নভেম্বর ২৫, ২০২১ ১৮:৩৩ Asia/Dhaka
  • উত্তর প্রদেশের শ্রম প্রতিমন্ত্রী রঘুরাজ সিং
    উত্তর প্রদেশের শ্রম প্রতিমন্ত্রী রঘুরাজ সিং

ভারতের বিজেপিশাসিত উত্তর প্রদেশের শ্রম প্রতিমন্ত্রী রঘুরাজ সিং বিতর্কিত মন্তব্য করে বলেছেন, মাদ্রাসাগুলো সন্ত্রাসীদের ঘাঁটি, সেখানে সন্ত্রাসীদের প্রশিক্ষণ দেওয়া হয়।

মাদ্রাসা থেকে বের হয়ে একজন সন্ত্রাসী হয়, তাদের চিন্তাভাবনা সন্ত্রাসী। ভগবান সুযোগ দিলে সারাদেশের মাদ্রাসা বন্ধ করে দেবো। আজ (বৃহস্পতিবার) গণমাধ্যমে তার এ ধরণের মন্তব্য প্রকাশ্যে উত্তর প্রদেশে রাজনৈতিক মহলে আলোড়ন সৃষ্টি হয়েছে।  

‘সুহেলদেব ভারতীয় সমাজ পার্টি’র প্রধান ওমপ্রকাশ রাজভর আজ বিজেপিকে টার্গেট করে বলেন, ‘ওদের কাছে কবরস্থান, মাদ্রাসা, ভারত-পাকিস্তান, মন্দির-মসজিদ ছাড়া কোনও ইস্যু নেই। এ ছাড়া ওদের জিজ্ঞেস করুন মূল্যস্ফীতি কোথা থেকে হয়েছে? মূল্যস্ফীতি তো বিজেপি থেকে বেরিয়েছে। দুর্নীতি তো বিজেপি থেকে বেরোচ্ছে। ভারতীয় জনতা পার্টির (বিজেপি) যত নেতা আছে, তা সে দিল্লি অথবা লক্ষনৌ হোক না কেন,  তাদেরকে নাগপুরে (আরএসএসের সদর দফতর) প্রশিক্ষণ দেওয়া হয় তোমরা মিথ্যা কথা বলো, হিন্দু-মুসলিমের রাজনীতি করো, ধর্মের কথা বলো, শিক্ষার কথা বোলো না, কর্মসংস্থানের কথা বলো না- এসব চলছে।’     

আজ হিন্দি গণমাধ্যম ‘আজতক’জানিয়েছে, উত্তর প্রদেশের প্রতিমন্ত্রী  রঘুরাজ সিং বলেছেন, সন্ত্রাসের মুখ গুঁড়িয়ে দিতে হবে, সাপের মতো তার ফণা পিষে দিতে হবে। একইভাবে সন্ত্রাসবাদের ফণাকেও আমরা গুঁড়িয়ে দেবো। উত্তর প্রদেশে ২৫০টি মাদ্রাসা ছিল, আজ ২২ হাজার মাদ্রাসা প্রতিষ্ঠিত হয়েছে! যারা মাদ্রাসা থেকে পড়েছে, যত ‘আইএসআই’-এর   এজেন্ট, সবাই মাদ্রাসা থেকে বেরিয়েছে।

জমিয়তে উলামায়ে হিন্দের পশ্চিমবঙ্গের সাধারণ সম্পাদক মুফতি আব্দুস সালাম

এ প্রসঙ্গে ভারতের জমিয়তে উলামায়ে হিন্দের পশ্চিমবঙ্গের সাধারণ সম্পাদক মুফতি আব্দুস সালাম আজ (বৃহস্পতিবার) রেডিও তেহরানকে বলেন, ‘উত্তর প্রদেশের শ্রম  প্রতিমন্ত্রী রঘুরাজ সিং যা বলেছেন, ‘ওনাদের মত মানুষ, যারা মাদ্রাসার কোনোদিন ছায়াও মাড়ায়নি, মানে একেবারে অজ্ঞতার যে পরিচয় উনি দিচ্ছেন এরকম মন্তব্য তো আরএসএস-বিজেপি’র পক্ষ থেকে আমরা বারবার শুনেছি, এবং আমরা বারবার   তার প্রমাণ চেয়েছি। যখন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ছিলেন এলকে আদবানী তখন ওনার কাছেও পার্লামেন্টে প্রশ্ন উঠেছিল যে আাদবানীজী আপনি বলুন- আপনি স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী, মাদ্রাসা   সম্পর্কে আপনার ধারণা কী? মাদ্রাসা থেকে কী সন্ত্রাসবাদী বেরিয়ে আসছে? উনি পার্লামেন্ট বসে উত্তর দিয়েছিলেন আজ পর্যন্ত কোনও মাদ্রাসা ছাত্র পড়াশোনা করে বেরিয়েছে এমন কেউ সন্ত্রাসবাদী হয়েছে এমন কোনও প্রমাণ নেই।’  

তিনি বলেন, ‘উত্তর প্রদেশে বিধানসভা নির্বাচন আসন্ন। তাদের কাছে সাম্প্রদায়িক তাস আর হিন্দু-মুসলিম বিভাজন করা ছাড়া কোনো ইস্যু নেই। উত্তর প্রদেশে বারবার দুর্বলরা লাঞ্ছিত, পদদলিত হয়েছে। সেখানে আদিবাসীরা, নিম্নবর্গের মহিলারা নির্যাতিত-নিপীড়িত এ সমস্ত কথাগুলো তো সবার জানা, সমস্ত মিডিয়া জানে। এই পুরাতন তাস, পুরাতন কথা, পুরাতন গল্প দিয়ে নিজের চেহারা ঢাকার চেষ্টা করছে মানুষ সেটা বুঝতে পারছে। মানুষ জানে যে মানুষকে কী করতে হবে।’ মিথ্যাবাদী হওয়ার জন্যে একবারই একটা মিথ্যা প্রমাণ হওয়া যথেষ্ট বলেও মন্তব্য করেন জমিয়তে উলামায়ে হিন্দের পশ্চিমবঙ্গের সাধারণ সম্পাদক মুফতি আব্দুস সালাম।

উত্তর প্রদেশ সরকারের প্রতিমন্ত্রী আরও বলেন, আমি মোদি সরকারকে সারা দেশে মাদ্রাসা নিষিদ্ধ করার অনুরোধ করব। শ্রম প্রতিমন্ত্রী রঘুরাজ সিংয়ের দাবি, কেরালায় ইসলামিকবাদ চলছে। সেখানে কমিউনিস্ট সরকার থাকায় হিন্দু মেয়েরা অত্যাচারের শিকার হচ্ছে। #   

পার্সটুডে/এমএএইচ/ আবুসাঈদ/২৫

বিশ্বসংবাদসহ গুরুত্বপূর্ণ সব লেখা পেতে আমাদের ফেসবুক পেইজে লাইক দিয়ে অ্যাকটিভ থাকুন।

ট্যাগ