জুন ২০, ২০২১ ১৯:৪০ Asia/Dhaka
  • ওবায়দুল কাদের ও মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর
    ওবায়দুল কাদের ও মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর

বাংলাদেশের প্রধান বিরোধী দল বিএনপি অভিযোগ করেছে, দেশে উন্নয়নের নামে মেগা প্রকল্পগুলোয় গণলুট চলছে। দলটির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর আজ রোববার রাজধানীতে জাতীয় প্রেসক্লাবে এক আলোচনা সভায় এই অভিযোগ করেন।

মির্জা ফখরুল বলেন, সরকার দেশে লুটপাটের রাজত্ব কায়েম করে পরিকল্পিতভাবে বাংলাদেশের অর্থনীতিকে ধ্বংস করছে। দেশের মেগা প্রজেক্টগুলোতে চলছে চলছে গণলুট। সরকার মেগা প্রকল্পের নামে টাকা বানানোর প্রকল্প তৈরি করেছে।

বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা সাবেক রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে আয়োজিত এক আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে মির্জা ফখরুল বলেন দেশে কৃষকদের উৎপাদিত পণ্যের বাজারজাত করার ব্যবস্থা নেই। স্বাস্থ্য খাতে করুণ অবস্থা। করোনার টিকার কোনো নিশ্চয়তা নেই। স্বাস্থ্য খাতের যাঁরা এই টিকার সঙ্গে জড়িত, তাঁরা সবাই দুর্নীতির সঙ্গে জড়িত হয়ে গেছেন।

ওদিকে, ক্ষমাতাসীন দল আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের অভিযোগ করেছেন, বিএনপি দেশে লুটপাটতন্ত্র চালু করেছিল। বহুদলীয় গণতন্ত্রের নামে বাংলাদেশকে বহুদলীয় তামাশায় পরিণত করেছিল। বিএনপি শাসনামলে দুর্নীতির কারণে তাদের কোনো নেতাকে শাস্তির আওতায় আনা হয়নি।

আজ (রোববার) রাজধানীর বঙ্গবন্ধু অ্যাভিনিউয়ে ঢাকা জেলা আওয়ামী লীগের বর্ধিত সভায় সরকারের  সাফল্য প্রসঙ্গে সেতুমন্ত্রী বলেন, ১২ বছর আগের ঋণগ্রস্ত বাংলাদেশ এখন ঋণসহায়তার এক অভূতপূর্ব সাফল্যের দেশ। অর্থনীতির প্রতিটি সূচকে এগিয়ে যাওয়া বাংলাদেশ মাথা তুলে দাঁড়িয়েছে। চলমান মেগা প্রকল্পগুলোর কাজ শেষ হলে দেশের অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধির ধারা আরও বাড়বে।

এ ছাড়া, সরকারের তথ্য ও সম্প্রচারমন্ত্রী হাছান মাহমুদ বলেছেন, বিএনপি ও তার মিত্ররা দেশের উন্নয়ন দেখতে পায় না। দেশে দরিদ্র মানুষের সংখ্যা ৪১ শতাংশ থেকে ২০ শতাংশে নেমে এসেছে। খাদ্য ঘাটতির দেশ থেকে খাদ্য উদ্বৃত্তের দেশে পরিণত হয়েছে। স্বল্পোন্নত দেশের তালিকা থেকে মধ্যম আয়ের দেশে রূপান্তরিত হয়েছে। একসময়ের ঋণগ্রহীতা বাংলাদেশ এখন অন্য দেশকে ঋণ দেয়।

আজ রোববার দুপুরে চট্টগ্রামের রাঙ্গুনিয়া এক অনুষ্ঠান শেষে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক হাছান মাহমুদ বলেন, ‘একসময় বাংলাদেশকে কেউ কেউ বলত তলাবিহীন ঝুড়ির দেশ, সেই বাংলাদেশ এখন উপচে পড়া খাদ্যে উদ্বৃত্তের দেশ। দুর্যোগ–দুর্বিপাকে আগে আমরা অন্য দেশ থেকে সাহায্য নিতাম, এখন আমরা বিভিন্ন দেশকে সাহায্য করি। নেপালের ভূমিকম্পে আমরা ৩০ হাজার মেট্রিক টন চাল সহায়তা দিয়েছি। শ্রীলঙ্কা, ফিলিস্তিনসহ অন্যান্য দেশকেও আমরা সহায়তা দিয়েছি।’#

পার্সটুডে/ আব্দুর রহমান খান/ বাবুল আখতার /২০

বিশ্বসংবাদসহ গুরুত্বপূর্ণ সব লেখা পেতে আমাদের ফেসবুক পেইজে লাইক দিয়ে অ্যাকটিভ থাকুন। 

 

 

ট্যাগ