জুন ০৩, ২০২০ ১৮:১১ Asia/Dhaka

বাংলাদেশে মহামারি করোনাভাইরাসে প্রাণহানি ও আক্রান্তের সংখ্যা প্রতিদিনই পাল্লা দিয়ে বাড়ছে। সর্বশেষ সরকারি হিসাব অনুযায়ী- বুধবার সকাল পর্যন্ত করোনায় মৃতের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৭৪৬ জনে। আর আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৫৫ হাজার ১৪০ জনে।

পরিস্থিতি যে এমন হবে তা নিয়ে আগেই আশঙ্কা প্রকাশ করেছিলেন স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞরা। রপ্তানিমুখী পোশাক কারখানা খুলে দেয়া, ঈদের ছুটিতে বিপুল সংখ্যক মানুষকে রাজধানীসহ পার্শ্ববর্তী করোনা কবলিত এলাকা থেকে দেশের বিভিন্ন প্রান্তে যাতায়াতের সুযোগ করে দেওয়া এবং সর্বশেষ লকডাইন শিথিল করে গণপরিবহন চালু করার কারণে যে এরকম ভয়াবহ অবস্থার সৃষ্টি হবে তেমন আশঙ্কা ব্যক্ত করেছিলেন সরকারের রোগ নিয়ন্ত্রণ ও রোগ গবেষণা প্রতিষ্ঠান আইউডিসিআর'র সাবেক বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা ডাক্তার মোস্তাক হোসেনসহ অনেকেই।

নমুনা পরীক্ষার ফল দ্রুত দেয়ার তাগিদ

স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞদের মতে, সন্দেহভাজন রোগীর নমুনা পরীক্ষার ফল পেতে দেরি হলে সে যদি পজিটিভ হয় তাহলে পরিবারে সংক্রমণের ঝুঁকির আশঙ্কা থাকে।

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক উপাচার্য অধ্যাপক ডা. নজরুল ইসলামও বলেন, নমুনা পরীক্ষার ফলাফল দেরিতে দেয়ার বিষয়টি কোনোভাবেই কাম্য নয়।

নমুনা পরীক্ষার কাজটি দ্রুততম সময়ের মধ্যে সম্পন্ন করে দ্রুত রিপোর্ট জানানো উচিত বলে অভিমত দেন আইইডিসিআর প্রধান বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা ড. এএসএম আলমগীর।

অক্সিজেন সংকট

এদিকে, রাজধানীসহ দেশের বিভিন্ন সরকারি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন করোনা রোগীরা নিরবচ্ছিন্ন অক্সিজেন সরবরাহ পাচ্ছেন না বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। এতদিন সিলিন্ডারের অক্সিজেনের মাধ্যমে পরিস্থিতি সামাল দেয়ার চেষ্টা করা হলেও বর্তমানে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা বৃদ্ধি পেয়েছে। ফলে সীমিত সংখ্যক সিলিন্ডার দিয়ে সব রোগীকে পর্যাপ্ত ও নিরবচ্ছিন্ন অক্সিজেন সরবরাহ করা সম্ভব হচ্ছে না। এই অবস্থায় সব হাসপাতালগুলোতে লিকুইড অক্সিজেন ট্যাংক স্থাপনের জন্য চিঠি দিয়েছে স্বাস্থ্য ও পরিবারকল্যাণ মন্ত্রণালয়।

স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞরা বলেছেন, করোনাভাইরাসে (কোভিড-১৯) আক্রান্ত ৮০ থেকে ৯০ শতাংশ রোগী সাধারণ ওষুধ খেয়েই সুস্থ হয়ে ওঠেন। কিন্তু অবশিষ্ট ১০ শতাংশ রোগীদের মধ্যে অনেকের হালকা থেকে তীব্র শ্বাসকষ্ট হয়। এ সময় রোগীদের অক্সিজেনের লেবেল কমে যায়। তাই এ ধরনের রোগীদের জন্য নিরবচ্ছিন্ন অক্সিজেন সরবরাহ করাই হলো মূল চিকিৎসা। এক্ষেত্রে ব্যত্যয় ঘটলে রোগীর মৃত্যুও হতে পারে।

