সম্মেলনে অনেকটা বিরক্তির সাথেই মন্তব্য করেন, ম্যাচ ফিক্সিং এর খবর খুব শীঘ্রই আসবে। চিন্তা করেন না, ওগুলো আসছে।

ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রীর আশ্বাস

এদিকে ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী জাহিদ হাসান রাসেল আজ সাংবাদিকদের বলেছেন, সাকিবের ম্যাচ ফিক্সিং প্রস্তাব আইসিসির অ্যান্টি করাপশন ইউনিটকে না জানানো বিষয়ে আলোচনার জন্য আইসিসিকে চিঠি দেয়া হবে।

মঙ্গলবার (২৯ অক্টোবর) সচিবালয়ে সাংবাদিকদের ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী আশ্বাস দেন, বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসানের বিষয়ে আইসিসি যে সিদ্ধান্তই নিক, সাকিবের  পাশে থাকবে সরকার।

পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রীর আহবান

এদিকে পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলম আজ মঙ্গলবার (২৯ অক্টোবর) তার ফেসবুক পোষ্টে সাকিব আল হাসানের পাশে থাকতে গণমাধ্যমের প্রতি আহবান জানিয়েছেন ।

ফেসবুক পোস্টে শাহরিয়ার আলম লিখেন, আমি প্রত্যাশা করি বাংলাদেশের সকল মিডিয়া এবং বিদেশি গণমাধ্যমে কাজ করেন এরকম সকল বাংলাদেশী সাকিবের পক্ষে শক্ত হয়ে দাড়াবেন।

সাকিবের ভারত সফর অনিশ্চিত

তিনটি টি-টোয়েন্টি ও দুটি টেস্ট খেলতে বাংলাদেশ দল কাল সন্ধ্যায় দিল্লির উদ্দেশে দেশ ছাড়বে। সাকিবকে অধিনায়ক করে এরই মধ্যে টি-টোয়েন্টি সিরিজের দল ঘোষণা করেছে বিসিবি। তবে টেস্ট সিরিজের খেলোয়াদের তালিকা এখনো ঘোষনা  হয়নি ।

ভারত সফর সামনে রেখে গতকাল মিরপুর শেরেবাংলা স্টেডিয়ামে দ্বিতীয় ও শেষ প্রস্তুতি ম্যাচে  বাংলাদেশ দলের টি-টোয়েন্টি ও টেস্ট অধিনায়ক সাকিব আল হাসান অনুপস্থিত ছিলেন। কোচ রাসেল ডমিঙ্গোর কাছ থেকে আগেই ছুটি নিয়েছেন তিনি। কিন্তু পরিস্থিতি যা, ভারত সফরেই সাকিব শেষ পর্যন্ত যান কি না, তা নিয়ে আছে ঘোর সংশয়।

বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি) সংশ্লিষ্ট নির্ভরযোগ্য সূত্রের খবর, আইপিএল ও বিপিএলের দুটি ম্যাচকে কেন্দ্র করে সাকিবের বিরুদ্ধে অভিযোগ নিয়ে কাজ করছে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট কাউন্সিল (আইসিসি)। এ বিষয়টি  তদন্তের শেষ পর্যায়ে আছে। তদন্তপ্রক্রিয়ার অংশ হিসেবে আইসিসির প্রতিনিধিরা সাকিবের সঙ্গে কথা বলেছেন বলেও জানা গেছে। আগামী কয়েক দিনের মধ্যে আইসিসি এ ব্যাপারে কিছু একটা জানাবে বলে জানিয়েছে সূত্র। এ জন্যই সাকিবকে ভারতে পাঠানোর ব্যাপারে দ্বিতীয় চিন্তা করতে হচ্ছে বিসিবিকে।

তাছাড়া, সাকিবের খেলায় অংশ নেবার ব্যাপারে বাধা আসতে পারে আইসিসি থেকেও। অবশ্য অন্য একটি সূত্রের দাবি, সাম্প্রতিক ঘটনাবলি এবং বিসিবি সভাপতির বিভিন্ন বক্তব্যের কারণে সাকিব নিজেই ভারতে যেতে চাচ্ছেন না।

ক্রিকেট অঙ্গনে গুঞ্জন শোনা যাচ্ছে, সাকিবের ভারত সফর বাতিল হলে টি-টোয়েন্টি দলের অধিনায়কের দায়িত্ব পেতে পারেন মোসাদ্দেক হোসেন বা লিটন দাস। টেস্ট সিরিজে দলকে নেতৃত্ব দিতে পারেন মুশফিকুর রহিম বা মুমিনুল হক।#

পার্সটুডে/আব্দুর রহমান খান/২৯

বিশ্বসংবাদসহ গুরুত্বপূর্ণ সব লেখা পেতে আমাদের ফেসবুক পেইজে লাইক দিয়ে অ্যাকটিভ থাকুন।

 

 

 

ট্যাগ

মন্তব্য