এপ্রিল ০৩, ২০২০ ২৩:৫৫ Asia/Dhaka
  • কিলো শ্রেণির ডিজেল-বৈদ্যুতিক ডুবোজাহাজ
    কিলো শ্রেণির ডিজেল-বৈদ্যুতিক ডুবোজাহাজ

ভারতীয় নৌবাহিনীকে তিনটি ডুবোজাহাজ সরবরাহ করার রুশ প্রস্তাব বিবেচনা করছে ভারত। ক্রুজ ক্ষেপণাস্ত্র ছুঁড়তে সক্ষম এ সব ডুবোজাহাজকে প্রয়োজনীয় পরিবর্তন-পরিবর্ধন, রদবদল, মেরামত এবং সংস্কার করা হয়েছে।

মিগ-২৯ যুদ্ধবিমান

ভারতীয় সংবাদ মাধ্যম জানিয়েছে, ১৮০ থেকে ২০০ কোটি ডলারের বিনিময়ে 'কিলো' শ্রেণির ডিজেল-বৈদ্যুতিক তিন ডুবোজাহাজ ভারতকে সরবরাহ করার প্রস্তাব দেয় রুশ জাহাজ নির্মাণ সংস্থা জেএসসি ইউনাইটেড শিপবিল্ডিং কর্পোরেশন বা ইউএসসি।  এ অর্থের বিনিময়ে কেবল তিন ডুবোজাহাজই সরবরাহ করা হবে না বরং ভারতে বর্তমানে ‘কিলো’ শ্রেণির ডুবোজাহাজ বহরেরও প্রয়োজনীয় মানোন্নয়ন করা হবে বলে প্রস্তাবে উল্লেখ করা হয়েছে।

প্রস্তাবিত ডুবোজাহাজগুলো প্রায় ৩০ বছরের পুরনো এবং মানোন্নয়ন করার পর এগুলোর আয়ু বেড়ে ৩৫ বছরে দাঁড়াবে বলা হয়েছে। প্রস্তাবটি বিবেচনা করছে ভারতীয় নৌবাহিনী।

একজন নৌ বিশেষজ্ঞ বলেন, রাশিয়ার সরবরাহ করা ৩এম -১৪ই ক্লাব-এস ক্ষেপণাস্ত্র দিয়ে সজ্জিত এ সব ডুবোজাহাজ। রুশ এ অস্ত্রকে মার্কিন টোমাহক ক্ষেপণাস্ত্রের প্রায় সমমানের বলে বিবেচনা করা হয়।

গত মাসে গোয়ায় রুশ-ভারতীয় কর্মকর্তাদের বৈঠকে এ সংক্রান্ত চুক্তি আনুষ্ঠানিক ভাবে সম্পন্ন করার কথা ছিল। কিন্তু করোনা মহামারির কারণে সে বৈঠক শেষ পর্যন্ত বাতিল হয়ে যায়।

এস -৪০০ ট্রায়াম্ফ ক্ষেপণাস্ত্র প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা

ভারতীয় বিমান বাহিনী জরুরিভিত্তিতে ২১টি মিগ-২৯ যুদ্ধবিমান কেনার পরিকল্পনা করছে বলে রাশিয়া নিশ্চিত করার কয়েক মাসের মধ্যে ডুবোজাহাজ বিষয়ক নতুন এ প্রস্তাব দেয়া হয়।

দুই বছর আগে রাশিয়ার সাথে এস -৪০০ ট্রায়াম্ফ ক্ষেপণাস্ত্র প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা কেনার জন্য আরেকটি প্রতিরক্ষা চুক্তি স্বাক্ষর করেছে ভারত। ভারতের এ পদক্ষেপ ওয়াশিংটনের জন্য বড় উদ্বেগ হয়ে দেখা দিয়েছে। অবশ্য, ভারত এর আগে বলেছে অন্যান্য দেশ তাকে প্রভাবিত করতে পারবে না এবং স্বাধীনভাবে সে তার নিজ অস্ত্র কিনবে।

পার্সটুডে/মূসা রেজা/৪

বিশ্বসংবাদসহ গুরুত্বপূর্ণ সব লেখা পেতে আমাদের ফেসবুক পেইজে লাইক দিয়ে অ্যাকটিভ থাকুন।

 

ট্যাগ

মন্তব্য