প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনা

এ অবস্থায় দেশের প্রত্যেক জেলা হাসপাতালে স্বয়ংসম্পূর্ণ নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্র (আইসিইউ) স্থাপন দ্রুত নিশ্চিতের নির্দেশ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। একই সাথে স্থিতিশীল ও পর্যাপ্ত অক্সিজেন সরবরাহ নিশ্চিত করা এবং ভেন্টিলেটর সুবিধা  দিতেও নির্দেশনা প্রধানমন্ত্রী।

গতকাল (মঙ্গলবার) জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটির (একনেক) সভায় প্রধানমন্ত্রী এ নির্দেশনা দেন। 

শেখ হাসিনা

সংক্রমণ বাড়ছে 

ইতোমধ্যে কোভিড-১৯ ভাইরাসের সংক্রমণ ছড়িয়ে পড়েছে দেশের সবগুলো জেলাতে। অনেক উপজেলা পর্যায়ে কোথাও কোথাও সংক্রমণের মাত্রা 'রেড জোন' চিহ্নিত হবার পর্যায়ে চলে গেছে। 

চট্টগ্রাম

চট্টগ্রামে সবচেয়ে বেশি আক্রান্ত হয়েছেন মহানগরী এলাকার বাসিন্দারা। মহানগরীতে আক্রান্তের হার ৭৯ শতাংশ এবং বিভিন্ন উপজেলায় ২১ শতাংশ। করোনা সংক্রমণের দুই মাসের মাথায় এসে এই মহামারি এখন ছড়িয়ে পড়েছে নগরীর প্রায় প্রতিটি এলাকায় ও উপজেলায়।

ইতোমধ্যে  চট্টগ্রাম মহানগরীর ১৬ থানার মধ্যে ১২টি থানাকে করোনা সংক্রমণের ঝুঁকিপূর্ণ হিসেবে ঘোষণা করেছে জেলা সিভিল সার্জন কার্যালয়।এসব থানাকে করোনার ‘রেড জোন’ হিসেবে চিহ্নিত করে ম্যাপিং করা হয়েছে।

চট্টগ্রামে করোনা আক্রান্তদের মধ্যে সবচেয়ে বেশি আছেন আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যরা। এরপর আক্রান্তের শীর্ষে আছেন চিকিৎসক ও স্বাস্থ্যকর্মীরা। দেশের আমদানি-রফতানি বাণিজ্যের গেটওয়ে চট্টগ্রাম বন্দর এবং কাস্টমসের  উল্লেখযোগ্য সংখ্যক কর্মকর্তা-কর্মচারী করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন।

রাজশাহী

রাজশাহী বিভাগের আট জেলায় করোনা আক্রান্তের সংখ্যা হাজার ছাড়িয়েছে। মঙ্গলবার সর্বোচ্চ ৮৮ জন শনাক্ত হওয়ায় মোট আক্রান্তের সংখ্যা এখন ১ হাজার ৫০ জন।

বুধবার দুপুরে রাজশাহী বিভাগীয় স্বাস্থ্য পরিচালক ডা. গোপেন্দ্রনাথ আচার্য এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

তিনি জানান, আক্রান্তদের মধ্যে ২৫৩ জন সুস্থ হয়েছেন। হাসপাতালে আছেন ২৮০ জন। আর পাঁচ জেলায় মোট মারা গেছেন নয়জন। এর মধ্যে একজন মঙ্গলবার রাজশাহীতে মারা গেছেন। এর আগের দিন সোমবার  নওগাঁ ও সিরাজগঞ্জে আরও একজন করে দুইজন করোনায় মারা যান। 

সিলেট

সিলেট বিভাগের দুই জেলায় মঙ্গলবার আরও ৬৫ জনের শরীরে করোনাভাইরাস শনাক্ত হয়েছে। এ নিয়ে সিলেট বিভাগে মোট ১ হাজার ১৬০ জনের করোনা শনাক্ত হলো। এদের মধ্যে সর্বোচ্চ ৬২৭ জন সিলেট জেলার বাসিন্দা।

সিলেট বিভাগে এখন পর্যন্ত করোনায় ২৪ জন মারা গেছেন এবং ৩১৪ জন সুস্থ হয়েছেন। বর্তমানে বিভাগের বিভিন্ন হাসপাতালে ১৩৭ জন ভর্তি আছেন।

