ডিসেম্বর ০১, ২০২০ ১৬:১১ Asia/Dhaka
  • করোনাভাইরাস: ভারতের বিভিন্ন রাজ্যে নয়া নির্দেশিকা কার্যকর, কারফিউ থেকে জেল ও জরিমানার বিধান

ভারতের বিভিন্ন রাজ্যে করোনাভাইরাস মহামারীর তৃতীয় দফার ঢেউয়ের হুমকি সৃষ্টি হয়েছে। এরফলে আজ ১ ডিসেম্বর (মঙ্গলবার) থেকে দেশের বিভিন্ন রাজ্যে নতুন নির্দেশিকা কার্যকর করা হয়েছে।  

রাজস্থানে ৩১ ডিসেম্বর পর্যন্ত কনটেইনমেন্ট জোনে পুনরায়  লকডাউন

রাজস্থান রাজ্যে করোনা সংক্রমণের ঘটনা বৃদ্ধি পাওয়ার পরে রাজ্য সরকার ১ ডিসেম্বর থেকে ৩১ ডিসেম্বর কনটেইনমেন্ট জোনে পুনরায় লকডাউনের ঘোষণা করেছে। লকডাউনের পাশাপাশি রাজ্যের ১২ টি জেলা কোটা, জয়পুর, যোধপুর, বিকানের, উদয়পুর, আজমীর, ভিলওয়াড়া, নাগৌর, পালি, টোঙ্ক, সীকার এবং গাঙ্গানগর জেলায় রাত্রিকালীন কারফিউ কার্যকর করা হচ্ছে। এই সমস্ত জেলাতে এখন রাত ৮টা থেকে সন্ধ্যা ৬ টা পর্যন্ত কারফিউ থাকবে।

রাজ্য সরকারের জারি করা নির্দেশে বলা হয়েছে, এখন কেবলমাত্র কনটেইনমেন্ট জোন এবং নৈশ কারফিউ চলাকালীন প্রয়োজনীয় পরিষেবাগুলির সাথে যুক্ত ব্যক্তিদের আসা যাওয়া করতে দেওয়া হবে। এ ছাড়া প্রয়োজনীয় পরিষেবাগুলির দোকান ও বাজার বন্ধ থাকবে। অশোক গেহলট সরকার ৩১ ডিসেম্বর পর্যন্ত রাজ্যের স্কুল-কলেজ এবং সমস্ত শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। এছাড়া সমস্ত জনসমাগম বন্ধ করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে এবং রাজ্যে ধর্মীয় অনুষ্ঠানও নিষিদ্ধ করা হয়েছে। করোনার ক্রমবর্ধমান ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে ৩১ ডিসেম্বর পর্যন্ত রাজ্যে যেকোনও ধরণের বড় আয়োজন সম্পূর্ণ নিষিদ্ধ থাকবে।

মহারাষ্ট্রে ৩১ ডিসেম্বর মধ্যরাত পর্যন্ত লকডাউন বাড়ানো হয়েছে

মহারাষ্ট্র সরকার লকডাউন সময়কাল ৩১ ডিসেম্বর মধ্যরাত পর্যন্ত বাড়িয়েছে। যদিও নতুন বছর উদযাপনের শিথিলতার জল্পনা চলছে। আসলে মহারাষ্ট্রে ৫ নভেম্বর থেকে লকডাউনের বিধিনিষেধ কিছুটা শিথিল করা হয়েছিল। মহারাষ্ট্র সরকার সিনেমা হল, যোগ ইনস্টিটিউট, মাল্টিপ্লেক্স এবং থিয়েটারগুলো খোলার অনুমোদন দিয়েছিল। কিন্তু সংক্রমণের ঝুঁকি দেখে এই   ছাড়গুলো কেবল গ্রিন জোনস অঞ্চলে প্রয়োগ করার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। কনটেইনমেন্ট জোনগুলোতে কোনও ধরণের শিথিলতা ছিল না।

মধ্য প্রদেশে মাস্ক না পরলে কারাগারে যেতে হবে

মধ্য প্রদেশে এবার যারা মাস্ক না পরবে তাদের কারাগারে পাঠানো হবে। মুখ্যমন্ত্রী শিবরাজ সিং চৌহান এ জাতীয় লোকের জন্য উন্মুক্ত কারাগার তৈরির নির্দেশনা দিয়েছেন। যারা মাস্ক পরবেন না তাদের কিছু সময়ের জন্য সেখানে রাখা হবে। এছাড়া, যে জেলাগুলোতে করোনা সংক্রমণ বেশি, সেখানে ক্রাইসিস ম্যানেজমেন্ট গ্রুপের পরামর্শে বৈবাহিক অনুষ্ঠানের উপর বিধিনিষেধ আরোপ করা হবে।

