সেপ্টেম্বর ১৪, ২০২১ ১৯:৫৬ Asia/Dhaka
  •    মুসলিমদের ‘ওম’ পতাকার নীচে নামাজ পড়তে বললেন হিন্দু মহাসভার নেতা

সর্বভারতীয় হিন্দু মহাসভার নেতা অশোক শর্মা মুসলিমদের ‘ওম’ পতাকার নীচে নামাজ পড়তে বলেছেন। হিন্দি গণমাধ্যম ‘দৈনিক ভাস্কর’ ওই তথ্য জানিয়েছে।

সোমবার ‘দৈনিক ভাস্কর’ জানিয়েছে হিন্দু মহাসভার জাতীয় সহ-সভাপতি অশোক শর্মা বলেছেন, ‘মুসলিমদের সঙ্গে আমাদের শত্রুতা নেই, আমরা ধর্মীয় রাষ্ট্র চাই। ওরাও এ দেশে থাকুক। ৫ বারের পরিবর্তে ২১ বার নামাজ পড়ুন। কিন্তু আপনি পড়বেন শুধুমাত্র ‘ওম’-এর পতাকার তলায়। এখানে চাঁদ-তারার নীচে নামাজ চলবে না।’      

অন্যদিকে, সর্বভারতীয় হিন্দু মহাসভা দেশের ১১ টি শহরে নাথুরাম গডসে এবং নারায়ণ আপতের মূর্তি স্থাপনের প্রস্তুতি নিচ্ছে। ২ অক্টোবর গান্ধি  জয়ন্তীতে মীরাট এবং গোয়ালিয়র থেকে ওই কর্মসূচি শুরু হবে। এই দু’টি শহরে নারায়ণ আপতের মূর্তি স্থাপন করা হবে। ২০২২ সালে উত্তর প্রদেশ বিধানসভা নির্বাচনের ঠিক আগে হিন্দু মহাসভার ভাস্কর্য স্থাপনের ঘোষণা একটি বড় বিতর্ক তৈরি করতে পারে বলে মনে করছেন বিশ্লেষকরা। 

ভারতের জাতির জনক গান্ধীজির হত্যাকারী ছিলেন নাথুরাম গডসে। গান্ধী হত্যার দায়ে গডসে ও তার সহযোগী নারায়ণ আপতেকে তৎকালীন সময়ে  ফাঁসিতে মৃত্যুদণ্ড দেওয়া হয়।  

গণমাধ্যমে প্রকাশ, হিন্দু মহাসভার জাতীয় সহ-সভাপতি অশোক শর্মা বলেছেন, ‘আমরা মীরাট জেলা থেকে প্রতিমা স্থাপনের কাজ শুরু করেছি, এই কার্যক্রম চলবে। মীরাটের পরে, গোয়ালিয়রেও গডসে এবং আপতের ভাস্কর্য স্থাপন করা হবে। নারায়ণ আপতের মূর্তি, যা গোয়ালিয়রে সম্পন্ন হয়েছে, তা আমাদের জাতীয় সভাপতির নির্দেশে গোয়ালিয়রে স্থাপন করা হবে।’ 

তিনি বলেন, রাজস্থানের মীরাটের জন্য আপতেজি’র ভাস্কর্য প্রস্তুত হয়েছে। আমরা দেশের ১১ টি শহরে প্রতিমা স্থাপন করতে যাচ্ছি। ২ টি শহরের নাম আপনাদের সামনে আছে, বাকি শহরের নামও শিগগিরি জানানো হবে বলে মন্তব্য করেন হিন্দু মহাসভার জাতীয় সহ-সভাপতি অশোক শর্মা।

মুফতি আব্দুল মাতিন

এ সম্পর্কে আজ (মঙ্গলবার) অল ইন্ডিয়া সুন্নাত উল জামায়াতের সাধারণ সম্পাদক মুফতি আব্দুল মাতিন রেডিও তেহরানকে বলেন, ‘সর্বভারতীয় হিন্দু মহাসভা ঘোষণা করেছে আগামী ২ অক্টোবর, গান্ধী জয়ন্তীর দিনে ভারতের ১১টি শহরে নাথুরাম গডসে ও নারায়ন আপতের মূর্তি বসাবে। এ ব্যাপারে আমার জানতে ইচ্ছা হয় যারা ভারতের জাতিরজনক গান্ধীজিকে হত্যা করলো ভারতীয় আইনে তাদের ফাঁসি হয়েছে। আজ যদি তাদের মূর্তি বসানো হয় তাহলে সেটা হবে ভারতবর্ষের সংবিধানকে কলঙ্কিত করার এক চরমতম অধ্যায়। এখানে হিন্দু-মুসলমানের প্রশ্ন নয়, আমরা সকলেই গান্ধীজিকে জাতীয়তাবাদী নেতা হিসেবে জানি ও তাঁকে যারা হত্যা করল সেই হত্যকারীদের মূর্তি বসানো বন্ধ হোক। আমি সকল জাতীয়তাবাদী, মানবতাবাদীদেরকে বলবো দেশের মর্যদা, সংবিধানের মর্যদা রক্ষার স্বার্থে এর প্রতিবাদে দেশের গণতন্ত্রপ্রেমী মানুষদের এগিয়ে আসতে অনুরোধ করছি।’

তিনি আরও বলেন, ‘হিন্দু মহাসভা ঘোষনা করেছে মুসলমানদের সঙ্গে আমাদের কোন বিরোধিতা নেই তারা ৫ ওয়াক্তের জায়গায় ২১ ওয়াক্ত নামাজ পড়ুকআমরা ভারতবর্ষে ধর্মনিরপেক্ষ নয়ধর্মসাপেক্ষ রাষ্ট্র চাইমুসলমানদের নামাজ পড়তে গেলে ওম’ পতাকার নীচে নামাজ পড়তে হবে। আসলে তাদের হয়তো জানা নেই ইসলামী  শরীয়াহতে চাঁদ-তারা বা ‘ওম’ পতাকার নীচে নামাজ পড়া বা কোনও পতাকার নীচে নামাজ পড়ার শরীয়াহতে কোনও হুকুম নেই। চাঁদ-তারা পাকিস্তানের পতাকাতার  সঙ্গে ইন্ডিয়ার জাতীয়তাবাদের কোন সম্পর্ক আছে বলে আমি মনে করি না। আমরা নামাজ পড়িআমরা একাত্মবাদে বিশ্বাসীমহান আল্লাহর উদ্দেশ্যে নামাজ পড়িআমরা কোন আকৃতির সামনে মাথানত করি না। হিন্দু মহাসভা বলছে আমাদের ওম’ এর নীচে নামাজ পড়তে হবে যদি আমরা তাই করি তাহলে তো মুসলমানই থাকলাম না!  সুতরাংভারতবর্ষ গণতান্ত্রিক দেশ সেকুলার স্টেটসেটাই থাকবে ধর্মসাপেক্ষ রাষ্ট্র করতে যাওয়া বা হিন্দু রাষ্ট্র করে মুসলিমদের ৫ ওয়াক্তের জায়গায় ২১ ওয়াক্ত নামাজ পড়তে দেবেন ইত্যাদি মুসলিম কেন শান্তি ও সম্প্রীতিকামী মনুষ কখনই তা মেনে নেবে না।’    

পার্সটুডে/এমএএইচ/এমবিএ/এআর/১৪

বিশ্বসংবাদসহ গুরুত্বপূর্ণ সব লেখা পেতে আমাদের ফেসবুক পেইজে লাইক দিয়ে অ্যাকটিভ থাকুন।

ট্যাগ