অক্টোবর ৩০, ২০২০ ১৮:৫৪ Asia/Dhaka

বাংলাদেশে এ বছর ৮ মার্চ প্রথম করোনা রোগী শনাক্তের পর গত প্রায় নয় মাসে সরকারি হিসাবে মোট আক্রান্তের সংখ্যা পৌঁছেছে ৪ লাখ ৬ হাজার ৩৬৪ জনে। এদের মধ্যে আজ সকাল পর্যন্ত মারা গেছেন ৫ হাজার ৯০৫ জন। আর করোনা আক্রান্তদের মধ্য থেকে এ যাবত সুস্থ হয়েছেন ৩ লাখ ২২ হাজার ৭০৩ জন।

ইতোমধ্যে করোনার দ্বিতীয় ঢেউ বা শীতকালীন আক্রমণ বৃদ্ধির আশংকা ব্যক্ত করা হচ্ছে সরকারের তরফ থেকেই।

তবে আশংকার কথা হচ্ছে অনেকেই একাধিকবার আক্রান্ত হচ্ছেন। কিন্তু দেশে অ্যান্টিবডি পরীক্ষার অনুমতি না থাকার কারণে জানা যাচ্ছে না- আক্রান্ত ব্যক্তির কার শরীরে কী পরিমাণ অ্যান্টিবডি তৈরি হয়েছে। এটাও জানা যাচ্ছে না অ্যান্টিবডি তৈরি হওয়া শরীরে কতদিন থাকছে।

চিকিৎসাবিজ্ঞানীরা বলছেন, সরকারের উচিত দ্রুত অ্যান্টিবডি পরীক্ষার অনুমতি দেয়া।

এ প্রসঙ্গে সোহরাওয়ার্দী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের চিকিৎসক নীহার রঞ্জন দাস তিনবার আক্রান্ত হয়ে বর্তমানে আইসোলেশনে থাকা অবস্থায় প্রশ্ন তুলেছেন, তাহলে কি তার শরীরে অ্যান্টিবডি তৈরি হয়নি? হলে কি পরিমাণ? সরকারের অনুমতি না থাকায় তিনি অ্যান্টিবডি পরীক্ষা করাতে পারেন নি।

অপরদিকে চিকিৎসা বিজ্ঞানী লিয়াকত আলী গণমাধ্যমকে জানা, একাধিকবার এই ভাইরাসে আক্রান্ত হবার অনেক কারণ থাকতে পারে। তাই করোনা থেকে সুস্থ হবার পর কার শরীরে কী পরিমাণ অ্যান্টিবডি তৈরি হয়েছে তা জানা খুবই জরুরি।

তবে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর বলছে, গবেষণার জন্য অ্যান্টিবডি টেস্ট করা হলেও সার্বিকভাবে এর অনুমতি দেয়ার বিষয়ে এখনও কোনো সিদ্ধান্ত নেয়া হয় নি।

এদিকে, আজ শুক্রবার স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের সর্বশেষ সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে যে, দেশে মহামারি করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে গত ২৪ ঘণ্টায় আরও ১৯ জনের মৃত্যু হয়েছে। এ নিয়ে মোট মৃতের সংখ্যা বেড়ে ৫ হাজার ৯০৫ জনে দাঁড়িয়েছে। এছাড়া, নতুন করে ১ হাজার ৬০৪ জনের শরীরে করোনা শনাক্ত হয়েছে।

বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে, গত ২৪ ঘণ্টায় দেশের সরকারি ও বেসরকারি ১১২টি ল্যাবে নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে ১৪ হাজার ৩৩১টি এবং পরীক্ষা করা হয়েছে ১৪ হাজার ১৪১টি। এ নিয়ে মোট নমুনা পরীক্ষা করা হলো ২৩ লাখ ২৪ হাজার ৭৩০টি।

২৪ ঘণ্টায় নমুনা পরীক্ষা বিবেচনায় শনাক্তের হার ১১.৩৪ শতাংশ। আর মোট পরীক্ষায় এ পর্যন্ত শনাক্ত হয়েছেন ১৭.৪৮ শতাংশ।

নতুন যে ১৯ জন মারা গেছেন তাদের মধ্যে পুরুষ ১২ এবং নারী সাতজন। এখন পর্যন্ত মোট মারা যাওয়াদের মধ্যে পুরুষ ৪ হাজার ৫৪১ জন বা ৭৬.৯১ শতাংশ এবং নারী ১ হাজার ৩৬৪ জন বা ২৩.০৯ শতাংশ। শনাক্ত বিবেচনায় মোট মৃত্যুর হার ১.৪৫ শতাংশ।

এদিকে, গত ২৪ ঘন্টায়  করোনা থেকে সুস্থ হয়েছেন আরও ১ হাজার ৪২২ জন।  শনাক্ত বিবেচনায় সুস্থতার হার এখন পর্যন্ত ৭৯.৪১ শতাংশ।#

পার্সটুডে/আবদুর রহমান খান/আশরাফুর রহমান/৩০

বিশ্বসংবাদসহ গুরুত্বপূর্ণ সব লেখা পেতে আমাদের ফেসবুক পেইজে লাইক দিয়ে অ্যাকটিভ থাকুন।

 

 

ট্যাগ

মন্তব্য