পাঞ্জাবে ১ ডিসেম্বর থেকে নৈশ কারফিউয়ের ঘোষণা

পাঞ্জাবের মুখ্যমন্ত্রী ক্যাপ্টেন অমরিন্দর সিং গত বুধবার পাঞ্জাবে বেশ কয়েকটি নতুন বিধিনিষেধ কার্যকরের নির্দেশ দিয়েছেন। এর মধ্যে ১ ডিসেম্বর থেকে সমস্ত শহর এবং শহরগুলিতে নৈশ কারফিউ অন্তর্ভুক্ত রয়েছে। এছাড়াও, মাস্ক না পরার জন্য বা সামাজিক দূরত্বের বিধি অনুসরণ না করার জন্য শাস্তি দ্বিগুণ করা হয়েছে। ওই আদেশ ১৫ ডিসেম্বর পর্যালোচনা করা হবে। নয়া আদেশে বলা হয়েছে রাত ১০ টা  থেকে সকাল ৫ টা পর্যন্ত কারফিউ থাকবে। মুখ্যমন্ত্রী জনগণকে যেকোনও পরিস্থিতিতে এই বিধি লঙ্ঘন না করার জন্য সতর্ক করেছেন। এক মুখপাত্র বলেন, কোভিডের নিয়ম না মানার জন্য জরিমানা বর্তমানে ৫০০ টাকা থেকে ১ হাজার টাকা করা হচ্ছে।

জম্মু-কাশ্মীরে ৩১ ডিসেম্বর পর্যন্ত বন্ধ থাকবে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান

কেন্দ্রীয় সরকার শাসিত অঞ্চল জম্মু-কাশ্মীরের প্রশাসন ৩১ ডিসেম্বর পর্যন্ত সমস্ত স্কুল, কলেজ এবং উচ্চশিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ রাখার নির্দেশ দিয়েছে। জম্মু-কাশ্মীর প্রশাসনের জারি করা নির্দেশ অনুসারে নবম ও দ্বাদশ শ্রেণির শিক্ষার্থীরা স্বেচ্ছায় স্কুলে যেতে পারবে।

মণিপুরে নৈশ কারফিউ

মণিপুরে করোনা সংক্রমণের ক্রমবর্ধমান ঘটনায় নৈশ কারফিউ কার্যকরের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। করোনা মহামারী দেখে মণিপুর সরকার চলতি বছরের শেষ পর্যন্ত সন্ধ্যা ৬ টা ভোর ৪টা পর্যন্ত রাজ্যে নৈশ কারফিউ ঘোষণা করেছে। রাজ্য সরকারের একটি আদেশ অনুসারে, মনিপুরে ৩১ ডিসেম্বর পর্যন্ত নৈশ কারফিউ থাকবে। এছাড়া এটি আরও বাড়ানো হতে পারে। নৈশ কারফিউ চলাকালীন প্রয়োজনীয় পরিষেবা, পণ্য ট্রাক এবং ডিউটিতে অফিসারদের চলাচলে সর্বশেষ আদেশ থেকে ছাড় দেওয়া হয়েছে।  এছাড়াও, সামাজিক এবং প্রথাগত অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণকারীদের সংখ্যা বেড়ে ২০ হয়েছে। কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রকের মতে, রাজ্যে ৩,২৪৫ টি সক্রিয় করোনা রোগী রয়েছে।

স্বরাষ্ট্র মন্ত্রকের নির্দেশিকাগুলো ১ ডিসেম্বর থেকে কার্যকর

স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় গত বুধবার করোনার সাথে সম্পর্কিত নজরদারি, প্রতিরোধ ও সতর্কতার জন্য নয়া নির্দেশিকা প্রকাশ করেছে। ওই নির্দেশিকা আজ ১  ডিসেম্বর থেকে কার্যকর হয়েছে। এরমধ্যে রাজ্য ও কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলগুলোকে যথাযথ চিকিত্সা, সতর্কতা এবং জনতা নিয়ন্ত্রণ ব্যবস্থা, এসওপি এবং কোভিড-১৯ কঠোরভাবে প্রয়োগ করতে বলা হয়েছে। এই নির্দেশিকা আগামী ৩১ ডিসেম্বর পর্যন্ত কার্যকর থাকবে।#

পার্সটুডে/এমএএইচ/বাবুল আখতার/১

বিশ্বসংবাদসহ গুরুত্বপূর্ণ সব লেখা পেতে আমাদের ফেসবুক পেইজে লাইক দিয়ে অ্যাকটিভ থাকুন।

 

 

ট্যাগ