জানুয়ারি ২২, ২০২০ ১৮:৩২ Asia/Dhaka
  • ভারতের পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়
    ভারতের পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়

ভারতের পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় সংশোধিত নাগরিকত্ব আইন ‘সিএএ’ ও জাতীয় নাগরিকপঞ্জি ‘এনআরসি’ ইস্যুতে বলেছেন, কাউকে তাড়ানোর আগে আমাকে তাড়াতে হবে। তিনি আজ (বুধবার) দার্জিলিংয়ে এক সমাবেশে বক্তব্য রাখার সময় ওই মন্তব্য করেন। নাগরিকত্ব-এনআরসি ইস্যুতে কেন্দ্রীয় মন্ত্রী ও বিজেপি নেতারা বারবার কথিত অনুপ্রবেশকারীদের দেশ থেকে বিতাড়নের হুঁশিয়ারি দিচ্ছেন।

মমতা বলেন,  ‘অসমে এনআরসিতে বহু বাঙালি ও গোর্খাদের নাম বাদ দেওয়া হয়েছে। এখন দার্জিলিংয়ে বিপদের দিন। কিন্তু সংশোধিত নাগরিকত্ব আইনের মাধ্যমে এরাজ্যে কিছুতেই কোনও গোর্খাকে বিতাড়িত হতে দেবো না। কোনও উপজাতির নাগরিককে বাংলা থেকে তাড়াতে দেবো না।’

বাংলায় কোনও ডিটেনশন ক্যাম্প হবে না এবং কাউকে তাড়াতে চাইলে আগে তাঁকে রাজ্য থেকে তাড়াতে হবে বলেও কেন্দ্রীয় সরকারের উদ্দেশ্যে কার্যত চ্যালেঞ্জ ছুঁড়ে দেন মমতা। তিনি বলেন, ‘পাহাড়ে সিএএ-এনআরসি-এনপিআর হবে না। কেউ ভয় পাবেন না। আমরা পাশে আছি। আপনারা দেশের নাগরিক। কে কাড়বে আপনাদের নাগরিকত্ব?  কে নাগরিক আর কে নাগরিক নন, সেটা কী বিজেপি ঠিক করবে?’

বিজেপি নেতৃত্বাধীন কেন্দ্রীয় সরকারকে কটাক্ষ করে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় আজ আরও বলেন, ‘দেশের অর্থনীতির কী হাল! অন্ন-বস্ত্র-বাসস্থান দিতে পারছে না। ব্যাঙ্কে টাকা রাখলেও ভবিষ্যতে মিলবে কিনা জানা নেই। আগুন জ্বালানো, দাঙ্গা বাধানোই কাজ ওদের। এভাবে চলবে না। সবাইকে কেবল ভয় দেখাচ্ছে। কেউ প্রতিবাদ করলেই  বিভিন্ন এজেন্সির ভয় দেখাচ্ছে। প্রতিবাদ করলেই বলছে পাকিস্তানি! আমরা তো ভারতীয়।’

আজ দার্জিলিঙের ভানুভক্ত ভবন থেকে চক বাজার পর্যন্ত সিএএ-এনআরসি বিরোধী এক মিছিলের নেতৃত্ব দেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। যতদিন না এনআরসি ও সিএএ প্রত্যাহার করা হচ্ছে আমাদের আন্দোলন চলবে বলেও মুখ্যমন্ত্রী আজ জানিয়ে দেন। #

পার্সটুডে/এমএএইচ/মো.আবুসাঈদ/২২

ট্যাগ

মন্তব্য