আগস্ট ০১, ২০২১ ১৬:১৪ Asia/Dhaka
  • ভারত ও চীনের মধ্যে সামরিক পর্যায়ে বৈঠক( ফাইল ফটো)
    ভারত ও চীনের মধ্যে সামরিক পর্যায়ে বৈঠক( ফাইল ফটো)

ভারত ও চিনের মধ্যে দ্বাদশ রাউন্ডের সামরিক পর্যায়ের সংলাপে ভারত হট স্প্রিং, গোগরা এবং পূর্ব লাদাখের বিভিন্ন পয়েন্ট থেকে অবিলম্বে সেনা প্রত্যাহারের ওপরে জোর দিয়েছে।

আজ (রোববার) বেসরকারি টিভি চ্যানেল এনডিটিভি ওয়েবসাইট সূত্রে প্রকাশ, গতকাল (শনিবার) সকাল সাড়ে ১০ টা নাগাদ উভয়দেশের সামরিক কর্মকর্তাদের মধ্যে বৈঠক শুরু হয় এবং সন্ধ্যে সাড়ে ৭টা পর্যন্ত তা স্থায়ী হয়। এ সময়ে দু’পক্ষের মধ্যে ব্যাপক আলাপ-আলোচনা হয়েছে।       

আলোচনার আগে, বিভিন্ন সূত্র বলেছিল যে ভারত সেনা প্রত্যাহার প্রক্রিয়া সম্পর্কে ইতিবাচক ফলাফলের ব্যাপারে আশাবাদী। ভারত ধারাবাহিকভাবে জোর দিয়ে আসছে যে, দু’পক্ষের মধ্যে একটি সামগ্রিক সম্পর্কের জন্য দেপসাং, হট স্প্রিং এবং গোগরাসহ সমস্ত বকেয়া সমস্যা সমাধান করা প্রয়োজন।    

দু’দেশের মধ্যে দ্বাদশ রাউন্ডের বৈঠকে ভারতের পক্ষ থেকে উপস্থিত ছিলেন লেহ’তে অবস্থিত ১৪ কোরের প্রধান লেফটেন্যান্ট জেনারেল পিজিকে মেনন ও বিদেশ মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব (পূর্ব এশিয়া) নবীন শ্রীবাস্তব।  অন্যদিকে, চিনের পক্ষে প্রতিনিধিত্ব করেন সেদেশের সেনাবাহিনীর ওয়েস্টার্ন থিয়েটারের কম্যান্ডার জিউ কিউলিং।     

কমপক্ষে সাড়ে তিন মাসেরও বেশি সময়ের ব্যবধানে উভয়দেশের মধ্যে সীমান্তে অচলাবস্থা সমাধানের লক্ষ্যে ওই বৈঠক হয়েছে। গত ৯ এপ্রিল দু’পক্ষের মধ্যে ১১ তম রাউন্ডের সামরিক কর্মকর্তাদের মধ্যে প্রকৃত নিয়ন্ত্রণরেখা ‘এলএসি’ বরাবর চুসুল সীমান্ত পয়েন্টে হয়েছিল। ওই বৈঠক সেসময়ে কমপক্ষে ১৩ ঘন্টা ওই বৈঠক স্থায়ী হয়েছিল। দ্বাদশ রাউন্ডের সামরিক আলোচনার প্রায় দুই সপ্তাহ আগে, ভারতীয় পররাষ্ট্রমন্ত্রী এস জয়শঙ্কর তাজিকিস্তানে আয়োজিত ‘এসসিও’ বৈঠকে স্পষ্টভাবে চিনের পররাষ্ট্রমন্ত্রী ওয়াং ইকে বলেছিলেন, পূর্ব লাদাখের অব্যাহত অচলাবস্থা দু’দেশের দ্বিপক্ষীয় সম্পর্কের উপর নেতিবাচক প্রভাব ফেলছে। একতরফাভাবে স্থিতাবস্থা পরিবর্তনের কোনও চেষ্টা হলে, ভারত তা মেনে নেবে না বলেও ভারতীয় পররাষ্ট্রমন্ত্রী এস জয়শঙ্কর চিনের পররাষ্ট্রমন্ত্রী ওয়াং ইকে জানিয়েছিলেন। 

 

পার্সটুডে/এমএএচইচ/ বাবুল আখতার/১

বিশ্বসংবাদসহ গুরুত্বপূর্ণ সব লেখা পেতে আমাদের ফেসবুক পেইজে লাইক দিয়ে অ্যাকটিভ থাকুন।

   

 

ট্যাগ