অক্টোবর ০৭, ২০২২ ১৮:৩৮ Asia/Dhaka
  • ভারতের কর্ণাটকে ঐতিহাসিক মাদ্রাসায় ভাঙচুর করল হিন্দুত্ববাদীরা, ওয়াইসির নিন্দা

ভারতে বিজেপিশাসিত কর্ণাটকে একদল হিন্দুত্ববাদী জনতা 'মাহমুদ গাওয়ান মাদ্রাসা' নামে একটি ঐতিহাসিক শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে জোরপূর্বক ঢুকে ভাঙচুর করায় চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে। বিষয়টি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়ার পর থেকে এ নিয়ে তোলপাড় চলছে। ঘটনাকে কেন্দ্র করে ৯ জনের বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে এবং পুলিশ এ পর্যন্ত ৪ জনকে গ্রেফতার করেছে। 

ওই ঘটনার তীব্র নিন্দা করেছেন অল ইন্ডিয়া মজলিশ-ই ইত্তেহাদুল মুসলেমিন (মিম) প্রধান ব্যারিস্টার আসাদউদ্দিন ওয়াইসি এমপি। গোটা ঘটনার জন্য তিনি রাজ্যে ক্ষমতাসীন বিজেপি সরকারকে দায়ী করেছেন। মুসলিমদের ছোট করে দেখানোর কারণেই এই ধরনের ঘটনা বেড়ে চলেছে বলে অভিযোগ করেছেন তিনি।  

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে এক বার্তায় ওয়াইসি বলেন, কর্ণাটকের বিদারের ঐতিহাসিক মাহমুদ গাওয়ান মসজিদ এবং মাদ্রাসার ভিডিও প্রকাশ্যে। চরমপন্থিরা তালা ভেঙে ভিতরে ঢুকে পড়ে এবং ওই স্থানটিতে অপবিত্র করে তোলে। বিদার পুলিশ এবং মুখ্যমন্ত্রী বাসবরাজ বোম্মাইকে বলব, কী করে এমন ঘটতে দিতে পারেন আপনারা? মুসলিমদের ছোট করে দেখিয়ে বিজেপি এই ধরনের ঘটনায় উসকানি দিচ্ছে।   

জানা গেছে, দশেরা উৎসবের মিছিলে অংশগ্রহণকারী একদল জনতা কর্ণাটকের বিদার জেলার একটি ঐতিহাসিক মসজিদে জোর করে প্রবেশ করে। এ সময়ে মাদ্রাসাটির ভাঙচুর করা হয় ও বিভিন্ন স্লোগান দেওয়া হয় এবং এর এককোণে পুজোও করা হয় বলে অভিযোগ। পুলিশ ৯ জনের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করলেও এ পর্যন্ত ৪ জনকে গ্রেফতার করতে সমর্থ হয়েছে। অন্য অভিযুক্তদের খোঁজ চলছে। অভিযুক্তদের গ্রেফতার করা না হলে বিক্ষোভের কথা বলেছে মুসলিম বিভিন্ন সংগঠন।

ভারতীয় পুরাতত্ত্ব সর্বেক্ষণ (আর্কিয়োলজিকাল সার্ভে অব ইন্ডিয়া বা ‘এএসআই’)-এর তালিকায় ‘ঐতিহ্যবাহী স্থাপত্য’ হিসেবে চিহ্নিত ওই মাদ্রাসা ভবনে হামলায় জড়িতদের কঠোর শাস্তির দাবি জানানো হয়েছে। বড় অশান্তি এড়াতে বিদার এবং আশেপাশের স্পর্শকাতর এলাকাগুলোতে অতিরিক্ত পুলিশবাহিনী মোতায়েন করা হয়েছে।   

১৪৬০ সালে মাহমুদ গাওয়ান মাদ্রাসা নির্মিত হয়। বর্তমানে ভারতীয় প্রত্নতাত্ত্বিক বিভাগের অধীনে রয়েছে সেটি। ঐতিহ্যবাহী ওই মাদ্রাসার কাঠামোটি দেশের জাতীয় গুরুত্বপূর্ণ স্মৃতিসৌধের তালিকাতেও রয়েছে। বুধবার সন্ধ্যায় দশেরা উৎসব উপলক্ষে বেরোনো একটি মিছিলে শামিল হওয়া জনতা তালা ভেঙে ওই মাদ্রাসায় ঢুকে পড়ে তাণ্ডব চালায় এবং পুজো-অর্চনা করে বলে অভিযোগ।   

পুলিশ সুত্রে প্রকাশ, বুধবার সন্ধ্যায় ওই মাদ্রাসার তালা ভেঙে ফেলে জনতা। এরপর তারা মাদ্রাসার সিঁড়িতে দাঁড়িয়ে জয় শ্রী রাম ও হিন্দু ধর্মের জয় ইত্যাদি স্লোগান দেয়। রাজ্যের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেছেন, ভুল বোঝাবুঝির কারণে এমনটি হয়েছে। অপরাধীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণ করতে পুলিশের টিম কাজ করছে।#     

পার্সটুডে/এমএএইচ/এমএআর/৭ 

বিশ্বসংবাদসহ গুরুত্বপূর্ণ সব লেখা পেতে আমাদের ফেসবুক পেইজে লাইক দিয়ে অ্যাকটিভ থাকুন।

ট্যাগ