বরিশাল

বরিশালে মঙ্গলবার নতুন করে আরও ৫৪ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। এই নিয়ে জেলায় করোনা আক্রান্তের সংখ্যা দাড়িয়েছে ৪১৮ জনে। আক্রান্তদের মধ্যে বরিশাল মেট্রোপলিটন পুলিশের সাত সদস্য, শের-ই বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের একজন নার্স ও একজন স্টাফসহ দুজন, রাহাত-আনোয়ার হসপিটালের দুজন স্টাফ, বাবুগঞ্জ ও সদর জেনারেল হাসপাতালে কর্মরত তিনজন নার্স, একজন স্বাস্থ্য পরিদর্শক ও একজন স্টাফসহ পাঁচজন এবং মেহেন্দীগঞ্জ উপজেলায় একজন চিকিৎসক সহ ছয়জন রয়েছেন। 

গোপালগঞ্জ

প্রধানমন্ত্রীর নিজ জেলা গোপালগঞ্জে গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে এক নার্সসহ ১৬ জনের শরীরে করোনাভাইরাস শনাক্ত হয়েছে। এ নিয়ে জেলায় করোনা রোগীর সংখ্যা দাঁড়ালো ২২২ জনে।

বুধবার (৩ জুন) সকালে গোপালগঞ্জের সিভিল সার্জন ডা. নিয়াজ মোহাম্মদ এসব তথ্য নিশ্চিত করেন। তিনি আরও জানান, মোট আক্রান্তদের মধ্যে একজন মারা গেছে, ৯৯ জন সুস্থ হয়ে হাসপাতাল ছাড়লেও ১২২ জন জেলার বিভিন্ন হাসপাতালের আইসোলেশন ওয়ার্ডে চিকিৎসাধীন।

আক্রান্তদের মধ্যে মুকসুদপুরে মুকসুদপুর থানার ১৮ পুলিশ সদস্য ও এক ডাক্তারসহ ৫০ জন, গোপালগঞ্জ সদর উপজেলায় চার চিকিৎসকসহ ২৫ জন, এবং  কোটালীপাড়া উপজেলায় এক চিকিৎসক ও একজন নার্সসহ ৪৩ জন রয়েছেন।

মুনশিগঞ্জ

করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে এবং আক্রান্তের উপসর্গ নিয়ে মুন্সীগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালের আইসোলেশন সেন্টারে ভর্তি হওয়া তিনজনের মৃত্যু হয়েছে। বুধবার সকালে তারা মারা যান। এদের মধ্যে একজন করোনাভাইরাসে আক্রান্ত এবং বাকি দু'জন উপসর্গ নিয়ে আইসোলেশনে ছিলেন। উপসর্গ থাকা দু'জনের নমুনা সংগ্রহ করে পরীক্ষার জন্য ঢাকায় পাঠানো হয়েছে। তবে এখনও রিপোর্ট আসেনি।

 টাঙ্গাইল

ওদিকে, টাঙ্গাইলে নতুন করে এক চিকিৎসকসহ ৮জন করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন।  একজনের মৃত্যু হয়েছে। জেলায় মোট আক্রান্তের সংখ্যা ১৯১। এ যাবত প্রাণ হারিয়েছেন মোট ৫ জন।

নেত্রকোণায় চিকিৎসকসহ ৬ জনের  ভাইরাস শনাক্ত

নেত্রকোণায় চিকিৎসকসহ আরও ছয়জনের করোনাভাইরাস শনাক্ত হয়েছে। বুধবার এই জেলার সিভিল সার্জন তাজুল ইসলাম জানিয়েছেন। এই নিয়ে জেলায় মোট ২৫৫ জনের করোনাভাইরাস শনাক্ত হল। তাদের মধ্যে তিনজনের মৃত্যু রয়েছে। আর ৮৩ জন সুস্থ  হয়েছেন। #

পার্সটুডে/আবদুর রহমান খান/আশরাফুর রহমান/৩

বিশ্বসংবাদসহ গুরুত্বপূর্ণ সব লেখা পেতে আমাদের ফেসবুক পেইজে লাইক দিয়ে অ্যাকটিভ থাকুন।

ট্যাগ

মন্তব্য