অক্টোবর ২৭, ২০২০ ১৩:২৫ Asia/Dhaka
  • তিথি সরকার
    তিথি সরকার

সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ফেসবুকে পবিত্র কুরআন, মহান আল্লাহ ও মহানবী হযরত মুহাম্মদ (স.) সম্পর্কে কটূক্তি করে ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত করার অভিযোগে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রাণিবিদ্যা বিভাগের ২০১৭-২০১৮ শিক্ষাবর্ষের শিক্ষার্থী তিথি সরকারকে সাময়িক বহিষ্কার করেছে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন।

গতরাতে বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার প্রকৌশলী মো. ওহিদুজ্জামান স্বাক্ষরিত এক আদেশে এ বহিষ্কারের বিষয়টি নিশ্চিত করা হয়।

আদেশে বলা হয়, “আপনি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ইসলাম ধর্মের মহানবী হযরত মুহাম্মদ (স.) সম্পর্কে কটূক্তি করে ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত করায় আপনাকে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় আইন -২০০৫ এর ধারা ১১ (১০) এর উপাচার্য মহোদয়ের ক্ষমতাবলে সিন্ডিকেটের অনুমোদন সাপেক্ষে আপনাকে বিশ্ববিদ্যালয় থেকে পরবর্তী নির্দেশ না দেয়া পর্যন্ত সাময়িকভাবে বহিষ্কার করা হলো। আপনাকে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় থেকে কেন স্থায়ীভাবে বহিষ্কার করা হবে না, তা লিখিতভাবে আগামী ১০ (দশ) দিনের মধ্যে রেজিস্ট্রার দফতর বরাবর জানানোর জন্য আদিষ্ট হয়ে নির্দেশ প্রদান করা হলো।”

এদিকে গত ২৪ অক্টোবর তিথি সরকারকে ৭২ ঘণ্টার মধ্যে আজীবন বহিষ্কারের দাবিতে সাধারণ শিক্ষার্থীদের ব্যানারে বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রসংগঠন মিলে বিক্ষোভ মিছিল করে। একই সঙ্গে মঙ্গলবারের (২৭ অক্টোবর) মধ্যে তিথি সরকারকে বহিষ্কার না করলে সাধারণ শিক্ষার্থীরা অনশনসহ কঠোর কর্মসূচির হুঁশিয়ারি দেন। এই আল্টিমেটামের ২৪ ঘণ্টার পূর্বেই তিথি সরকারকে সাময়িক বহিষ্কার করল বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন।

প্রসঙ্গত, বিশ্ব হিন্দু সংগ্রাম পরিষদের জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের আহ্বায়ক এবং সাধারণ ছাত্র অধিকার পরিষদের দপ্তর সম্পাদক তিথি সরকার অব্যাহতভাবে ফেসবুকে আল্লাহ, মহানবী হযরত মুহাম্মদ (সা.) ছাড়াও ইসলাম ধর্ম নিয়ে কটূক্তি করলে সাধারণ শিক্ষার্থীরা বিক্ষোভে ফুঁসে ওঠে। এ ঘটনায় কোতোয়ালি থানায় সাধারণ শিক্ষার্থীরা মামলা করতে গেলে পুলিশ মামলা নেয়নি। ইতোমধ্যে তাকে বাংলাদেশ ছাত্র অধিকার পরিষদ, জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় শাখার পদ থেকে বহিষ্কার করা হয়েছে।#

পার্সটুডে/আশরাফুর রহমান/২৭

বিশ্বসংবাদসহ গুরুত্বপূর্ণ সব লেখা পেতে আমাদের ফেসবুক পেইজে লাইক দিয়ে অ্যাকটিভ থাকুন।

 

 

ট্যাগ

মন্তব্য