জুন ০৩, ২০২০ ১৯:২২ Asia/Dhaka
  • মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়
    মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়

ভারতের পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেছেন, পরিযায়ী শ্রমিকদের প্ররোচনা দেওয়ার চেষ্টা হচ্ছে। কেউ কেউ বলছে বাংলা নাকি ঢুকতে দেয়নি। বাংলা ঢুকতে না দিলে, এত লোক এল কীভাবে? ইতোমধ্যেই ট্রেন ও বাসে করে সাড়ে ৮ লাখ পরিযায়ী শ্রমিক রাজ্যে ফিরেছেন। আগামী ১০ জুনের মধ্যে সাড়ে ১০ লাখ মানুষ বাংলায় ঢুকবে।

তিনি আজ (বুধবার) রাজ্য সচিবালয় নবান্নে ঘূর্ণিঝড় আম্পানের কারণে বিভিন্ন জেলায় ত্রাণ ও পুনর্গঠন ব্যবস্থা নিয়ে পর্যালোচনা সভায় ওই মন্তব্য করেন।

কেন্দ্রীয় সরকারের সমালোচনা করে তিনি আজ বলেন, ‘লকডাউনের আগে পরিকল্পনা করে পরিযায়ী শ্রমিকদের ঘরে ফেরালে এই তিন মাস তাদের কষ্ট হতো না। পরিযায়ী শ্রমিকরা যারা পড়ে আছেন তাদের ঠিকমতো খেতে দেওয়া হয়নি। চিকিৎসা করা হয়নি, তাঁরা একটা টেনশন নিয়ে সেখানে পড়ে ছিলেন। কোনও সাহায্য যায়নি।’

তিনি বলেন, ‘পরিযায়ী শ্রমিকদের আনতে ট্রেন ভাড়া পর্যন্ত দেওয়া হচ্ছে। একমাত্র আমাদের পশ্চিমবঙ্গ সরকার পরিযায়ী শ্রমিক যারা রাজ্যে ফিরে আসছেন তাঁদের ট্রেন ভাড়া আমাদের সরকার দিয়ে দিয়েছে। রাজ্যে আসার পরে তাঁদের বাড়িতেও পৌঁছে দেওয়া হচ্ছে। সুতরাং, যারা এসব নিয়ে রাজনীতি করেন তাঁদের আমি বলি, যারা ট্রেনের ভাড়াটুকু পর্যন্ত দিতে পারেন না তাঁরা পরিযায়ী শ্রমিকদের কাছে দয়া করে উত্তেজনামূলক ভাষণ দেবেন না।’

মমতা আজ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে কেন্দ্রীয় সরকারের উদ্দেশ্যে এক আবেদনে বলেন, ‘চলমান মহামারী কারণে মানুষ অকল্পনীয় অনুপাতের অর্থনৈতিক কষ্টের সম্মুখীন হয়েছে। আমি কেন্দ্রীয় সরকারের কাছে আবেদন করছি অসংগঠিত সেক্টরে সাধারণ মানুষসহ অভিবাসী শ্রমিকদের এককালীন সহায়তা হিসেবে ১০ হাজার টাকা করে স্থানান্তর করার জন্য।’ এজন্য প্রধানমন্ত্রী রিলিফ ফান্ডের একটি অংশ ব্যবহার করা যেতে পারে বলে মন্তব্য করেছেন।#

পার্সটুডে/এমএএইচ/এআর/৩

বিশ্বসংবাদসহ গুরুত্বপূর্ণ সব লেখা পেতে আমাদের ফেসবুক পেইজে লাইক দিয়ে অ্যাকটিভ থাকুন।

 

ট্যাগ

মন্তব্য