জুন ২০, ২০২১ ১৯:৩০ Asia/Dhaka
  • কংগ্রেসের সাধারণ সম্পাদক ও মুখপাত্র রণদীপ সিং সূর্যেওয়ালা
    কংগ্রেসের সাধারণ সম্পাদক ও মুখপাত্র রণদীপ সিং সূর্যেওয়ালা

জম্মু-কাশ্মীরের নেতাদের সঙ্গে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির প্রস্তাবিত সর্বদলীয় বৈঠকের আগে ভারতের প্রধান বিরোধীদল কংগ্রেস বলেছে, জম্মু-কাশ্মীরকে পূর্ণ রাজ্যের মর্যাদা দেওয়া এবং নির্বাচন অনুষ্ঠানই সেখানে গণতন্ত্র পুনরুদ্ধারের একমাত্র উপায়।

আজ (রোববার) দিল্লিতে এক সংবাদ সম্মেলনে দলের সাধারণ সম্পাদক ও মুখপাত্র রণদীপ সিং সূর্যেওয়ালা বলেন,‘আমি আপনাদের ২০১৯ সালের ৬ আগস্ট কংগ্রেসের ওয়ার্কিং কমিটির প্রস্তাবের বিষয়ে মনোযোগ আকর্ষণ করে বলতে চাই যে ওই প্রস্তাবে জম্মু-কাশ্মীরকে রাজ্যের মর্যাদা পুনর্বহালের জন্য স্পষ্টভাবে দাবি জানানো হয়েছিল। আমরা বিশ্বাস করি যে এর বিলুপ্তি গণতন্ত্র এবং সাংবিধানিক নীতিগুলির উপর সরাসরি আক্রমণ।’ 

তিনি বলেন,  ‘ভারতীয় জাতীয় কংগ্রেস বিশ্বাস করে যে জম্মু-কাশ্মীরকে পূর্ণ রাজ্যের মর্যাদা দেওয়া এবং সেখানে নির্বাচন পরিচালনা করা প্রয়োজন,  যাতে লোকেরা দিল্লির শাসন ব্যবস্থার পরিবর্তে তাদের প্রতিনিধি নির্বাচন করতে পারে। সম্পূর্ণ গণতান্ত্রিক অধিকারের নিশ্চয়তা দেওয়ার এটিই একমাত্র উপায়।’    

রণদীপ সিং সূর্যেওয়ালা আরও বলেন,  ‘এখন প্রধানমন্ত্রী এবং বিজেপির সিদ্ধান্ত নেওয়া উচিত যে, বৈঠক করা হবে, না ভারতীয় জাতীয় কংগ্রেস, সংবিধান এবং রাজ্যের জনগণের দাবি মেনে নেওয়া হবে।’  

আগামী ২৪ জুন জম্মু-কাশ্মীর পরিস্থিতি নিয়ে আলোচনার জন্য ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি সর্বদলীয় বৈঠক ডেকেছেন। দিল্লিতে গুরুত্বপূর্ণ ওই বৈঠকে কেন্দ্রীয় সরকার জম্মু-কাশ্মীর সম্পর্কিত বিভিন্ন বিষয়ে আলোচনা করতে পারে।  

২০১৯ সালে কেন্দ্রীয় সরকার জম্মু-কাশ্মীরের বাসিন্দাদের জন্য বিশেষ সুবিধা সম্বলিত ৩৭০ ধারা বাতিল করায় উদ্ভূত রাজনৈতিক অচলাবস্থার মধ্যে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি এই প্রথম সর্বদলীয় বৈঠক আহ্বান করলেন।        

কেন্দ্রীয় সরকার ২০১৯ সালের আগস্টে জম্মু-কাশ্মীরকে বিশেষ মর্যাদা দেওয়া ৩৭০ ধারা বাতিল করাসহ রাজ্যটিকে দু’টি কেন্দ্রশাসিত অঞ্চল- জম্মু-কাশ্মীর এবং লাদাখে বিভক্ত করেছিল।#     

পার্সটুডে/এমএএইচ/বাবুল আখতার/২০

বিশ্বসংবাদসহ গুরুত্বপূর্ণ সব লেখা পেতে আমাদের ফেসবুক পেইজে লাইক দিয়ে অ্যাকটিভ থাকুন।

 

ট্যাগ