জানুয়ারি ২২, ২০২০ ১৮:২৫ Asia/Dhaka
  • ভারতের সুপ্রিম কোর্ট
    ভারতের সুপ্রিম কোর্ট

ভারতের বহুলালোচিত সংশোধিত নাগরিকত্ব আইন ‘সিএএ’ মামলায় স্থগিতাদেশ দিল না সুপ্রিম কোর্ট। আজ (বুধবার) সিএএ মামলার শুনানিতে সুপ্রিম কোর্ট কেন্দ্রীয় সরকারকে বক্তব্য জানাতে ৪ সপ্তাহ সময় দিয়েছে। ‘সিএএ’-এর বিরুদ্ধে ১৪৪টি মামলা হয়েছে সুপ্রিম কোর্টে।

আজ সুপ্রিম কোর্টের প্রধান বিচারপতি এস এ বোবদের নেতৃত্বাধীন বিচারপতি  এস আবদুল নাজির ও বিচারপতি সঞ্জীব খান্নার সমন্বিত বেঞ্চে ‘সিএএ’ মামলার শুনানি হয়। আদালতে কংগ্রেসের সিনিয়র নেতা কপিল সিব্বল ‘সিএএ’ নিয়ে স্থগিতাদেশ দেওয়ার আবেদন জানান। একইসঙ্গে তিনি আবেদন করেন, যতদিন এই মামলার নিষ্পত্তি হচ্ছে  ততদিন পর্যন্ত বন্ধ রাখা হোক জাতীয় জনসংখ্যা নিবন্ধন এনপিআর-এর কাজ।কপিল সিব্বলের ওই দাবির তীব্র বিরোধিতা করেন  অ্যাটর্নি জেনারেল কে কে বেণুগোপাল। তিনি বলেন,  ‘এনপিআর’ পিছিয়ে দেওয়া ও স্থগিতাদেশ দেওয়া একই ব্যাপার। সেজন্য কেন্দ্রীয় সরকারের জবাব না শুনে শীর্ষ আদালত যেন ‘সিএএ-এনপিআর’-এর কাজ স্থগিত না করে। অ্যাটর্নি জেনারেলের সাফাইতে সায়  দিয়ে প্রধান বিচারপতি এস এ বোবদে  জানান, এখনই কোনও বিষয়ে স্থগিতাদেশ দেওয়া হবে না।

কেন্দ্রীয় সরকারের পক্ষ থেকে অ্যাটর্নি জেনারেল কে কে বেণুগোপাল আদালতে জানান, ১৪০টি আবেদনের মধ্যে সরকারকে মাত্র ৬০টি আবেদনের বিষয়েই জানানো হয়েছিল। ফলে অন্য  আবেদনগুলো না দেখে কেন্দ্রীয় সরকারের পক্ষে এখনই এই মামলার প্রেক্ষিতে কোনও  মন্তব্য করা সম্ভব নয়। ওই আবেদনগুলোর জবাব দেওয়ার জন্য শীর্ষ আদালতের কাছে  কিছুদিন সময় চান তিনি। এরপরে প্রধান বিচারপতি জানান, কেন্দ্রীয় সরকারের বক্তব্য না শুনে ‘সিএএ’-এর উপর স্থগিতাদেশ দেওয়া হবে না।

‘সিএএ’-এর বিরুদ্ধে সুপ্রিম কোর্টে আবেদন করেন আরজেডি নেতা মনোজ ঝা, তৃণমূল কংগ্রেসের এমপি মহুয়া মৈত্র। কংগ্রেস নেতা জয়রাম রমেশ তাঁর আবেদনে দাবি করেন, এই আইন সংবিধানের দেওয়া মৌলিক অধিকারের উপর ‘নির্লজ্জ আঘাত’। ইন্ডিয়ান ইউনিয়ন মুসলিম লিগের অভিযোগ, ‘সিএএ’ নাগরিকদের মৌলিক অধিকার লঙ্ঘন করছে।

কংগ্রেস নেতা জয়রাম রমেশের দায়ের করা আবেদনে বলা হয়েছে, ভারতে নাগরিকত্ব অর্জন বা অস্বীকার করার জন্য ধর্ম কোনও কারণ হতে পারে না। এই নাগরিকত্ব আইনটি অসাংবিধানিক। ইন্ডিয়ান ইউনিয়ন মুসলিম লিগ বলেছে,  ‘সিএএ’তে সাম্যের অধিকার, মৌলিক অধিকার লঙ্ঘন করে, ধর্মের ভিত্তিতে অবৈধ অভিবাসীদের একটি অংশকে নাগরিকত্ব প্রদান করার ইচ্ছা পোষণ করা হয়েছে।

অন্যদিকে, ‘সিএএ’-এর সাংবিধানিক বৈধতাকে চ্যালেঞ্জ করে সুপ্রিম কোর্টে মামলা দায়ের করেছে কেরালা সরকার। রাজ্য সরকারের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, এই আইন সংবিধান প্রদত্ত সাম্য, স্বাধীনতা ও ব্যক্তি অধিকারে আঘাত।

সুপ্রিম কোর্টে ‘সিএএ’র বিরুদ্ধে কংগ্রেস, সিপিআই, সিপিএম, ডিএমকে, ইন্ডিয়ান ইউনিয়ন মুসলিম লিগ, এআইএমআইএম-এর মতো বিভিন্ন দল আবেদন জানিয়েছে।  আবেদনকারীদের সকলেরই দাবি, ওই আইন ‘সংবিধান বিরোধী’।#

পার্সটুডে/এমএএইচ/মো.আবুসাঈদ/২২

ট্যাগ

মন্তব্য