অক্টোবর ২৮, ২০২১ ১৯:৫৭ Asia/Dhaka
  • ভারতের মজলিশ-ই-ইত্তেহাদুল মুসলেমিন (মিম) প্রধান ব্যারিস্টার আসাদউদ্দিন ওয়াইসি
    ভারতের মজলিশ-ই-ইত্তেহাদুল মুসলেমিন (মিম) প্রধান ব্যারিস্টার আসাদউদ্দিন ওয়াইসি

ওয়াইসি ভারতের মজলিশ-ই-ইত্তেহাদুল মুসলেমিন (মিম) প্রধান ব্যারিস্টার আসাদউদ্দিন ওয়াইসি এমপি বলেছেন, মুজাফফরনগরের মানুষদেরকে সমাজবাদী পার্টির(সপা)আমলে দাঙ্গার মুখোমুখি হতে হয়েছিল। দেশ স্বাধীনের পর যে বিভাজন হয়েছিল তার চেয়েও ভয়ঙ্কর ছিল এই দাঙ্গা।

মুজাফফরনগরে আয়োজিত এক জনসভায় বক্তব্য রাখার সময়ে তিনি ওই মন্তব্য করেন।  আজ (বৃহস্পতিবার) হিন্দি গণমাধ্যম এবিপি লাইভ ডটকম-এ প্রকাশ, মুজাফফরনগরের দাঙ্গা প্রসঙ্গে ওয়াইসি বলেছেন, ‘দেশভাগের পর প্রথমবারের মতো মানুষজন তাদের বাড়িঘর, গ্রাম ও মসজিদ ছেড়ে উদ্বাস্তু হতে বাধ্য হয়। দাঙ্গার পরে, সমাজবাদী পার্টি ক্ষতিগ্রস্তদের ন্যায়বিচার দেওয়ার জন্য কোনও পদক্ষেপ গ্রহণ করেনি এবং মুসলিম বিধায়কদের জিভে তালা লাগিয়ে তাদের শক্তিকে দুর্বল করার কাজ করা হয়েছিল।’

আসাদউদ্দিন ওয়াইসি মুজাফফরনগরে তাঁর প্রথম নির্বাচনী জনসভায় তিনি উত্তর প্রদেশের সাবেক ক্ষমতাসীন সমাজবাদী পার্টির তীব্র সমালোচনা করেন। মুজাফফরনগর দাঙ্গার কথা উল্লেখ করে, উত্তর প্রদেশের জনপ্রতিনিধিদের মামলাগুলো ফেরত নেওয়া প্রসঙ্গে প্রশ্ন তোলেন।‘

মিম’প্রধান ব্যারিস্টার আসাদউদ্দিন ওয়াইসি এমপি বলেন, ‘২০১৩ সালে মুজাফফরনগরে দাঙ্গা হয়েছিল। এতে দেশভাগের পর বিপুল সংখ্যক মানুষকে গৃহহীন হতে হয়। ৫০ হাজার দরিদ্র মানুষকে তাদের গ্রাম, ক্ষেত-জমি ও মসজিদ ছেড়ে নিজ জেলায় উদ্বাস্তু হয়েছিল। এটা সমাজবাদী পার্টির ব্যর্থতা ছিল। দাঙ্গার শিকার  ক্ষতিগ্রস্তদের সুবিচার দিতে সমাজবাদী পার্টির সরকার কিছুই করেনি। সেই সময়ে  উত্তর প্রদেশ বিধানসভায় প্রায় ৭০ জন মুসলিম বিধায়ক ছিলেন। যেসব দলের মুসলিম বিধায়ক ছিলেন, তাদের কর্তারা মুজাফফরনগর দাঙ্গার শিকারদের দুর্দশার কথা বলতে দেয়নি এবং তাদের জিভে তালা লাগিয়ে দিয়েছিলেন। বলা হয়েছিল খবরদার যেন সোচ্চার হবেন না।’ 

 ওয়াইসি প্রশ্ন তুলে বলেন, ‘যখন উত্তর প্রদেশ বিধানসভায় ৭০ জন মুসলিম বিধায়ক ছিলেন এবং সমাজবাদী পার্টি ক্ষমতায় ছিল, তখন এতবড় দাঙ্গা হল কী করে? তিনি বলেন, সমাজবাদী পার্টি এবং ৭০ জন মুসলিম বিধায়ক আপনাদের ন্যায়বিচার দিতে পারেননি, এটি বুঝতে হবে। এই বিধায়কদের তাদের দল দুর্বল করে দিয়েছে এবং নিজেদের শক্তি শেষ করে দিয়েছে।’

উত্তর প্রদেশে ৪০৩ আসনের মধ্যে ওয়াইসির ‘মিম’দল মুসলিম অধ্যুষিত ১০০ আসনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করবে।#

পার্সটুডে/এমএএইচ/২৮  

 

ট্যাগ