অক্টোবর ০৪, ২০২২ ২১:১৭ Asia/Dhaka
  • মহারাষ্ট্রে ফোনে 'হ্যালো' এর পরিবর্তে 'বন্দে মাতরম' বলার জন্য আদেশ জারি, বিরোধিতায় সোচ্চার মুসলিম নেতারা

ভারতের মহারাষ্ট্র সরকার সমস্ত সরকারি কর্মকর্তাদের ল্যান্ডলাইন বা মোবাইল ফোনে 'হ্যালো'র পরিবর্তে 'বন্দে মাতরম' বলার জন্য একটি সরকারি আদেশ জারি করেছে। এটি ২ অক্টোবর থেকে রাজ্যে কার্যকর হয়েছে।

রাজ্যের বিভিন্ন বিরোধী দল ওই আদেশের বিরোধিতা করেছে। মজলিশ-ই-ইত্তেহাদুল মুসলেমিন (মিম)-এর মুখপাত্র ওয়ারিস পাঠান বলেছেন, ‘এটা কী নতুন নাটক, এতে কী কর্মসংস্থান হবে? বেকারত্ব এবং মুদ্রাস্ফীতির মতো গুরুত্বপূর্ণ বিষয়গুলো থেকে মনোযোগ সরানোর এটাই বিজেপির উপায়।’  

ওই নির্দেশের বিরোধিতা করেছেন সমাজবাদী পার্টির নেতা আবু আসিম আজমি। তিনি সরকারের ওই আদেশকে ভুল বলে মন্তব্য করেছেন। তিনি বলেন, ‘বিজেপি ইচ্ছাকৃতভাবে এমন নির্দেশ দিয়েছে, যাতে হিন্দু-মুসলিমের মধ্যে বিভেদ সৃষ্টি হয়। আবু আজমি বলেন, আমরা দেশকে ভালোবাসি, কিন্তু আল্লাহর সামনে মাথা নত করি। আল্লাহ সারা পৃথিবী, আকাশ, মানুষ সবকিছুই আল্লাহ সৃষ্টি করেছেন। আমরা কখনই ‘বন্দে মাতরম’বলতে পারব না। ‘সারে জাহাঁ সে আচ্ছা হিন্দোস্তা হামারা’ অবশ্যই বলবো।’        

সমাজবাদী পার্টির নেতা আবু আসিম আজমি আরও বলেন, ‘আমি মুখ্যমন্ত্রীকে জিজ্ঞাসা করতে চাই যে আপনি বালাসাহেবের মতো সর্বদা 'জয় মহারাষ্ট্র' বলতেন, তাহলে বিজেপি এবং আরএসএস-এর চাপে কেন তা ছাড়তে বলছেন? 'জয় মহারাষ্ট্র' বলা কী রাষ্ট্রদ্রোহ?’ তিনি আরও বলেন, ‘আমরা বলি ‘সারে জাহাঁ সে আচ্ছা হিন্দোস্তা হামারা’, আমরা ‘জয় হিন্দ’ বলি, এটা কী কোথাও দেশের বিরুদ্ধে বিদ্বেষ প্রকাশ করে? কেউ যদি সত্যিকারের মুসলমান হয়, তবে সে আল্লাহ ছাড়া কারো সামনে মাথা নত করবে না এবং এতে কোনো দেশদ্রোহ নেই।’   

এ প্রসঙ্গে উত্তর প্রদেশের মুরাদাবাদের সমাজবাদী পার্টির নেতা এসটি হাসান এমপি বলেছেন, ‘এটি অনেক পুরনো বিবাদ। ইসলাম মুসলমানদেরকে আল্লাহ ছাড়া অন্য কারো উপাসনা করার অনুমতি দেয় না। ইসলাম বিশ্বাস করে যে মুসলমানরা আল্লাহ ছাড়া অন্য কারো উপাসনা করতে পারে না। এই বিতর্কিত ইস্যুতে আমরা দীর্ঘদিন ধরে ভুগছি। যারা প্রকৃত মুসলমান, যারা ইমানদার মুসলিম, তারা কখনই জমিনের পূজা করে না, আমরা কেবল আল্লাহর ইবাদত করি।’ কংগ্রেস নেতা হুসেন দলওয়াই বলেছেন, ‘কেবল 'বন্দে মাতরম' বললে কারো মধ্যে দেশপ্রেমের অনুভূতি জাগে না।’  

এর আগে মহারাষ্ট্রের সংস্কৃতিমন্ত্রী সুধীর মুনগান্টিওয়ার সরকারি কর্মচারীদের ফোন কলে ‘হ্যালো’র পরিবর্তে 'বন্দে মাতরম' বলার নির্দেশ দিয়েছিলেন। ওই আদেশের কিছুদিন পরে, মহারাষ্ট্র বন বিভাগও তার কর্মচারীদের সরকারি কাজের সাথে সম্পর্কিত কল পেলে ‘বন্দে মাতরম’  বলে সাড়া দেওয়ার নির্দেশ দিয়েছিল।বন বিভাগ একটি সরকারী আদেশ জারি করে বলেছিল, ‘বন দফতরের সমস্ত কর্মকর্তা ও কর্মীদেরকে দাপ্তরিক কাজে জড়িত সাধারণ নাগরিক এবং জনপ্রতিনিধিদের ফোনে উপস্থিত থাকার সময় ‘হ্যালো’র পরিবর্তে ‘বন্দে মাতরম’ বলার জন্য অনুরোধ করা হয়েছে।’

এবার রাজ্য সরকার সরকারি কর্মকর্তাদের ‘হ্যালো’র পরিবর্তে 'বন্দে মাতরম' বলার জন্য একটি নির্দেশনা জারি করেছে। এর পরেই ওই ইস্যুতে বিতর্ক সৃষ্টি হয়েছে।     

পার্সটুডে/এমএএইচ/এমএআর/৪

বিশ্বসংবাদসহ গুরুত্বপূর্ণ সব লেখা পেতে আমাদের ফেসবুক পেইজে লাইক দিয়ে অ্যাকটিভ থাকুন।

ট্যাগ