জানুয়ারি ১৯, ২০২২ ২০:১৯ Asia/Dhaka
  • উত্তর প্রদেশে ১৯ জন মুসলিমকে প্রার্থী করেছে কংগ্রেস

উত্তর প্রদেশে সাংবাদিক নিদা আহমেদ, সমাজকর্মী সাদাফ জাফর এবং  ছাত্র নেতা সালমানসহ ১৯ জন মুসলিমকে প্রার্থী করেছে কংগ্রেস।

ভারতের উত্তর প্রদেশে আসন্ন বিধানসভা নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করার জন্য কংগ্রেসের প্রথম তালিকায় ১৯ জন মুসলিমকে টিকিট দেওয়া হয়েছে। কংগ্রেসের এই তালিকায় কিছু বিখ্যাত মুসলিম মুখ রয়েছে।

এরমধ্যে রয়েছে নিদা আহমেদের নাম, যিনি সাংবাদিকতা থেকে রাজনীতিতে এসেছেন, সালমান ইমতিয়াজ আলীগড় মুসলিম বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক ছাত্র ইউনিয়নের সভাপতি এবং সাদাফ জাফর সংশোধিত নাগরিকত্ব আইন (সিএএ) ইস্যুতে আন্দোলন চলাকালীন সংগ্রামের প্রতীক হয়েছিলেন।    

সালমান ইমতিয়াজ    

আলীগড় সিটি বিধানসভা থেকে সালমান ইমতিয়াজকে প্রার্থী করেছে কংগ্রেস। সালমান ইমতিয়াজ আলীগড় মুসলিম বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র ইউনিয়নের সভাপতি ছিলেন। তিনি আলীগগড় মুসলিম বিশ্ববিদ্যালয়ের সমাজকর্ম বিভাগের একজন গবেষক ছাত্র। কয়েক মাস আগে কংগ্রেসে যোগ দিয়েছিলেন সালমান ইমতিয়াজ।    

সাদাফ জাফর  

সাদাফ জাফরকে লক্ষনৌয়ের মধ্য বিধানসভা থেকে প্রার্থী করা হয়েছে। সাদাফ ২০১৯ সালে সংশোধিত নাগরিকত্ব আইন (সিএএ) বিরোধী আন্দোলনের মুখ ছিলেন। ‘সিএএ’বিরোধী বিক্ষোভের সময় সাদাফকে জাফরকে গ্রেফতারও করা হয়েছিল। তিনি প্রায় ২৫ দিন কারাগারে ছিলেন। উত্তর প্রদেশে বিজেপি নেতৃত্বাধীন যোগী আদিত্যনাথ সরকার সিএএ-বিরোধী প্রতিবাদের সময়ে বিক্ষোভে জড়িত ব্যক্তিদের চিহ্নিত করেছিল এবং তাদের ছবি লক্ষনৌ এবং অন্যান্য শহরের মোড়ে ঝুলিয়েছিল। এরমধ্যে সাদাফ  জাফরের ছবিও ছিল। পরে, ইলাহাবাদ হাইকোর্ট উত্তর প্রদেশ সরকারের ওই পদক্ষেপকে ভুল বলে অভিহিত করে অবিলম্বে সেই পোস্টার সরানোর নির্দেশ দিয়েছিল। সাদাফ জাফর লক্ষনৌয়ের বিভিন্ন স্কুলে শিক্ষকতাও করেছেন। তিনি অভিনেত্রীও ছিলেন হয়েছেন। লক্ষনৌ সেন্ট্রাল এবং দ্য আনসুটেবল বয়-এর মতো ছবিতেও অভিনয় করেছেন তিনি।

নিদা আহমেদ   

সম্ভল বিধানসভা থেকে সাবেক সাংবাদিক নিদা আহমেদকে টিকিট দিয়েছে কংগ্রেস। নিদা সম্প্রতি কংগ্রেসে যোগ দিয়েছেন। তিনি বিগত কয়েক বছর ধরে ইলেকট্রনিক মিডিয়ায় কাজ করছিলেন। কংগ্রেসে যোগ দেওয়ার আগে, নিদা আহমেদ হিন্দি জাতীয় নিউজ চ্যানেল 'নিউজ ইন্ডিয়া'তে সিনিয়র প্রযোজক হিসেবে কাজ করছিলেন। নিদা 'জি ইউপি উত্তরাখণ্ড', 'জি সালাম' 'তেজ', 'সমাচার প্লাস', 'ইটিভি নেটওয়ার্ক', নেটওয়ার্ক ১৮ এবং 'নিউজ ওয়ার্ল্ড ইন্ডিয়া'তে সাংবাদিক হিসেবে কাজ করেছেন। 

