মার্চ ২৬, ২০২০ ১৩:৩৭ Asia/Dhaka
  • ভারতে করোনাভাইরাসে মৃতের সংখ্যা বেড়ে ১৩, আক্রান্ত ৬০০

ভারতে করোনাভাইরাসে মৃতের সংখ্যা বেড়ে ১৩ জনে পৌঁছেছে। আক্রান্তের সংখ্যা ৫৯৩। এদের মধ্যে ৪২ জন সুস্থ হয়েছেন। আজ (বৃহস্পতিবার) সকালে স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয়কে উদ্ধৃত করে সংবাদ সংস্থা এএনআই ওই তথ্য জানিয়েছে। যদিও বেসরকারি তথ্যে প্রকাশ, এ পর্যন্ত আক্রান্তের সংখ্যা ৬৪৯ এবং মৃতের সংখ্যা ১৫।

আজ জম্মু-কাশ্মীরে করোনাভাইরাসের কারণে প্রথম মৃত্যুর খবর পাওয়া গেছে। আজ (বৃহস্পতিবার) সকালে শ্রীনগরের ডালগেট হাসপাতালে ৬৫ বছরের এক বৃদ্ধ মারা গেছেন। কাশ্মীরে এটিই করোনা আক্রান্তে প্রথম মৃত্যুর ঘটনা। চিকিৎসকরা জানিয়েছেন, অনেক চেষ্টা করেও রোগীকে বাঁচানো যায়নি। আক্রান্তের ব্লাড সুগার, রক্তচাপজনিত সমস্যা ছিল।

মহারাষ্ট্রে মৃতের সংখ্যা বেড়ে ৪ হয়েছে। এখনও পর্যন্ত ওই রাজ্যে ১২৪ জন মানুষ মহামারী ভাইরাসের শিকার হয়েছেন।

বৈঠকে রাজনাথ সিং

এদিকে, আজ করোনা মোকাবিলায় প্রস্তুতি নিয়ে কেন্দ্রীয় প্রতিরক্ষামন্ত্রী রাজনাথ সিং ভারতের চিফ অফ ডিফেন্স স্টাফ, সেনাবাহিনীর প্রধান, নৌবাহিনীর প্রধানসহ সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের সঙ্গে পর্যালোচনা বৈঠক করেছেন।

গত (মঙ্গলবার) রাতে দেশজুড়ে ২১ দিনের লকডাউন ঘোষণা করেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। ওই সিদ্ধান্ত ঘোষণার সময় প্রধানমন্ত্রী বলেছিলেন, ঘরে বসে থাকা এবং সামাজিক দূরত্বই করোনাভাইরাস আটকানোর একমাত্র পথ।

ভারতসহ বিশ্বের বেশ কয়েকটি দেশ এই মারণ ভাইরাস আটকাতে লকডাউনের সিদ্ধান্ত নিয়েছে। কিন্তু বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (হু) বলছে, শুধু লকডাউন নয়, এবার আরও আক্রমণাত্মক পদক্ষেপ গ্রহণ করতে হবে।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা ‘হু’-এর কর্মকর্তা টেডরোজ আধানম গেবিয়াসেস বলেছেন, ‘করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ কমাতে অনেক দেশই লকডাউনের পথে হাঁটছে। কিন্তু শুধু এই পদ্ধতি মহামারি আটকাতে পারবে না। বিশ্বের সব দেশকে আহ্বান করছি, আমরা আরেকটা সুযোগ পেয়েছি। এই সুযোগে ভাইরাসকে আক্রমণ করুন।’

তিনি বলেন, মানুষকে ঘরে বসে থাকতে বলা এবং জনসাধারণের গতিবিধি নিয়ন্ত্রণ করার মাধ্যমে আমরা কিছুটা বাড়তি সময় পেয়েছি এবং চিকিৎসা ব্যবস্থার ওপরে চাপ খানিকটা কমানো গেছে। এখন আক্রমণাত্মকভাবে এই ভাইরাসে আক্রান্ত রোগীদের খুঁজে বের করতে হবে। তাদের আইসোলেট করতে হবে এবং চিকিৎসা করতে হবে। এটা যে শুধু আমাদের সামাজিক এবং আর্থিক নিষেধাজ্ঞা থেকে বাঁচাবে তাই নয়, একইসঙ্গে মহামারি আটকানোরও এটাই শ্রেষ্ঠ পথ।#

পার্সটুডে/এমএএইচ/এআর/২৬

বিশ্বসংবাদসহ গুরুত্বপূর্ণ সব লেখা পেতে আমাদের ফেসবুক পেইজে লাইক দিয়ে অ্যাকটিভ থাকুন।

ট্যাগ

মন্তব্য