জুন ২৫, ২০২২ ২০:১৬ Asia/Dhaka
  • অধীর রঞ্জন চৌধুরী এমপি
    অধীর রঞ্জন চৌধুরী এমপি

ভারতের প্রধান বিরোধীদল কংগ্রেস অগ্নিপথ প্রকল্প বাতিলের দাবিতে আগামী (সোমবার) দেশজুড়ে আন্দোলন কর্মসূচি হাতে নিয়েছে।

কেন্দ্রীয় সরকারের অগ্নিপথ প্রকল্পে চুক্তিভিত্তিক সেনা নিয়োগের প্রতিবাদে দেশে তীব্র ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে। বিশেষ করে তরুণ ও যুবকরা ওই ইস্যুতে ক্ষোভে ফুঁসছেন।   

পশ্চিমবঙ্গ প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি অধীর রঞ্জন চৌধুরী এমপি বলেছেন,  ‘একদিকে যখন চীন ও পাকিস্তান চোখ রাঙাচ্ছে, সেই সময়ে মোদী সরকার সেনাবাহিনীকে শক্তিশালী করার পরিবর্তে আরও দুর্বল করে দেওয়ার চেষ্টা করছে। চালু হওয়ার আগেই অগ্নিপথপ্রকল্পে বেশ কয়েকবার নানা নিয়ম পরিবর্তনের ঘোষণা করা হয়েছে। এরফলে বোঝাই যাচ্ছে এটি নড়বড়ে প্রকল্প! এটা আরও একটা ধাপ্পাবাজি ছাড়া কিছুই নয়!

ওই প্রকল্প সম্পূর্ণ প্রত্যাহারের দাবিতে আগামী ২৭ জুন সোমবার দেশ জুড়ে কর্মসূচি নিয়েছে সর্বভারতীয় কংগ্রেস কমিটি। বিভিন্ন রাজ্যে বিক্ষোভ প্রদর্শন কর্মসূচির নির্দেশ দিয়েছেন কংগ্রেসের সভানেত্রী সোনিয়া গান্ধী। এ ব্যাপারে জোর দেওয়া হচ্ছে গ্রামাঞ্চলে। কারণ, ওই অঞ্চলের যুবকদেরই সাধারণত সেনাবাহিনীতে যোগ দেওয়ার উৎসাহ বেশি। সেজন্য দেশের যুব সমাজকে সচেতন করতেই পথে নামছে কংগ্রেস।  তাদের দাবিঅগ্নিপথ প্রকল্প বাতিল করতে হবে।

সর্বভারতীয় কংগ্রেস কমিটির মুখপাত্র ও সাবেক এমপি মানবেন্দ্র সিং শুক্রবার এক সংবাদ সম্মেলনে বলেন, বিন্দুমাত্র আগুপিছু না ভেবে স্রেফ চমক দিতেই অগ্নিপথ প্রকল্পের ঘোষণা করেছে মোদি সরকার। মাত্র ছমাসে সত্যিই কি প্রকৃত কোনও সেনা প্রশিক্ষণ হয়? অবসরপ্রাপ্ত সেনা জওয়ানরাই ঠিক মতো কাজ পাচ্ছেন না, তার মধ্যে চার বছর পর চাকরি শেষে অগ্নিবীররা কোথায় চাকরি পাবে

কার্গিল যুদ্ধে জেনারেল বেদ প্রকাশ মালিকের মিডিয়া উপদেষ্টার কাজ করেছেন মানবেন্দ্র সিং। তিনি বলেন, ২০২১ সালের প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের তথ্যে প্রকাশ, অবসরের পর সরকারি গ্রুপ সিএবং ডিপদের জন্য সেনা জওয়ানদের সংরক্ষণ রয়েছে যথাক্রমে ১০ এবং ২০ শতাংশ। কিন্তু বাস্তবে কাজ পেয়েছেন মাত্র ১.২৯ এবং ১.৬৬ শতাংশ। কেন্দ্রীয় রাষ্ট্রায়ত্ত সংস্থাতেও ওই দুটি বিভাগে অবসরপ্রাপ্ত সেনার চাকরিতে সংরক্ষণ রয়েছে ১৪.৫ এবং ২৪.৫ শতাংশ। কিন্তু বাস্তবে কাজ পেয়েছেন মাত্র ১.১৫ এবং ০.৩ শতাংশ। গত তিন বছর সেনায় কোনও নিয়োগ হয়নি। এই অবস্থায় অগ্নিপথের মতো প্রকল্পের কথা বলে সরকার দেশকে অশান্ত করছে। 

এ দিকে, শনিবার প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি অধীর চৌধুরী সাংবাদিক বৈঠকে বলেন, গত কয়েকদিন ধরে রাহুল ও সোনিয়া গান্ধীকে ইডির তলব করার বিরুদ্ধে রাস্তায় নেমেছে দল। এবার সেই ইস্যুর পাশাপাশি অগ্নিপথকেও মোদিবিরোধী আন্দোলনের হাতিয়ার করছেন রাহুল-সোনিয়ারা। তিনি আরও বলেন, অগ্নিপথ প্রকল্প মোদি সরকারের একটি ধোঁকাবাজি। নোটবন্দি, জিএসটি, বিদেশি ব্যাঙ্ক থেকে কালো টাকা উদ্ধার, কৃষি বিল কার্যকর করার চেষ্টার মতো একের পর এক এ ধরনের ধোঁকাবাজির প্রকল্প নিয়েছে এই সরকার। অগ্নিপথের নামে অস্থায়ী সেনা নিয়োগের মতো ঝুঁকিপূর্ণ পরিকল্পনা এই সরকারের তেমনই একটি ধাপ্পাবাজি। সেজন্য এর বিরুদ্ধে রাস্তায় নামার সিদ্ধান্ত নিয়েছে কংগ্রেস হাইকম্যান্ড। #  

পার্সটুডে/এমএএইচ/মো.আবুসাঈদ/২৫

বিশ্বসংবাদসহ গুরুত্বপূর্ণ সব লেখা পেতে আমাদের ফেসবুক পেইজে লাইক দিয়ে অ্যাকটিভ থাকুন।

ট্যাগ