সেপ্টেম্বর ২১, ২০২১ ২০:২৭ Asia/Dhaka
  • রাজ্যের শিক্ষা মন্ত্রী ব্রাত্য বসু
    রাজ্যের শিক্ষা মন্ত্রী ব্রাত্য বসু

ভারতের পশ্চিমবঙ্গের তৃণমূল নেতা ও রাজ্যের শিক্ষা মন্ত্রী ব্রাত্য বসু বলেছেন, ‘ত্রিপুরায় বিজেপি’র দিন ঘনিয়ে এসেছে, তৃনমূলকে দমিয়ে রাখা যাবে না।’ তিনি আজ (মঙ্গলবার) গণমাধ্যমে দেওয়া সাক্ষাৎকারে ওই মন্তব্য করেন।

তৃণমূলের সর্বভারতীয় সাধারণ সম্পাদক অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় এমপিকে বিজেপিশাসিত ত্রিপুরায়  মিছিল করতে না দেওয়ায় মন্ত্রী ব্রাত্য বসু আজ ক্ষোভ প্রকাশ করেন। তিনি বলেন, ‘বিজেপি আমাদের রাজ্য পশ্চিমবঙ্গে মিছিল করে মিটিং করে। নির্বাচনের সময়ে আমরা দেখেছি, প্রত্যেকদিন বড় বড় চপার থেকে শুরু বিমানে বিজেপি নেতারা আসা যাওয়া করেছেন। র্যা  লি হয়েছে, মিছিল হয়েছে, সব হয়েছে। আমাদের রাজ্য সরকার কোনোদিন এ ধরণের কার্যকলাপ অনুমোদন করে না। অথচ বিজেপি এখানে গণতন্ত্রের কথা বলে, মানবাধিকারের কথা বলে। কিন্তু কোথায় থাকে মানবাধিকার ভাই? যখন ত্রিপুরায় একটা র‍্যালি করবেন অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়, এতে সমস্যা কোথায়? এটা আবার বলছি- ত্রিপুরায় বিজেপির দিন ঘনিয়ে এসেছে। অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়কে তৃণমূল কংগ্রেসকে, মমতা বন্দোপাধ্যায়কে যারা অনুপ্রেরণা বা রাজনৈতিক আদর্শ হিসেবে লড়াই করছে, তাদের এভাবে দমিয়ে রাখা যাবে না।’  

তৃণমূল নেতা ব্রাত্য বসু আরও বলেন, কোভিড পরিস্থিতির মধ্যে ত্রিপুরার আগরতলায় বিজেপি দল প্রায় হাজার খানেক লোকের র্যা লি বের করেছিল। ত্রিপুরার বিজেপি পরিচালিত বিপ্লব দেবের সরকার সেটার অনুমতি দিয়েছিল। কিন্তু যখন তৃণমূল নেতা অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় ওখানে র‍্যালি করতে চাচ্ছেন, তখন তারা অনুমতি দিচ্ছে না! ভারতে এই  অদ্ভুত তুঘলকি কাণ্ডকারখানা আর কোথাও আছে বলে আমার জানা নেই।’

‘অভিষেক বন্দোপাধ্যায়কে বিজেপি ভয় পাচ্ছে, তাকে নানাভাবে দমানোর  চেষ্টা করছে। এভাবে যতই করা হোক না কেন, ‘আমাদের আগামী অপারেশন অবশ্যই ত্রিপুরা’ বলেও মন্তব্য করেন, পশ্চিমবঙ্গের তৃণমূল নেতা ও রাজ্যের শিক্ষা মন্ত্রী ব্রাত্য বসু।

ত্রিপুরায় এরআগে দু’বার মিছিলের অনুমতি না মেলায় আগামী ২২  সেপ্টেম্বর আগরতলায় অভিষেকের নেতৃত্বে মিছিলের অনুমতি চেয়ে রাজ্য পুলিশকে চিঠি দিয়েছিল তৃণমূল। আগে ১৫ এবং ১৬ সেপ্টেম্বরে পদযাত্রার অনুমতি চাওয়া হয়েছিল। কিন্তু তাতে অনুমতি দেওয়া হয়নি। বিষয়টি হাইকোর্ট পর্যন্ত গড়ায়। কিন্তু মঙ্গলবার ত্রিপুরা রাজ্য সরকার বলেছে, আগামী  ৪ নভেম্বর পর্যন্ত কোনও রাজনৈতিক কর্মসূচিতে অনুমতি দেওয়া যাবে না। কোভিড বিধি ও পুজোর কারণে ওই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে বলে ত্রিপুরা সরকার সাফাই দিয়েছে। এরফলে আগামীকাল বুধবারও ফের তৃণমূলের সর্বভারতীয় সভাপতি অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের মিছিল অনিশ্চিত হয়ে পড়েছে।#

পার্সটুডে/এমএএইচ/আবুসাঈদ/২১

বিশ্বসংবাদসহ গুরুত্বপূর্ণ সব লেখা পেতে আমাদের ফেসবুক পেইজে লাইক দিয়ে অ্যাকটিভ থাকুন।

ট্যাগ