আগস্ট ১২, ২০২২ ১৯:১৩ Asia/Dhaka
  • ফিরহাদ হাকিম, জ্যোতিপ্রিয় মল্লিক এবং অরূপ রায়
    ফিরহাদ হাকিম, জ্যোতিপ্রিয় মল্লিক এবং অরূপ রায়

ভারতের পশ্চিমবঙ্গে শাসকদলের নেতা-নেত্রীদের সম্পত্তি বৃদ্ধি মামলায় হাইকোর্টের দ্বারস্থ হয়েছেন রাজ্যের তিন মন্ত্রী ফিরহাদ হাকিম, জ্যোতিপ্রিয় মল্লিক এবং অরূপ রায়।   

গত ৮ আগস্ট ওই মামলায় এনফোর্সমেন্ট ডিরেক্টরেটকে (ইডি) যুক্ত করার নির্দেশ দেয় আদালত। আজ (শুক্রবার) আদালতের সেই নির্দেশ পুনর্বিবেচনার আবেদন  জানিয়েছেন রাজ্যের তিন মন্ত্রী। হাই কোর্টের প্রধান বিচারপতি প্রকাশ শ্রীবাস্তব এবং বিচারপতি রাজর্ষি ভরদ্বাজের সমন্বিত বেঞ্চে শুক্রবার আবেদন জানান মন্ত্রী ফিরহাদ হাকিম, জ্যোতিপ্রিয় মল্লিক এবং অরূপ রায়। আগামী ১২ সেপ্টেম্বর মামলার শুনানি হতে পারে।     

এ প্রসঙ্গে আজ পশ্চিমবঙ্গের সিপিএম নেতা সুজন চক্রবর্তী কটাক্ষ করে বলেছেন, ‘গোটা দুনিয়া দেখল একটা রাজনৈতিক দলের সবচেয়ে বড় নেতাদের প্রকাশ্যে দেশে বলতে হচ্ছে, আমরা সবাই ‘চোর’ নই! আমারা বলেছিলাম, কারা কারা চোর সেই তালিকাটা দিয়ে দিন, তাহলে কারা চোর নয়, স্পষ্ট হয়ে যায়। ফিরহাদ হাকিম, জ্যোতিপ্রিয় মল্লিক এবং অরূপ রায় তারা আদালতে আবেদন করেছেন ‘ইডি’কে এই মামলায় যুক্ত করা থেকে তারা যেন পরিত্রাণ পায়। তার মানেটা কী? তার মানে এটা কী স্বীকার করে নিলেন যে, আমরা চোর, অতএব ‘ইডি’কে ডেকো না। ‘ইডি’ আসলে ধরা পড়ে যাওয়ার চান্স বেশি। ধরা পড়ে গেছে যে তৃণমূলের নেতা মন্ত্রীরা বেআইনি সম্পদের পাহাড়ের ওপর দাঁড়িয়ে আছেন। এদের জেলে যাওয়া সময়ের অপেক্ষা মাত্র’ বলেও মন্তব্য করেন সিপিএম নেতা ও সাবেক এমপি সুজন চক্রবর্তী।   

রাজ্যের নেতা-নেত্রীদের সম্পত্তি বৃদ্ধি নিয়ে হাই কোর্টে ২০১৭ সালে দু'টি জনস্বার্থ মামলা দায়ের হয়। মামলাকারী অনিন্দ্যসুন্দর দাস এবং বিপ্লবকুমার চৌধুরী সে সময় তৃণমূলের ১৯ জনের নামে মামলা করেন। তাদের অভিযোগ, ২০১১ থেকে ২০১৬ সাল, এই ৫ বছরে কী ভাবে এই ১৯ জনের সম্পত্তি এত বৃদ্ধি পেল? সম্পত্তির খতিয়ান হিসাবে দেখানো হয় নির্বাচন কমিশনে দেওয়া ওই নেতাদের হলফনামা। 

১৯ জন তৃণমূল নেতা-মন্ত্রীর তালিকায় ফিরহাদ হাকিম, ব্রাত্য বসু, মলয় ঘটক, শিউলি সাহা, অমিত মিত্র, জ্যোতিপ্রিয় মল্লিক, অরূপ রায়, জাভেদ খান, সব্যসাচী দত্ত, রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায়ের পাশাপাশি রাজ্যের প্রয়াত মন্ত্রী সুব্রত মুখোপাধ্যায়, সাধন পাণ্ডে, কোলকাতার সাবেক মেয়র শোভন চট্টোপাধ্যায়েরও নামও রয়েছে।#

পার্সটুডে/এমএএইচ/এআর/১২

    

ট্যাগ