নভেম্বর ২২, ২০২১ ১৯:০৭ Asia/Dhaka

সর্বভারতীয় তৃণমূল কংগ্রেসের সর্বভারতীয় সাধারণ সম্পাদক অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় এমপি ত্রিপুরার মুখ্যমন্ত্রী বিপ্লব দেবকে ‘নির্লজ্জ’ বলে কটাক্ষ করেছেন।

তিনি আজ (সোমবার) ত্রিপুরায় এক সংবাদ সম্মেলনে বক্তব্য রাখার সময়ে ওই মন্তব্য করেন।

অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় বিজেপি নেতা ও মুখ্যমন্ত্রী বিপ্লব দেবকে টার্গেট করে বলেন, ‘আমি বিপ্লব বাবুকে অনুরোধ করব আপনি এতটাই নির্লজ্জ হয়ে গেছেন যে, ভারতবর্ষের একটা রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী আপনি। মানুষ আপনাকে ভোট দিয়ে নির্বাচিত করেছে একবুক আশা, আকাঙ্ক্ষা, স্বপ্ন নিয়ে। আপনি যে সময়ে মানুষের উপরে অত্যাচার করছেন, বিরোধীদের উপরে অত্যাচার করছেন, হেলমেট বাহিনী, বাইক বাহনীদের পাঠিয়ে তাণ্ডব করছেন পাড়ায় পাড়ায়, এই সময়টুকু যদি উন্নয়নমূলক কর্মসূচিতে দিতেন, তাহলে আজকে ত্রিপুরার এই অবনতি বা পরিণতি হতো না।’  

অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় ত্রিপুরার বিজেপি সরকারকে টার্গেট করে বলেছেন, ‘ভারতবর্ষে হয়তো ১৯৪৭ সালে স্বাধীনতা এসেছে, কিন্তু ত্রিপুরায় স্বাধীনতা আসেনি। ত্রিপুরার মানুষ কোন রাস্তা দিয়ে হাঁটবে, কাকে ভোট দেবে, কী পরবে, কার সাথে কথা বলবে, কোন রাজনৈতিক দলের পথসভায় যাবে, কোন রাজনৈতিক দলের পথসভায় যাবে না, কাকে ফোন করবে, কী পছন্দ, কী অপছন্দ তা প্রকাশ করার মতো স্বাধীনতা নেই। এটা অত্যন্ত দুর্ভাগ্যজনক!’  

অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় রাজ্যে আইনশৃঙ্খলার অবনতি ইস্যুতে বলে, ‘হাসপাতালে রোগী নিরাপদ নয়, চিকিৎসক নিরাপদ নয়, কোর্টে আইনজীবী নিরাপদ নয়, পাড়ায় পাড়ায় মানুষ নিরাপদ নয়, থানায় পুলিশ নিরাপদ নয়। বিরোধীদের কথা তো ছেড়েই দিন। রোজ দশটা করে গাড়ি ভাঙছে। কখনও এর মাথা ফাটানো, এর পায়ে মারা, ওর কোমর ভাঙা এই হচ্ছে ত্রিপুরা মডেল!’   

ত্রিপুরায় আগামী ২৫ নভেম্বর পৌরসভা নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। তার আগে রাজ্যটিতে তৃণমূলের সভা-সমাবেশকে কেন্দ্র করে ক্ষমতাসীন বিজেপি এবং তৃণমূলের মধ্যে তুমুল সংঘাত শুরু হয়েছে। যুব তৃণমূল সভানেত্রী সায়নী ঘোষকে পুলিশ গতকাল (রোববার) গ্রেফতার করায় সেখানকার পরিস্থিতি বেশ উত্তপ্ত হয়ে উঠেছে। #

পার্সটুডে/এমএএইচ/ আবুসাঈদ/২২

বিশ্বসংবাদসহ গুরুত্বপূর্ণ সব লেখা পেতে আমাদের ফেসবুক পেইজে লাইক দিয়ে অ্যাকটিভ থাকুন।

ট্যাগ