জানুয়ারি ০৬, ২০২১ ১৯:২৩ Asia/Dhaka
  • ভারতে ধর্মান্তরণ আইন খতিয়ে দেখবে সুপ্রিম কোর্ট, রাজ্য ও কেন্দ্রীয় সরকারকে নোটিশ

ভারতের বিভিন্ন রাজ্যে বিয়ের নামে ধর্মান্তরণ রুখতে যে আইন তৈরি করা হয়েছে তার বৈধতা খতিয়ে দেখবে সুপ্রিম কোর্ট। যদিও এ সংক্রান্ত আইনে স্থগিতাদেশ দিতে রাজি হয়নি সুপ্রিম কোর্ট। আজ (বুধবার) সুপ্রিম কোর্টে ওই মামলার শুনানি হয়। আগামী ৪ সপ্তাহ পরে বিষয়টি নিয়ে পরবর্তী শুনানি হবে।

ধর্মান্তরণ আইনের বিষয়ে উত্তর প্রদেশ ও উত্তরাখণ্ড রাজ্যকে ৪ সপ্তাহের মধ্যে জবাব দিতে বলেছে শীর্ষ আদালত। কেন্দ্রীয় সরকারকেও ওই বিষয়ে নোটিশ দেওয়া হয়েছে।

ভারতীয় সংবিধানে ধর্মনিরপেক্ষতা, সমানাধিকার এবং বৈষম্যহীনতার কথা  বলা হয়েছে, সেজন্য এ ধরণের আইন কতটা যুক্তিযুক্ত, তা নিয়ে একাধিক আদালতে একাধিক আবেদন জমা পড়েছিলে। অন্যতম আবেদনকারী হিসেবে ছিলেন, আইনজীবী বিশাল ঠাকরে এবং সমাজকর্মী তিস্তা শেতলবাদের স্বেচ্ছাসেবী সংস্থা ‘সিটিজেনস ফর জাস্টিস অ্যান্ড পিস’। এ সব আবেদনের ভিত্তিতে আদালত বিষয়টি খতিয়ে দেখতে রাজি হয়েছে।

অন্য ধর্মে বিয়ে বন্ধ করতে দীর্ঘদিন ধরে কথিত ‘লাভ জিহাদ’-এর ষড়যন্ত্রের প্রচারণা চালিয়ে যাচ্ছে বিজেপিসহ হিন্দুত্ববাদী বিভিন্ন সংগঠন। মূলত হিন্দু মেয়েদের মুসলিম ছেলেদের সঙ্গে বিয়ে বন্ধ করাই তাদের উদ্দেশ্য। হিন্দুত্ববাদীদের অভিযোগ- ধর্মান্তরিত করার লক্ষ্যেই হিন্দু মেয়েদের প্রেমের জালে ফাঁসিয়ে বিয়ে করেন মুসলিম যুবকরা। কিন্তু এক্ষেত্রে যদি বিপরীত বিষয় হয় অর্থাৎ মুসলিম মেয়েদের হিন্দু ঘরে বিয়েকে তারা লাভ জিহাদ বলতে রাজি নয়।

বিজেপি ‘লাভ জিহাদ’ বিরোধী আইনের পক্ষে একনাগাড়ে সাফাই দেওয়ার পরে গতবছর নভেম্বরে অর্ডিন্যান্স জারি করে সেটিকে আইনে পরিণত করেছে উত্তর প্রদেশ সরকার। এর সর্বোচ্চ সাজা নির্ধারিত হয়েছে ১০ বছরের কারাবাস।#

পার্সটুডে/এমএএইচ/এমবিএ/৬

বিশ্বসংবাদসহ গুরুত্বপূর্ণ সব লেখা পেতে আমাদের ফেসবুক পেইজে লাইক দিয়ে অ্যাকটিভ থাকুন।

 

ট্যাগ