জানুয়ারি ২৪, ২০২১ ১৮:৫৯ Asia/Dhaka

ভারতের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রী ও বিজেপি’র সিনিয়র নেতা অমিত শাহ বলেছেন, ‘অসমে ‘অনুপ্রবেশ’কে যদি কেউ বন্ধ করতে পারে তা কেবল ভারতীয় জনতা পার্টির (বিজেপি) নরেন্দ্র মোদি সরকার করতে পারে। কংগ্রেস-বদরউদ্দিন আজমল জুটি অসমকে অনুপ্রবেশকারীদের হাত থেকে সুরক্ষিত রাখতে পারবে না। তিনি আজ (রোববার) অসমে এক জনসমাবেশে বক্তব্য রাখার সময়ে ওই মন্তব্য করেন।

অমিত শাহ বলেন, ‘আমি আজ এটুকুই বলতে এসেছি যে, অসমকে আপনারা ‘অনুপ্রবেশ মুক্ত’ তৈরি করতে চান, না চান না? একটু জোরে বলুন, অসমকে অনুপ্রবেশ করতে চান তো? কংগ্রেস ও বদরউদ্দিন আজমল জুটি অসমকে অনুপ্রবেশকারীদের হাত থেকে কী সুরক্ষিত রাখতে পারবে? কংগ্রেস ও বদরউদ্দিন আজমল জুটি সমস্ত দরজা খুলে দেবে এবং অনুপ্রবেশকে অসমের মধ্যে সহজ করবে কারণ তারা তাদের ভোট ব্যাংক।’

অসমে কথিত বাংলাদেশী অনুপ্রবেশকারীদের বিষয়ে বিজেপি বরাবরই  সোচ্চার এবং ওই বিষয়ে প্রচারণা চালিয়ে থাকে। তারা এক্ষেত্রে মুসলিমদের অনুপ্রবেশকারী এবং অন্যদেরকে শরণার্থী অথবা উদ্বাস্তু বলে মনে করে।   

আসন্ন বিধানসভা নির্বাচনের মুখে বিজেপিকে রাজ্যে ক্ষমতাসীন বিজেপি সরকারকে পরাজিত করতে কংগ্রেস দল মাওলানা বদরউদ্দিন আজমলের এআইইউডিএফ দল ও অন্যদের সঙ্গে জোট গঠন করেছে। এরপর থেকেই বিজেপি নেতারা ওই জোটের তীব্র সমালোচনায় সোচ্চার হয়েছেন।       

কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রী ও বিজেপি নেতা অমিত শাহ আজ বলেন, ‘কংগ্রেস অনেক সময় বিজেপিকে ‘সাম্প্রদায়িক’ বলে অভিযুক্ত করেছে। কিন্তু  আমি কংগ্রেস দলকে জিজ্ঞেস করতে চাই, কেরালায় আপনারা মুসলিম লীগের সাথে রয়েছেন এবং অসমের মধ্যে বদরুদ্দিন আজমলের সাথে জোট বেঁধেছেন। আজমলের বক্তব্য আপনারা শুনে থাকতে পারেন। আপনারা বলতে পারেন এটা কোন ধর্মনিরপেক্ষ দল? কংগ্রেস দল অসমকে কোন দিশায় নিয়ে যাবে? কংগ্রেস ও বদরউদ্দিন আজমলের হাতে অসম কী সুরক্ষিত থাকতে পারে? আসামের সুরক্ষা দিতে হলে কেন্দ্র ও রাজ্যে উভয় জায়গায় নরেন্দ্র মোদীর নেতৃত্বে বিজেপি সরকারের প্রয়োজন।’  

অমিত শাহের দাবি, ‘অসমে উন্নয়ন চলছে। নতুন নতুন সড়ক, হাসপাতাল, কলেজ তৈরি হচ্ছে, শিল্প আসছে। আগামীদিনে বিজেপি সরকারই অসমের বন্যাজনিত সমস্যার সমাধান করবে।’   

 

মাওলানা আতাউর রহমান মাজারভুঁইয়া

এ সম্পর্কে নাদয়াতুত তামীর সংগঠনের কেন্দ্রীয় কমিটির সাধারণ সম্পাদক ও মুখপাত্র অসমের সাবেক বিধায়ক মাওলানা আতাউর রহমান মাজারভুঁইয়া আজ (রোববার) রেডিও তেহরানকে বলেন, ‘বিজেপি কেবল প্রচারসর্বস্ব একটি দল। কোনও ভিত্তি নেই এমন প্রচারে তারা উস্তাদ। তারা বিগত নির্বাচনের আগে দলীয় ইশতেহারে বলেছিল, অসমে জাতীয় নাগরিক পঞ্জি এনআরসি থেকে বাঙালি কারও নাম বাদ যাবে না। বাঙালি হিন্দুদের তারা আশ্বস্ত করেছিল। কিন্তু এনআরসি থেকে বাঙালি হিন্দুদের নাম বেশি কাটা হয়েছে। আমরা হিন্দু-মুসলিম বিরোধে বিশ্বাস করি না। উন্নয়নের বিষয়ে বিগত সাড়ে চার বছরে যদি তারা কোনও উন্নয়ন করে থাকে তাহলে দুর্নীতির উন্নয়ন যথেষ্ট করেছে। অহেতুক শিলান্যাসের রাজনীতি করেছে। কংগ্রেস ধোয়াতুলসি পাতা না হলেও কংগ্রেস আমলে অনেক উন্নতিও হয়েছে রাজ্যের। তবে সবকিছুতে তারা হয়তো সফল হতে পারেনি। বিজেপি প্রচার সর্বস্ব একটা দল। প্রচারের মাধ্যমেই তারা নিজেকে জাহির করতে চায়।’  

রাজ্যে দুর্নীতি ১০/২০ গুণ বৃদ্ধি পাওয়ার পাশাপাশি নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্যের কোনও কোনও ক্ষেত্রে ৫০/১০০ গুণ এমনকী ২০০ গুণ পর্যন্ত বৃদ্ধি হয়েছে বলেও অসমের সাবেক বিধায়ক মাওলানা আতাউর রহমান মাজারভুঁইয়া মন্তব্য করেছেন।#

  

পার্সটুডে/এমএএইচ/এমবিএ/২৪

বিশ্বসংবাদসহ গুরুত্বপূর্ণ সব লেখা পেতে আমাদের ফেসবুক পেইজে লাইক দিয়ে অ্যাকটিভ থাকুন।

 

 

ট্যাগ