জুন ২১, ২০২১ ১৮:০৫ Asia/Dhaka
  • জঙ্গলমহল রাজ্যের দাবি বিজেপি নেতার গলায়, তীব্র সমালোচনা তৃণমূলের

ভারতের পশ্চিমবঙ্গের উত্তরবঙ্গকে বিজেপি এমপি জন বার্লা পৃথক রাজ্য গড়ার দাবি জানানোর পরে এবার পৃথক জঙ্গলমহল রাজ্যের দাবি জানালেন বিজেপি নেতা সৌমিত্র খাঁ এমপি। আজ (সোমবার) গণমাধ্যমে দেওয়া সাক্ষাৎকারে সৌমিত্র খাঁ এ ধরণের দাবি জানিয়েছেন।

এরআগে বিজেপি এমপি জন বার্লা উত্তরবঙ্গকে কেন্দ্রীয় সরকারশাসিত অঞ্চল অথবা রাজ্য করার দাবি জানিয়েছেন। এর প্রতিবাদে গতকাল (রোববার) সন্ধ্যায় দিনহাটা থানায় জন বার্লার বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করেছেন কুচবিহার জেলা যুব তৃণমূলের সহ-সভাপতি জাকারিয়া হোসেন।      

গণমাধ্যমে প্রকাশ, গত (শনিবার) কুচবিহারের একটি হোটেলে বিজেপি’র একটি বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন বিজেপি’র আলিপুরদুয়ারের এমপি জন বার্লা। সেখানে জন বার্লা বলেন, ‘উত্তরবঙ্গের মানুষ উন্নয়ন থেকে বঞ্চিত। বাংলাদেশে থেকে অনুপ্রবেশের কারণে চা বলয়ের বাসিন্দারা নিজেদের এলাকায় কাজ পাচ্ছেন না। তাঁদের ভিন রাজ্যে কাজের সন্ধানে যেতে হচ্ছে।’ একইসঙ্গে তিনি জানিয়ে দেন, উত্তরবঙ্গকে পৃথক রাজ্য ঘোষণা করার সিদ্ধান্ত থেকে সরছেন না। এরপরেই ওই ইস্যুতে রাজনৈতিক অঙ্গনে তীব্র আলোড়ন ও বিতর্ক সৃষ্টি হয়েছে।   

অন্যদিকে, আজ বিজেপি যুব মোর্চার সভাপতি সৌমিত্র খাঁ এমপি বলেন, ‘মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় প্রধানমন্ত্রী হওয়ার স্বপ্ন দেখছেন। তাই পশ্চিমবঙ্গকে ভেঙে আলাদা বাংলা দেশ তৈরির চেষ্টা করছেন উনি। তাহলে আমরাও রাঢ়বঙ্গকে নিয়ে আলাদা রাজ্য গঠনের দাবি জানাবো।’  

 তাঁর দাবি, বীরভূম, বর্ধমান, দুর্গাপুর, আসাসনসোল, পুরুলিয়া, বাঁকুড়া, বিষ্ণুপুর, ঝাড়গ্রাম, পূর্ব মেদিনীপুর, পশ্চিম মেদিনীপুর ও হুগলীর কিছুটা অংশ নিয়ে ১৮০৩/১৮৩২ সাল পর্যন্ত যে পৃথক জঙ্গলমহল জেলা ছিল, সেটিকেই আলাদা রাজ্য করা হোক। 

সৌমিত্র খাঁ সাফাই দিয়ে বলেন, ‘বাংলার মানুষের উন্নয়নের জন্য আমরা পৃথক জঙ্গলমহল রাজ্যের দাবি তুলতেই পারি। আমরা ভারতীয়। সেই হিসেবে জঙ্গলমহল রাজ্যের দাবি করাটা কোনও রাজ্যের বিরোধিতা করা নয়।’    

এ সম্পর্কে আজ তৃণমূল বিধায়ক তাপস রায় বলেন, ‘বিজেপি নেতারা বাংলার ইতিহাস, ভূগোল, সংস্কৃতি জানে না। তাঁরা ভারতের স্বাধীনতার ইতিহাস জানে না। তাঁরা কিছুই জানে না। বাংলা সম্পর্কে তাঁরা মনে মনে যে ক্ষোভ পুষে রেখেছিলেন, এটা তারই বহিঃপ্রকাশ। আগামীদিনে বাংলায় বিজেপি শূন্য হয়ে যাবে।’       

বিজেপি মুখপাত্র শমিক ভট্টাচার্য অবশ্য জন বার্লা বা সৌমিত্র খাঁর মন্তব্য দল সমর্থন করে না বলে জানিয়েছেন। তিনি বলেন, ‘কোনও অবস্থাতেই এ ধরণের খণ্ডবিখণ্ডের উপরে আমাদের আস্থা নেই। আমরা রাজ্যভাগের বিরুদ্ধে। দল একে সমর্থন করছে না। দল ওই বক্তব্যের দায়িত্ব নিচ্ছে না।’

এরআগে রাজ্য বিজেপি সভাপতি দিলীপ ঘোষও দল রাজ্য ভাগের বিরোধী বলে মন্তব্য করেছেন। কিন্তু তারপরেও বিজেপি নেতা সৌমিত্র খাঁ জঙ্গলমহল রাজ্যের দাবি তোলায় রাজ্য বিজেপি’র শীর্ষনেতারা কিছুটা বিড়ম্বনায় পড়েছেন।#         

পার্সটুডে/এমএএইচ/মো.আবুসাঈদ/২১

বিশ্বসংবাদসহ গুরুত্বপূর্ণ সব লেখা পেতে আমাদের ফেসবুক পেইজে লাইক দিয়ে অ্যাকটিভ থাকুন।

ট্যাগ