নভেম্বর ১১, ২০১৯ ১৯:২৯ Asia/Dhaka
  • বক্তব্য রাখছেন তৃণমূল যুব কংগ্রেসের সভাপতি অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়
    বক্তব্য রাখছেন তৃণমূল যুব কংগ্রেসের সভাপতি অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়

ভারতের পশ্চিমবঙ্গের প্রতি কেন্দ্রীয় সরকারের বঞ্চনার অভিযোগে পশ্চিমবঙ্গের রাজধানী কোলকাতায় তৃণমূল যুব কংগ্রেসের পক্ষ থেকে ধর্না-অবস্থান বিক্ষোভ কর্মসূচি পালিত হয়েছে। আজ (সোমবার) কোলকাতার মেয়ো রোডে গান্ধী মূর্তির পাদদেশে ওই কর্মসূচিতে রাজ্যের নেতা ও মন্ত্রীরা কেন্দ্রীয় সরকারের বিরুদ্ধে সমালোচনায় সোচ্চার হন।

এদিন ওই ধর্না মঞ্চ থেকে তৃণমূল যুব কংগ্রেসের সভাপতি অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় তাঁর বক্তব্যে জয়েন্ট এন্ট্রান্স পরীক্ষার প্রশ্নপত্রে বাংলা ভাষাকে অন্তর্ভুক্ত করার দাবি জানান।  

অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় কেন্দ্রীয় সরকারের উদ্দেশ্যে বলেন, ‘হিন্দি বাদ দিয়ে ভারতে সবচেয়ে বেশি ব্যবহৃত ও প্রচলিত ভাষা যদি থেকে থাকে তার নাম ‘বাংলা’। আপনারা যদি ভাবেন ‘বাংলা’ বাদ দিয়ে ‘গুজরাটি’ ঢোকাবেন আর বাংলার মানুষ মুখে কুলুপ এঁটে বসে থাকবে তাহলে মূর্খের স্বর্গে বাস করছেন। এই বাংলা সেই বাংলা যারা দেশকে পথ দেখিয়েছিল। এই বাংলা যদি না থাকত ঈশ্বরচন্দ্র বিদ্যাসাগর, রামমোহন রায়, নেতাজি সুভাষ চন্দ্র বসু, রামকৃষ্ণ পরমহংসদেব, স্বামী বিবেকানন্দের মতো দেশনায়ক, দার্শনিক, সমাজ সংস্কারকরা আজকে থাকত না।’

অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় কেন্দ্রীয় সরকারের সমালোচনা করে বলেন, ‘বাঙালিদের যেভাবে আপনারা লাঞ্ছিত, বঞ্চিত, অত্যাচারিত, অবহেলিত ও নিপীড়িত করে রেখেছেন তার বিরুদ্ধে আমাদের এই সমাবেশ। বিজেপির সরকার বলছে, বাংলা নিয়ে নাকি তাদেরকে চিঠি দেওয়া হয়নি। কিন্তু আমি আপনাদের জিজ্ঞেস করতে চাই, যখন দার্জিলিং থেকে আধাসামরিক বাহিনী সিআরপিএফ প্রত্যাহার করেন, আপানদের অঙ্গুলিহেলনে যখন বাংলার দার্জিলিং অশান্ত হয়, তখন কী আপানারা রাজ্য সরকারের অনুমতি নেন? যখন আপানারা মাওবাদী নাশকতা রুখতে মোতায়েন থাকা সিআরপিএফ তুলে নেন তখন কী বাংলা থেকে অনুমতি নেন? যখন আপনাদের নেতারা বড় বড় ভাষণ দিয়ে বাংলাকে অশান্ত করতে চায়, তখন কী আপনারা বাংলা থেকে অনুমতি নেন? কিন্ত জয়েন্ট এন্ট্রান্স পরীক্ষায় যখন বাংলা ভাষাকে অন্তর্ভুক্ত করতে হবে তখন আপনারা বলছেন অনুমতি দরকার!’

তিনি বলেন, জয়েন্ট এন্ট্রান্স পরীক্ষায় বাংলা ভাষায় প্রশ্নপত্র করার দাবিতে রাজ্যের শিক্ষা মন্ত্রণালয় থেকে আগেই কেন্দ্রীয় মানবসম্পদ উন্নয়ন মন্ত্রণালয়ে চিঠি পাঠানো হয়েছে।

এদিনের ওই বিক্ষোভ সমাবেশে রাজ্যের পৌর ও নগরোন্নয়ন মন্ত্রী ও কোলকাতার মেয়র ফিরহাদ হাকিম, মন্ত্রী সুব্রত মুখোপাধ্যায়, চন্দ্রিমা ভট্টাচার্য ও তৃণমূলের অন্য নেতা-নেত্রীরা উপস্থিত ছিলেন।#           

পার্সটুডে/এমএএইচ/এআর/১১

বিশ্বসংবাদসহ গুরুত্বপূর্ণ সব লেখা পেতে আমাদের ফেসবুক পেইজে লাইক দিয়ে অ্যাকটিভ থাকুন।

ট্যাগ

মন্তব্য