জানুয়ারি ২৩, ২০২২ ১৮:৫৭ Asia/Dhaka
  • মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়
    মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়

ভারতের পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেছেন, বাঙালির ইতিহাস মুছে দেওয়ার ক্ষমতা কারও নেই। তিনি আজ (রোববার) নেতাজি সুভাষ চন্দ্র বসুর ১২৫ তম জন্মবার্ষিকী উদযাপন উপলক্ষে কোলকাতায় এক অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখার সময়ে ওই মন্তব্য করেন।

মমতা  ‘কেন্দ্রীয় সরকারকে টার্গেট করে বলেন,  ‘আজকে বাংলাকে এত অবজ্ঞা! এত অবজ্ঞা কেন?  বাঙালির ইতিহাস মুছে দেওয়ার ক্ষমতা কারও নেই, আমার চ্যালেঞ্জ রইল। ভারতবর্ষের প্রকৃত ইতিহাস মুছে দেওয়ার ক্ষমতাও কারও নেই। যারা এটা করবেন তারা আগুনে হাত পোড়াবেন এটা জেনে রাখবেন।’ 

প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির নাম না করে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, ‘মশালে আগুন জ্বেলে সৈনিকদের সম্মান জানান।  শহীদদের সম্মান জানান। একটা ‘অমর জ্যোতি’ নিভিয়ে দিয়ে একটা স্ট্যাচু করে দিলেই  নেতাজিকে ভালোবাসা যায় না। এতদিন পর্যন্ত তো বের করতেই পারলেন না নেতাজির মৃত্যু রহস্য! স্ট্যাচুতে লিখবেন জন্মদিন,  মৃত্যুদিন লিখতে পারবেন তো? আমরা কেউই লিখতে পারব না। আজও কেউ এই ইতিহাস জানে না। এতদিন দেশ স্বাধীন হয়েছে, স্বাধীনতার ৭৫ বছর পার করছি, আজও কেউ জানল না? কোথায় গেলেন তিনি? হারিয়ে গেলেন? অদৃশ্য হয়ে গেলেন? কিন্তু তবুও মনে রাখবেন আজও আমরা নেতাজির আদর্শের কাছ থেকে লড়াই করার প্রেরনা পাই।’

কেন্দ্রীয় সরকারকে টার্গেট করে ‘অনেকভাবে আমাদের দাবানোর চেষ্টা করা হয়। অনেকভাবে হুমকি দেওয়া হয়। অনেকভাবে সন্ত্রাস করা হয় বলেও মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় মন্তব্য করেন। মমতা আজ হিন্দু-মুসলিমের মধ্যে বিভাজনের রাজনীতির তীব্র সমালোচনা করেন।

ভারতের রাজধানী দিল্লির ইন্ডিয়া গেটের সামনে ‘অমর জওয়ান জ্যোতি’র অনির্বাণ শিখাকে ন্যাশনাল ওয়ার মেমোরিয়ালে মিশিয়ে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে কেন্দ্রীয় সরকার। ওই সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে বিরোধীরা সোচ্চার হওয়ায় কেন্দ্রীয় সরকার বলছে, অমর জওয়ান জ্যোতির অনির্বাণ শিখা নিভছে না, তাকে জাতীয় যুদ্ধ স্মারকে প্রজ্জ্বলিত শিখার সঙ্গে মিশিয়ে দেওয়া হচ্ছে। যদিও ওই ইস্যুতে বিতর্কে থেমে নেই তা স্পষ্ট হয়েছে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের আজকের বক্তব্যের মধ্যে। #

পার্সটুডে/আএমএএইচ/এমআরএইচ/২৩     

বিশ্বসংবাদসহ গুরুত্বপূর্ণ সব লেখা পেতে আমাদের ফেসবুক পেইজে লাইক দিয়ে অ্যাকটিভ থাকুন। 

ট্যাগ