মার্চ ০৫, ২০২১ ১৬:৫৩ Asia/Dhaka
  • বক্তব্য রাখছেন আইনমন্ত্রী আনিসুল হক
    বক্তব্য রাখছেন আইনমন্ত্রী আনিসুল হক

বাংলাদেশের বহুল আলোচিত ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন সংশোধন বা পরিবর্তন করার বিষয়ে সরকারের চিন্তা-ভাবনা আছে বলে ইঙ্গিত দিয়েছেন আইনমন্ত্রী আনিসুল হক। আজ (শুক্রবার) সকালে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আখাউড়া রেলস্টেশন চত্বরে এক পথসভায় বক্তৃতা শেষে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে আইনমন্ত্রী এমন ইঙ্গিত করেন।

কারাবন্দী অবস্থায় লেখক মুশতাক আহমেদের মৃত্যুর পর ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন বাতিলের দাবি নতুন করে জোরালো হয়ে উঠেছে। সেই প্রসঙ্গ টেনে সাংবাদিকরা প্রশ্ন করেছিলেন, বিতর্কিত এ আইন পরিবর্তন বা সংশোধন করার কোনো পরিকল্পনা বা সম্ভাবনা আছে কি না। উত্তরে আইনমন্ত্রী বলেন, ‘আপনারা কিছুদিনের মধ্যেই দেখতে পারবেন।’

এর আগে পথসভায় বক্তৃতায় আনিসুল হক বলেন, 'আপনাদের সাহসে প্রধানমন্ত্রী সাহসী হয়ে পদ্মা সেতু বাংলাদেশের মানুষের অর্থে নির্মাণ করছেন। কারও কাছ থেকে টাকা নিতে হয়নি। বাংলাদেশের অর্থনীতির মানচিত্র বদলে গেছে। বাংলাদেশ সারা বিশ্বে উন্নয়নের রোল মডেল হিসেবে পরিচিত হয়েছে। সবই জননেত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বের কারণে সম্ভব হয়েছে। ২০৪১ সালের মধ্যে বাংলাদেশ সারা বিশ্বে একটা উন্নত দেশ হিসেবে পরিচিত হবে।'

আইনমন্ত্রীর সামনেই দুই মেয়র প্রার্থীর সমর্থকদের সংঘর্ষ

ওদিকে,  ব্রাহ্মণবাড়িয়ার কসবায় আধিপত্য দেখাতে গিয়ে আইন, বিচার ও সংসদ বিষয়কমন্ত্রী অ্যাডভোকেট আনিসুল হকের সামনেই দুই মেয়র প্রার্থীর সমর্থকরা সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। এই ঘটনায় বিকেল পর্যন্ত কমপক্ষে ১০ জন আহত হয়েছেন।

আজ বেলা সাড়ে ১১টার দিকে উপজেলা পরিষদের সামনের সড়কে এই সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। তবে তাৎক্ষণিকভাবে আহতদের নাম পরিচয় জানা যায়নি। এ সময় প্রায় ১০টি মোটরসাইকেল ভাঙচুর করা হয়।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, দীর্ঘদিন পর আইনমন্ত্রী আনিসুল হক নিজ নির্বাচনী এলাকায় আজ সকালে আসেন। ট্রেন থেকে নেমে আখাউড়ায় একটি সংক্ষিপ্ত সভায় বক্তব্য রাখেন।

এরপর কসবা উপজেলায় সড়ক পথে উপজেলা পরিষদ চত্বরে স্মার্ট ভোটার আইডি বিতরণ করতে যান। মন্ত্রী আসার কিছু আগে কসবা পৌরসভার নির্বাচনকে সামনে রেখে মেয়র প্রার্থী বর্তমান মেয়র এমরান উদ্দিন জুয়েল ও মেয়র প্রার্থী উপজেলা যুবলীগের সভাপতি এম এ আজিজের সমর্থকরা বিভিন্ন স্লোগান দিতে থাকেন। এর কিছুক্ষণ পরই দুইপক্ষ সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়েন। প্রায় ১৫ মিনিট সংঘর্ষ শেষে পরিস্থিতি শান্ত হয়।

এরপর আইনমন্ত্রী উপজেলা পরিষদে আসেন পূর্বনির্ধারিত অনুষ্ঠানে যোগ দিতে। অনুষ্ঠান চলাকালে আবারও সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়েন জুয়েল-আজিজ সমর্থকরা।#

পার্সটুডে/আবদুর রহমান খান/আশরাফুর রহমান/৫

বিশ্বসংবাদসহ গুরুত্বপূর্ণ সব লেখা পেতে আমাদের ফেসবুক পেইজে লাইক দিয়ে অ্যাকটিভ থাকুন।

ট্যাগ