জানুয়ারি ১৫, ২০২১ ২১:২৩ Asia/Dhaka
  • বিজেপি সরকার কৃষি আইন প্রত্যাহার না করা পর্যন্ত কংগ্রেস পিছু হটবে না: রাহুল গান্ধী

ভারতের প্রধান বিরোধীদল কংগ্রেসের সাবেক সভাপতি রাহুল গান্ধী এমপি বলেছেন, ‘বিজেপি সরকারকে অবিলম্বে কৃষি আইন প্রত্যাহার করতে হবে। যতক্ষণ না ওই আইন বাতিল করা হবে, ততক্ষণ কংগ্রেস পিছিয়ে আসবে না। ওই আইন কৃষকদের সহায়তা করার জন্য নয়, বরং শেষ করার জন্য।’ তিনি আজ (শুক্রবার) কংগ্রেসের পক্ষ থেকে কৃষি আইন বাতিলের দাবিতে দিল্লিতে এক বিক্ষোভ কর্মসূচিতে শামিল হয়ে ওই মন্তব্য করেন।    

এদিকে আজ রাজধানী দিল্লিতে সরকারপক্ষ ও কৃষক সংগঠনের নবম দফার বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়েছে। কিন্তু ওই বৈঠকেও কোনও সমাধানসূত্র বেরোয়নি। আগামী ১৯ জানুয়ারী পুনরায় উভয়পক্ষের মধ্যে বৈঠক হবে। গত ৫১ দিন ধরে বিভিন্ন রাজ্যের কৃষকরা কৃষি সংক্রান্ত তিনটি আইন প্রত্যহারের দাবিতে দিল্লি ও দিল্লি সংলগ্ন বিভিন্ন রাজ্যের সীমান্তে একটানা ধর্না-অবস্থানের মধ্য দিয়ে প্রতিবাদ জানাচ্ছেন। ওই আইন প্রত্যহার করা না হলে তারা ঘরে ফিরে যাবেন না বলে জানিয়েছেন।     

কংগ্রেস নেতা রাহুল গান্ধী আজ বলেন, ‘কেন্দ্রীয় নরেন্দ্র মোদী সরকার এরআগে ভূমি অধিগ্রহণ আইন এনে কৃষকদের জমি ছিনিয়ে নেওয়ার চেষ্টা করেছিল এবং কংগ্রেস পার্টি সে সময়ে তাদের থামিয়ে দিয়েছিল। এখন বিজেপি এবং তার দুই তৃতীয়াংশ বন্ধুরা আবার কৃষকদের টার্গেট করেছে এবং কৃষি সংক্রান্ত তিনটি আইন নিয়ে এসেছে।’ 

আজ কেন্দ্রীয় তিন কৃষি আইন প্রত্যাহারের দাবিতে বিভিন্ন রাজ্যে কংগ্রেসের পক্ষ থেকে বিক্ষোভ কর্মসূচি পালন করা হয়েছে। পশ্চিমবঙ্গের রাজধানী কোলকাতায় বিক্ষোভ কর্মসূচিতে নেতৃত্ব দেন রাজ্য কংগ্রেস সভাপতি অধীর রঞ্জন চৌধুরী।  

আজ পশ্চিমবঙ্গ প্রদেশ কংগ্রেস কমিটির যোগাযোগ বিভাগের সভাপতি সৌম্য আইচ রায় বলেন, ‘অবিলম্বে সারা দেশে কৃষকদের বিরুদ্ধে, সাধারণ মানুষের বিরুদ্ধে এই ‘কালা কানুন’কে অবিলম্বে প্রত্যাহার করে নিতে হবে। ওই আইন তুলে নেওয়া ছাড়া আর কোনও মধ্যপন্থা আমরা মানব না। সারা ভারতে মোদি সরকার অসাংবিধানিকভাবে রাজ্যসভায় রাতের অন্ধকারে ‘কালা কানুন’ পাস করেছে এবং (শিল্পপতি) আদানি-আম্বানিদের দ্বারা কৃষকদের উপরে নীলকর চাষিদের মত ব্যবহার করা হচ্ছে। তার বিরুদ্ধে আমরা রাজপথে নেমেছি।’

কৃষি আইন কৃষকদের জন্য নয়, এটি মুষ্টিমেয় পুঁজিপতিদের স্বার্থে করা হয়েছে’ বলেও পশ্চিমবঙ্গ প্রদেশ কংগ্রেস কমিটির যোগাযোগ বিভাগের সভাপতি সৌম্য আইচ রায় মন্তব্য করেন।# 

পার্সটুডে/এমএএইচ/এআর/১৫  

বিশ্বসংবাদসহ গুরুত্বপূর্ণ সব লেখা পেতে আমাদের ফেসবুক পেইজে লাইক দিয়ে অ্যাকটিভ থাকুন।

 

 

ট্যাগ