মে ০৯, ২০২১ ১৯:৩৪ Asia/Dhaka
  • হিমন্তবিশ্ব শর্মা
    হিমন্তবিশ্ব শর্মা

ভারতের অসমে নয়া মুখ্যমন্ত্রী হচ্ছেন বিজেপি’র প্রভাবশালী নেতা হিমন্তবিশ্ব শর্মা। আগামীকাল (সোমবার) তিনি শপথ গ্রহণ করবেন।

বর্তমান মুখ্যমন্ত্রী সর্বানন্দ সনোয়াল আজই পদত্যাগ করেছেন। রাজ্যপাল জগদীশ মুখী তাঁকে পরবর্তী সরকার গঠন না হওয়া পর্যন্ত দায়িত্ব পালন করতে বলেছেন।       

অসম বিধানসভা নির্বাচনের ফল প্রকাশের ৬ দিন পরে অবশেষে আজ (রোববার) মুখ্যমন্ত্রী পদ নিয়ে সংশয়ের অবসান হল। বিজেপি নেতা এবং উত্তর-পূর্ব ভারতে দলের চাণক্য বিবেচিত হিমন্তবিশ্ব শর্মা রাজ্যের নয়া মুখ্যমন্ত্রী হবেন। মুখ্যমন্ত্রী কে হবেন সেই সিদ্ধান্তের জন্য রাজধানী গুয়াহাটিতে আজ বিজেপি বিধায়কদের বৈঠক হয়।

বিজেপি সূত্র জানিয়েছে, সর্বসম্মতিক্রমে হিমন্তবিশ্ব শর্মাকে পরিষদীয় দলের নেতা নির্বাচিত করা হয়। এরফলে সর্বানন্দ সনোয়ালের জায়গায় এবার হিমন্তবিশ্ব শর্মা অসমের মুখ্যমন্ত্রী হবেন। সর্বানন্দ সনোয়ালের মন্ত্রীসভায় তিনি স্বাস্থ্য, শিক্ষাসহ বিভিন্ন দফতরের দায়িত্ব পালন করেছেন।

আজ বিজেপির পরিষদীয় বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন দলটির সাধারণ সম্পাদক অরুণ সিং, কেন্দ্রীয় মন্ত্রী নরেন্দ্র সিং তোমর, অসম বিজেপি’র দায়িত্বপ্রাপ্ত নেতা বৈজয়ন্ত পাণ্ডা প্রমুখ। আজ হিমন্তবিশ্ব শর্মাকে অসমের ঐতিহ্যবাহী উত্তরীয় দিয়ে বরণ করে নেন সর্বানন্দ সনোয়াল, অরুণ সিংরা।     

১২৬ আসনের অসম বিধানসভা নির্বাচনে বিজেপি নেতৃত্বাধীন এনডিএ ৭৫ টি আসন পেয়েছে। বিজেপি এককভাবে ৬০ টি আসন পেয়েছে। অন্যদিকে, কংগ্রেস জোটের ঝুলিতে ছিল ৫০ টি আসন। মুখ্যমন্ত্রীর মুখ কে হবেন তা নিয়ে আলোচনা চলছিল নির্বাচনের আগে থেকেই। বিজেপি নেতারা অবশ্য আগে থেকেই জানিয়ে দেন মুখ্যমন্ত্রী কে হবেন তা নিয়ে সিদ্ধান্ত হবে নির্বাচনের পরে।   

অসমে বিজেপির জয়ের পর জল্পনা শুরু হয়, কে হবেন রাজ্যের নয়া  মুখ্যমন্ত্রী?  হিমন্ত ও সর্বানন্দকে দিল্লিতে ডেকে পাঠায় কেন্দ্রীয় নেতৃত্ব। তাঁদের সঙ্গে বৈঠকে বসেন বিজেপির সিনিয়র নেতা অমিত শাহ ও সভাপতি জেপি নাড্ডা। সেখানেই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়, হিমন্তকে মুখ্যমন্ত্রীর আসনে বসানো হবে।   

অতীতে কংগ্রেসের গুরুত্বপূর্ণ মুখ ছিলেন হিমন্তবিশ্ব শর্মা। প্রায় ৬ বছর আগে কংগ্রেস থেকে বিজেপিতে যোগ দিয়েছিলেন তিনি। তাঁর সাংগঠনিক ক্ষমতার জেরে গোটা উত্তর পূর্ব ভারতে বিজেপি শক্তিশালী হয়েছে বলে তাঁকে কৃতিত্ব দেওয়া হয়। নর্থ-ইস্ট ডেমোক্রেটিক অ্যালায়েন্সের (নেডা) আহ্বায়ক হিসেবে অরুণাচল প্রদেশ, মণিপুর এবং ত্রিপুরা সরকার গঠনের ক্ষেত্রে তাঁর গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা ছিল। ফলে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি, স্বরাষ্ট্র মন্ত্রী অমিত শাহের গুডবুকে রয়েছেন হিমন্তবিশ্ব শর্মা। এবার তারই পুরস্কার পেলেন হিমন্ত।  

২০১৬ সালের বিধানসভা নির্বাচনের সময়ে বিজেপি সর্বানন্দ সনোয়ালকে মুখ্যমন্ত্রীর মুখ হিসেবে তুলে ধরেছিল। নির্বাচনে বিজেপি জয়ী হলে তিনিই অসমে প্রথম বিজেপি সরকার গঠন করেন।   

মুসলিম বিরোধী বিতর্কিত মন্তব্যের জেরে একসময়ে সমালোচিত হন হিমন্ত।   গত ফেব্রুয়ারিতে হিমন্তবিশ্ব শর্মা বলেন, মিঞা মুসলিমদের নিজেস্ব এজেন্ডা আছে। সেজন্য তারা বিজেপিকে ভোট দেবে না তা নিশ্চিত। মিঞাদের ভোটের প্রয়োজন নেই। তারা বিজেপিকে ভোট দেবে না। সেজন্য মিঞাদের কাছে বিজেপি ভোট চাইবে না বলেও তিনি মন্তব্য করেন।

তিনি সেসময় আরও বলেন, বাস্তব অভিজ্ঞতা থেকে বলছি ‘মিঞা মুসলিমরা বিজেপিকে ভোট দেন না। পঞ্চায়েত ভোট হোক কিংবা ২০১৪ সালের লোকসভা, ২০১৬ সালের বিধানসভা নির্বাচনেও তারা বিজেপিকে ভোট দেননি। বিজেপিকে মিঞাদের ভোট না দেওয়ার কারণ তাদের নিজেস্ব  এজেন্ডা আছে। বিজেপি তাতে বাধা দেয় সেজন্য মিঞাদের ভোট পাই না।#

পার্সটুডে/এমএএইচ/আবুসাঈদ/০৯

বিশ্বসংবাদসহ গুরুত্বপূর্ণ সব লেখা পেতে আমাদের ফেসবুক পেইজে লাইক দিয়ে অ্যাকটিভ থাকুন।

ট্যাগ