জুন ১৭, ২০২১ ১৭:৩৩ Asia/Dhaka
  • পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়
    পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়

ভারতের পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেছেন, আমরা আর কোনোদিনও বঙ্গভঙ্গ করতে দেবো না। তিনি আজ (বৃহস্পতিবার) রাজ্য সচিবালয় নবান্নে এক সংবাদ সম্মেলনে ওই মন্তব্য করেন।

সম্প্রতি রাজ্যের বিজেপি নেতাদের একাংশ কেন্দ্রীয় সরকারের কাছে  পশ্চিমবঙ্গের ‘উত্তরবঙ্গ’কে ‘কেন্দ্রশাসিত অঞ্চল’ করার দাবি জানিয়েছেন। তাঁরা এখানে বাংলাদেশ ও নেপাল থেকে দুর্বৃত্তদের অবাধ অনুপ্রবেশের পাশপাশি চীনও একে করিডর হিসেবে ব্যবহার করছে বলে দাবি করেছেন। এরফলে উত্তরবঙ্গে নিরাপত্তার অভাব দেখা দিয়েছে বলেও বিজেপির পক্ষ থেকে দাবি করা হয়েছে।      

এ প্রসঙ্গে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় আজ বলেন, ‘বাংলা ভাগ যে করতে আসবে, সে বুঝবে যে বাংলার একতাটা কত জোরদার, কত শক্তিশালী! বঙ্গভঙ্গ আর করতে আমরা কোনোদিনও দেবো না। বাংলাটা আমাদের সবার গর্বের। আমাদের সভ্যতা, আমাদের শিক্ষা, আমাদের সংস্কৃতি সবকিছু। যারা বঙ্গভঙ্গ নিয়ে খেলতে আসবে, কেন্দ্রীয়শাসিত অঞ্চল মানে কী? জলপাইগুড়িটা বিক্রি করে দেবে?  না, আলীপুরদুয়ারের জমিগুলো বিক্রি করবে? না কী শিলিগুড়ির জমিগুলো বিক্রি করবে? না কী এগুলো বিক্রি  করে চায়না-চায়না করে খেলবে? মুখে চায়নার কথা বলবে, আর অন্যদিকে চায়নার হাত শক্তিশালী করবে, কোনটা?  আগে এর উত্তর দিতে হবে। আমরা তো সামলে রেখেছি। আমাদের এখানে তো কোনও গণ্ডগোল নেই। কোথাও কোথাও ঘটনা ঘটলে আমাদের পুলিশ সঙ্গে সঙ্গে তাকে ধরে ফেলে। দিল্লির পুলিশের থেকে আমাদের পুলিশ অনেক ভালো কাজ করে।’ 

সম্প্রতি জলপাইগুড়ি বিজেপি নেতাদের এক বৈঠকে উত্তরবঙ্গকে কেন্দ্রীয় সরকারশাসিত অঞ্চল হিসেবে ঘোষণা করার দাবি জানিয়েছেন। তাঁদের ওই প্রস্তাবে মূলত অনুন্নয়ন, অনুপ্রবেশ ও নিরাপত্তার বিষয়কে জোর দেওয়ার কৌশল নেওয়া হয়। বলা হয়েছে, উত্তরবঙ্গ এ রাজ্যের সীমান্ত এলাকায় হওয়ায় নিরাপত্তার অভাব রয়েছে। বাংলাদেশ, নেপাল থেকে দুর্বৃত্তদের অবাধ যাতায়াতের পাশাপাশি রোহিঙ্গারাও ঢুকে পড়ছে। এমনকী চীনারাও একে ‘করিডর’ হিসেবে ব্যবহার করছে। সেজন্য উত্তরবঙ্গ অরক্ষিত হয়ে পড়ছে বলেও বিজেপি নেতাদের দাবি। 

পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বিজেপি নেতাদের এ ধরণের তৎপরতার তীব্র নিন্দা জানিয়ে এর বিরুদ্ধে সোচ্চার হয়েছেন।#

পার্সটুডে/এমএএইচ/মো.আবুসাঈদ/১৭

বিশ্বসংবাদসহ গুরুত্বপূর্ণ সব লেখা পেতে আমাদের ফেসবুক পেইজে লাইক দিয়ে অ্যাকটিভ থাকুন।

ট্যাগ