নিদা আহমেদের জন্ম উত্তর প্রদেশের সম্ভল জেলায়। তার দাদা একটানা ২৫ বছর সম্বলের চেয়ারম্যান ছিলেন। তার বাবা মুহাম্মাদ মুদাসসির একজন সরকারি শিক্ষক এবং বিগত কয়েকবছর ধরে কংগ্রেস দলের সঙ্গে যুক্ত। 

সোহেল আনসারি 

সোহেল আনসারি কংগ্রেসের বর্তমান বিধায়ক। তিনি কানপুরের ক্যান্ট বিধানসভা আসনের প্রতিনিধিত্ব করেন।

সোহেল আনসারি আগে বহুজন সমাজ পার্টিতে ছিলেন এবং বিএসপি থেকে ২০১২ সালের বিধানসভা নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেছিলেন কিন্তু সফল হতে পারেননি।

লুইস খুরশিদ 

কংগ্রেস ফারুখাবাদ সদর আসন থেকে সাবেক বিদেশমন্ত্রী সালমান খুরশিদের স্ত্রী এবং সাবেক বিধায়ক লুইস খুরশিদকে প্রার্থী করেছে। লুইস খুরশিদ ২০১২ সালে এই আসন থেকে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করে হেরে যান। তিনি অবশ্য ২০০২ সালে কায়মগঞ্জ বিধানসভা কেন্দ্র থেকে নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করে বিধায়ক নির্বাচিত হয়েছিলেন। ২০০৭ সালে লুইস খুরশিদ কায়মগঞ্জ আসন থেকে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করলেও পরাজিত হন। সেসময়ে বিএসপি থেকে বিধায়ক হন কুলদীপ গাঙ্গওয়ার। লুইস খুরশিদ প্রায় ২২ হাজার ভোট পেয়ে চতুর্থ হয়েছিলেন। ২০১২ সালের নির্বাচনে, কায়মগঞ্জ আসনটি তফসিলি জাতির জন্য সংরক্ষিত ছিল। ২০১৭ সালে সমাজবাদী পার্টির সাথে জোটের কারণে ওই আসনটি সমাজবাদী পার্টির খাতায় ছিল।        

উল্লেখিত ওই নামগুলো ছাড়াও কংগ্রেস নজিবাবাদ থেকে মুহাম্মাদ সেলিম আনসারি, মোরাদাবাদ দেহাত থেকে মুহাম্মাদ নাদিম, মোরাদাবাদ নগর থেকে রিজওয়ান কুরেশি, আসমোলি থেকে হাজী মারগুব আলম, সোয়ার থেকে হায়দার আলী খান, চমরৌহা থেকে ইউসুফ আলী ইউসুফ, রামপুর থেকে কাজিম আলী খান, অমরোহা থেকে সেলিম, ছাপরৌলি থেকে ইউনুস চৌধুরী, লোনী থেকে ইয়ামিন মালিক, মীরগঞ্জ থেকে মুহাম্মাদ ইলিয়াস, দাদরৌল থেকে তানভীর হায়দার, সীতাপুর থেকে শামীনা শফিক, সাগরী থেকে রানা খাতুনকে প্রার্থী করেছে।       

প্রসঙ্গত, উত্তর প্রদেশে ১২৫ জন প্রার্থীর প্রথম তালিকা প্রকাশ করেছে কংগ্রেস দল। কংগ্রেসের ওই তালিকায় ৪০ শতাংশ নারী এবং ৪০ শতাংশ যুবক রয়েছে। কংগ্রেস এই তালিকায় ৪০ টি টিকিট দিয়েছে সাধারণ শ্রেণীর লোকদের, যেখানে ২৭ প্রার্থী ওবিসি, ৩২টিতে দলিত প্রার্থী এবং একটি আসনে তপসিলী উপজাতি প্রার্থীকে শামিল করা হয়েছে।#

পার্সটুডে/এমএএইচ/১৯

বিশ্বসংবাদসহ গুরুত্বপূর্ণ সব লেখা পেতে আমাদের ফেসবুক পেইজে লাইক দিয়ে অ্যাকটিভ থাকুন। 

 

ট্যাগ