অক্টোবর ১৮, ২০২১ ১৮:০৪ Asia/Dhaka
  • 'সরকার কৃত্রিমভাবে কুমিল্লার ঘটনা ঘটিয়েছে'

সরকার কৃত্রিমভাবে কুমিল্লার ঘটনা ঘটিয়েছে বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব অ্যাডভোকেট রুহুল কবির রিজভী। সোমবার দুপুরে জিয়াউর রহমান ফাউন্ডেশনের ২২তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে শেরেবাংলা নগরস্থ শহীদ প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমানের মাজারে পুষ্পস্তবক অর্পণ ও জিয়ারত শেষে তিনি এ মন্তব্য করেন।

রিজভী বলেন, করোনায় ব্যর্থতা, মানুষের সুচিকিৎসা দিতে ব্যর্থতা, নিরাপত্তা নিশ্চিতে ব্যর্থতা, ও দ্রব্যমূল্যের সীমাহীন যে ঊর্ধ্বগতি তা মোকাবেলা করতে না পেরে সরকার কৃত্রিমভাবে কুমিল্লার ঘটনা ঘটিয়েছে। যাতে মানুষের দৃষ্টি ঐ দিকে যায়। মানুষ যেন ওইটা নিয়েই পড়ে থাকে। সরকারের এই সমস্ত ব্যর্থতাগুলো যেন মানুষ আলোচনা করতে না পারে। অর্থাৎ সরকার তার নীলনকশা অনুযায়ী কাজ করছে।তিনি বলেন, আজকে ভয়-ভীতি, শঙ্কার যে নৈরাজ্যকর পরিস্থিতি সেটা সরকার সৃষ্টি করেছে। অত্যন্ত কৃত্রিমভাবে এই নৈরাজ্য সৃষ্টি করে সারাদেশের মানুষের মধ্যে এক ধরনের ভীতি সৃষ্টি করেছে।বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব বলেন, আমরা এমন এক পরিস্থিতির মধ্যে বাস করছি এখানে কিসের মানবসেবা? আজকে করোনা মহামারীতে মানুষ আর্তনাদ করছে। বিনা চিকিৎসায় বিভিন্ন হাসপাতালে মানুষের জীবন চলে যাচ্ছে।

ঢাকার দু’একটা হাসপাতাল ছাড়া মানুষ ওষুধ পাচ্ছে না, চিকিৎসা সরঞ্জাম পাচ্ছে না। ঢাকার অবস্থা বিপন্ন, ঢাকার বাইরে মফস্বলের অবস্থা ভয়ঙ্কর। সেটা মোকাবেলা করার ক্ষমতা এই সরকারের নেই। সুতরাং জনগণের দৃষ্টিকে অন্যদিকে প্রবাহিত করার জন্য এমন কোনো অমানবিক কাজ নেই যা এই সরকার করছে না।তিনি বলেন, আজকে মানুষের নিরাপত্তা নেই। সংখ্যালঘুরা নিরাপদ জীবন যাপন করতে পারছে না। উদ্বেগ-উৎকণ্ঠার মধ্যে তারা জীবন-যাপন করছেন। আর অন্যদিকে পবিত্র কোরান অবমাননা হচ্ছে। আপনারা কুমিল্লার পূজামণ্ডপের অবস্থা দেখেছেন। সরকার নাকি সমস্ত আইনশৃঙ্খলা রক্ষা করতে পারেন। তাহলে এ ধরনের একটি ঘটনা কিভাবে ঘটল।

রিজভী বলেন, আজকে যারা সরকারের আইনশৃঙ্খলা বাহিনী, গোয়েন্দা বিভাগ তারা বিএনপি নেতাকর্মী মাটির পাতালে থাকলেও তাদের খুঁজে বের করে মামলা দিয়ে কারাগারে পাঠাচ্ছে। আর কুমিল্লা, হাজীগঞ্জসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে এত বড় একটা ঘটনা ঘটে গেল সরকারের গোয়েন্দা সংস্থা কিছুই বলতে পারল না। তিনি বলেন, সরকারের মন্ত্রীরা একের পর এক আজেবাজে কথা বলে, মিথ্যাচার করে সমাজের মধ্যে বিভেদ-বিভাজন সৃষ্টি করছে। কয়েকদিন আগে ওবায়দুল কাদের সাহেব বলেছেন বিএনপি আন্দোলন করতে পারে না, তাদের আন্দোলন করার ক্ষমতা নাই। আর গতকাল হাছান মাহমুদ ও ওবায়দুল কাদের সাহেব বলছেন এই সমস্ত ঘটনার জন্য বিএনপি দায়ী।

তারা পরশুদিন যেটা বলছেন আজকে সেটার পুরোপুরি উল্টো কথা বলছেন।রিজভী বলেন, বিএনপি জন্মলগ্ন থেকে জনগণের পক্ষে, বিএনপি মানুষের পক্ষে কাজ করেছে। তাই বিএনপি'র প্রতিষ্ঠাতা জিয়াউর রহমানের নামেই জিয়াউর রহমান ফাউন্ডেশন গড়ে উঠেছে। জিয়াউর রহমানের যে আদর্শ সেই ১৯ দফাকে ধারণ করেই জিয়াউর রহমান ফাউন্ডেশন তাদের মানব সেবা মূলক কাজ করে যাচ্ছে।তিনি বলেন, এই সরকারের শারীরিক ও মানসিক নির্যাতনের শিকার হয়ে জিয়াউর রহমান ফাউন্ডেশনের পৃষ্টপোষক তারেক রহমান যুক্তরাষ্ট্রে অবস্থান করছেন। মানবসেবা আদর্শ হিসেবে নিয়ে জিয়াউর রহমান ফাউন্ডেশন ঝড়, বন্যা, জলোচ্ছ্বাসে বাংলাদেশের এক প্রান্ত থেকে অন্য প্রান্তে দুস্থদের কাছে ছুটে যায়। তারা বন্যার সময় ত্রাণ বিতরণ করে, শীতের সময় কম্বল বিতরণ করে। করোনার সময়ও ঢাকাসহ সারা বাংলাদেশে জিয়াউর রহমান ফান্ডেশন খাদ্য বিতরণ করেছে, অক্সিজেন দিয়েছে। এ জন্য আমি তাদের মঙ্গল ও সাফল্য কামনা করি।

পার্সটুডে/ বাবুল আখতার /১৮

বিশ্বসংবাদসহ গুরুত্বপূর্ণ সব লেখা পেতে আমাদের ফেসবুক পেইজে লাইক দিয়ে অ্যাকটিভ থাকুন। 

ট্যাগ